kalerkantho

বুধবার । ১০ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৫ নভেম্বর ২০২০। ৯ রবিউস সানি ১৪৪২

করোনায় বৈশ্বিক বিনিয়োগে বড় ধাক্কা

বাংলাদেশে এফডিআই কমেছে ১৯%

বাণিজ্য ডেস্ক   

২৮ অক্টোবর, ২০২০ ১০:২০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বাংলাদেশে এফডিআই কমেছে ১৯%

করোনা মহামারিতে বিশ্বজুড়ে বিনিয়োগ ও বাণিজ্যে ধস নেমেছে। উন্নত দেশ থেকে শুরু করে উন্নয়নশীল ও স্বল্পোন্নত সব দেশের ওপরই পড়েছে করোনার অর্থনৈতিক ধাক্কা। জাতিসংঘের বাণিজ্য ও উন্নয়ন সংস্থা আংকটাডের সর্বশেষ প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২০ সালের প্রথম ভাগে বিশ্বে সরাসরি বিদেশি বিনিয়োগ (এফডিআই) প্রবাহ কমেছে ৪৯ শতাংশ।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাব অনুযায়ী, বছরের প্রথম প্রান্তিকে দেশে এফডিআই আসে ৫৮২.১৭ মিলিয়ন ডলার, যা ২০১৯ সালের ১০৩৫.৫৬ মিলিয়ন থেকে ৪৩.৭৮ শতাংশ কম। আংকটাডের মূল্যায়নে বলা হয়, এ বছরের প্রথম ছয় মাসে বাংলাদেশে বিদেশি বিনিয়োগ প্রায় ১৯ শতাংশ কমে হয়েছে ১১৬৪.৩০ মিলিয়ন ডলার। ২০১৯ সালের এই সময়ে বিনিয়োগ আসে ১৪৩৭.০ মিলিয়ন ডলার। আংকটাডের তথ্য অনুযায়ী, বাংলাদেশে গ্রিনফিল্ড বিনিয়োগ প্রকল্প কমেছে ৭৮ শতাংশ। গ্রিনফিল্ড বিনিয়োগ প্রকল্পের ঘোষণা থেকে ভবিষ্যৎ এফডিআইয়ের প্রবণতা বোঝা যায়।

গতকাল মঙ্গলবার আংকটাড প্রকাশিত গ্লোবাল ইনভেস্টমেন্ট ট্রেন্ডস মনিটরে এ চিত্র উঠে এসেছে। এতে বলা হয়, করোনা মহামারির লকডাউনে বিশ্বজুড়ে বিদ্যমান বিনিয়োগ প্রকল্পগুলো স্থবির হয়ে পড়ে। এর পাশাপাশি গভীর মন্দার পূর্বাভাসে বহুজাতিক কম্পানিগুলো তাদের নতুন প্রকল্পগুলো পুনর্মূল্যায়ন করছে।

আংকটাডের বিনিয়োগ ও এন্টারপ্রাইজ বিষয়ক পরিচালক জেমস ঝান বলেন, ‘আমাদের প্রত্যাশার চেয়েও নাটকীয়ভাবে কমেছে এফডিআই। বিশেষ করে উন্নত বিশ্বে। উন্নয়নশীল দেশগুলোও এ ঝড়ের কবলে পড়েছে, তবে বছরের প্রথম ভাগে উন্নত বিশ্বের চেয়ে কিছুটা ভালো অবস্থানে আছে। বিশ্বে বিনিয়োগ সম্ভাবনা খুবই অনিশ্চিত।’

প্রতিবেদনে বলা হয়, উন্নত দেশগুলোতে এফডিআইয়ের বড় পতন হয়েছে। বছরের প্রথম ছয় মাসে এ দেশগুলো ৯৮ বিলিয়ন ডলারের এফডিআই পেয়েছে, যা ২০১৯ সালের একই সময়ের চেয়ে ৭৫ শতাংশ কম। সবচেয়ে খারাপ অবস্থা ইউরোপীয় দেশগুলোতে। বিশেষ করে বিনিয়োগে বড় ধাক্কা খেয়েছে নেদারল্যান্ডস ও সুইজারল্যান্ড। তবে উত্তর আমেরিকার দেশগুলোতে এফডিআই ৫৬ শতাংশ কমে হয়েছে ৬৮ বিলিয়ন ডলার।

উন্নয়নশীল দেশগুলোতে এফডিআই কমেছে ১৬ শতাংশ। মূলত চীনে বিনিয়োগ স্থিতিশীলতা ফেরায় এ হ্রাস প্রত্যাশার চেয়ে কিছুটা কম। এর মধ্যে এশিয়ায় এফডিআই কমেছে ১২ শতাংশ। বছরের প্রথম ভাগে এশিয়ায় বিনিয়োগ এসেছে ২১৭ বিলিয়ন ডলার। ২০১৯ সালের এই সময়ে বিনিয়োগ এসেছিল ২৪৬ বিলিয়ন ডলার। আফ্রিকায় এফডিআই কমেছে ২৮ শতাংশ এবং লাতিন আমেরিকা ও ক্যারিবীয় দেশগুলোতে কমেছে ২৫ শতাংশ। প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২০ সালের জুন পর্যন্ত বিশ্ব বিনিয়োগের অর্ধেকের বেশি টেনেছে উন্নয়নশীল এশিয়া। ইতিপূর্বে আংকটাডের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, পুরো বছরে বিশ্বে এফডিআই কমবে ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ।

এদিকে দেশে বিদেশি বিনিয়োগ বাড়াতে বাণিজ্য সহজীকরণসহ নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে বাংলাদেশ সরকার ও সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলো। বাংলাদেশ ব্যাংক গত ৩০ জুন শেষ হওয়া ২০১৯-২০ অর্থবছরের বিদেশি বিনিয়োগের যে তথ্য দেয় তাতে দেখা যায়, গত অর্থবছরে ৩১৫ কোটি ৭০ লাখ ডলারের এফডিআই এসেছে দেশে। এর আগের অর্থবছরে (২০১৮-১৯) এসেছিল ৪৯৪ কোটি ৬০ লাখ ডলার। এ হিসাবে এক বছরে দেশে বিদেশি বিনিয়োগ কমেছে ৩৬.১৭ শতাংশ। মহামারি এখনো চলতে থাকায় আগামী দিনগুলোতে এই চিত্র বদলাবে না বলেই মনে করছেন অর্থনীতিবিদ ও দেশের ব্যবসায়ী উদ্যোক্তারা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা