kalerkantho

বুধবার । ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ২৭  মে ২০২০। ৩ শাওয়াল ১৪৪১

প্রবেশ পথে ‘ডিসইনফেকশন চেম্বার’ বসালো কর্ণফুলী ইপিজেড

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২২ মে, ২০২০ ০৮:৩১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রবেশ পথে ‘ডিসইনফেকশন চেম্বার’ বসালো কর্ণফুলী ইপিজেড

করোনা সংক্রমণের ঝুঁকিপূর্ণ এলাকায় শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষা নিশ্চিত করতে স্থানীয় উদ্যোগে ডিসইনফেকশন চেম্বার বা করোনা জীবাণুনাশক বুথ বসিয়েছে কর্ণফুলী ইপিজেড কর্তৃপক্ষ। 

বুধবার থেকে ইপিজেডের প্রবেশ পথে মোট তিনটি এমন চেম্বার বসানো হয়েছে। ঈদের পরে এমন আরও ৫টি চেম্বার বসানো হবে বলে জানা গেছে।

এই তিনটি চেম্বার প্রতিস্থাপনে ব্যয় হয়েছে মাত্র ৩৫ হাজার টাকা। অর্থাৎ প্রতিটা ডিসইনফেকশন চেম্বার বসাতে খরচ হয়েছে মাত্র ১০ হাজার টাকার কিছু বেশি। যেখানে এমন একটি জীকানুনাশক বুথ বসাতে হাজার পঞ্চাশেক টাকা খরচ হয় সেখানে এত কম টাকায় কিভাবে সম্ভব হলো? 

এমন প্রশ্নের জবাবে কর্ণফুলী ইপিজেডের মহাব্যবস্থাপক মশিউদ্দিন বিন মেজবাহ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বাজার থেকে ম্যাটেরিয়েলস কালেকশন করে আমাদের প্রকৌশলীরাই দুইদিনের মধ্যে এমন একটি চমৎকার ও কার্যকর জীবানুনাশক বুথ বানাতে সক্ষম হয়েছে। এ কারণে খরচও হয়েছে খুবই কম।’

আপাতত শুধু ইপিজেডের প্রবেশ পথে জীবাণুনাশক বুথ বসানো হয়েছে। ঈদের পর ইপিজেডের পকেট গেইট, বহির্গমণ, বেপজা অফিস ও বেপজা মেডিক্যালের প্রবেশ পথেও এমন বুথ বসানো হবে।

ইতিমধ্যে কর্ণফুলী ইপিজেডে ১৪ জন পোশাক শ্রমিকের করোনার নমুনা পরীক্ষার ফলাফল পজিটিভ এসেছে। এমন বিস্তারের কারণ সম্পর্কে প্রশ্ন করা হলে কর্ণফুলী ইপিজেডের মহাব্যবস্থাপক বলেন, ‘এদের অধিকাংশই সামাজিক সংক্রমণের শিকার। মনে হয়না কর্ণফুলী ইপিজেডের ভিতর থেকে কেউ সংক্রমিত হয়েছে। তারপরেও শ্রমিকদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা ভেবে আমরা জীবানুনাশক বুথ বসিয়েছি। শ্রমিকরাও এতে খুশি। অন্তত: মানষিকভাবে তারা প্রশান্তি পাচ্ছেন যে জীবানুমুক্ত হয়ে তারা কর্মস্থলে প্রবেশ করছেন। আর স্বাস্থ্য ঝুঁকির কথা বিবেচনা করে বুথে আমরা কোন ব্লিচিং পাউডার ব্যবহার করছি না। সেভলন পানি দিয়েই শ্রমিকদের স্বয়ংক্রিয় স্প্রে প্রয়োগ করে জীবানুমুক্ত করা হচ্ছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা