kalerkantho

শুক্রবার । ১৯ আষাঢ় ১৪২৭। ৩ জুলাই ২০২০। ১১ জিলকদ  ১৪৪১

এক মুহূর্ত বন্ধ হয়নি চট্টগ্রাম বন্দর

আসিফ সিদ্দিকী, চট্টগ্রাম    

৩১ মে, ২০২০ ০৮:৪৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এক মুহূর্ত বন্ধ হয়নি চট্টগ্রাম বন্দর

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত মানুষের জীবন বাঁচাতে প্রাণপণ চেষ্টা চালাচ্ছেন চিকিৎসকরা; সংক্রমণ ঠেকাতে কাজ করছেন প্রশাসন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও প্রতিরক্ষা বাহিনীর সদস্যরা। আর দেশের মানুষের জীবিকা বাঁচাতে কাজ করছেন চট্টগ্রাম বন্দরের কর্মীরা। অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বিশেষ করে আমদানি-রপ্তানিপণ্য সরবরাহ স্বাভাবিক রাখতে শুরু থেকে নিরবচ্ছিন্নভাবে কাজ করছেন বন্দরকর্মীরা। এই আমদানি পণ্যের মধ্যে যেমন ভোগ্যপণ্য আছে, তেমনি আছে জীবন বাঁচানোর ওষুধ তৈরির কাঁচামাল; আছে করোনা প্রতিরোধে সম্মুখ সমরে কর্মরত কর্মীদের জরুরি চিকিৎসাসামগ্রীও।

উল্লেখ্য, দেশের অর্থনীতির লাইফলাইন চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর দিয়ে দেশের মোট আমদানির ৮২ শতাংশ আসে; আর রপ্তানিপণ্যের ৯১ শতাংশই যায় এই বন্দর দিয়ে। সুতরাং আমদানি-রপ্তানির এই গতিতে সামান্য নেতিবাচক প্রভাব পড়লে তা পুরো দেশের অর্থনীতির ওপরই বড় প্রভাব পড়ে।

চট্টগ্রাম বন্দর চেয়ারম্যান রিয়ার অ্যাডমিরাল এস এম আবুল কালাম আজাদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘কোনো প্রণোদনা পাবেন এমন আশা নিয়ে বন্দরকর্মীরা করোনা ঝুঁকি মাথায় নিয়ে কাজ করেননি। চট্টগ্রাম বন্দর কর্মীদের প্রধান লক্ষ্য ছিল বন্দরকে ২৪ ঘণ্টা পুরোদমে সচল রাখা; কোনোক্রমেই যেন পণ্য সরবরাহ বন্ধ না হয়। বিশাল চ্যালেঞ্জ এবং মৃত্যুঝুঁকি নিয়ে বন্দরকর্মী এবং বন্দর ব্যবহারকারীদের সম্মিলিত চেষ্টায় এই কাজটি করতে পেরেছি, এখনো করছি। এর নেপথ্যে ছিল কর্মীদের দেশপ্রেম। দিন-রাত নিরবচ্ছিন্ন কাজের সুফল এরই মধ্যে দেশের মানুষ পেয়েছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা