kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৪ চৈত্র ১৪২৬। ৭ এপ্রিল ২০২০। ১২ শাবান ১৪৪১

এক বছরে বাড়ল ২৫ শতাংশ

শিল্প খাতে খেলাপি ঋণ ৫৪৪১৬ কোটি টাকা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০৮:৩৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শিল্প খাতে খেলাপি ঋণ ৫৪৪১৬ কোটি টাকা

ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর শিল্প খাতে বিতরণ করা ঋণের বড় অংশই খেলাপি হয়ে পড়েছে। গত বছরের সেপ্টেম্বর শেষে এ খাতে খেলাপি ঋণের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ৫৪ হাজার ৪১৬ কোটি টাকা। এটি আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় প্রায় ২৫ শতাংশ বেশি। এ সময়ে বড় শিল্পে খেলাপি ঋণ বেড়েছে প্রায় ৪১ শতাংশ। অর্থাৎ বড় উদ্যোক্তাদের মধ্যে ঋণ নিয়ে ফেরত না দেওয়ার প্রবণতা বেশি পরিলক্ষিত হচ্ছে। তবে মাঝারি ও ক্ষুদ্র উদ্যোক্তারা ঋণ নিয়ে ফেরত দিচ্ছেন বেশি। ফলে তাঁদের খেলাপি ঋণের হারও তুলনামূলক কম। বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদন পর্যালোচনায় এমন চিত্র পাওয়া গেছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনে দেখা যায়, ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর শেষে শিল্প খাতে মোট ঋণের স্থিতি দাঁড়িয়েছে পাঁচ লাখ ২৬ হাজার ৭৪ কোটি টাকা। এর মধ্যে খেলাপি হয়ে পড়েছে ৫৪ হাজার ৪১৬ কোটি টাকা। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর শেষে এ খাতে খেলাপি ঋণ ছিল ৪৩ হাজার ৬২০ কোটি টাকা। ফলে এক বছরের ব্যবধানে এ খাতে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ১০ হাজার ৯৭৫ কোটি টাকা বা ২৪.৭৫ শতাংশ। এ সময়ে বৃহৎ শিল্পে প্রায় ৪১ শতাংশ খেলাপি ঋণ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৫ হাজার ২৫ কোটি টাকা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ২৪ হাজার ৮৫৭ কোটি টাকা। মাঝারি শিল্পে খেলাপি ঋণ প্রায় সাড়ে ৫ শতাংশ কমে হয়েছে ১২ হাজার ৬২ কোটি টাকা, যা আগের বছরের একই সময়ে ছিল ৩৭ হাজার ৮৮৬ কোটি টাকা। আর ক্ষুদ্র শিল্পে সাড়ে ১২ শতাংশ খেলাপি ঋণ বেড়ে হয়েছে সাত হাজার ৩২৭ কোটি টাকা।

প্রতিবেদন অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর এই তিন মাসে শিল্প খাতে মোট ঋণ বিতরণ করা হয়েছে এক লাখ আট হাজার ৮৪৮ কোটি টাকা; যা গত অর্থবছরের একই সময়ের চেয়ে ১৫.২৮ শতাংশ বেশি। এ সময়ে বৃহৎ শিল্পে ঋণ বিতরণ হয়েছে ৮৯ হাজার ৪৯১ কোটি টাকা, যা গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ৭৭ হাজার কোটি টাকা। মাঝারি শিল্পে ঋণ বিতরণ হয়েছে ১০ হাজার ৭৭০ কোটি টাকা, যা গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ৯ হাজার ৭১২ কোটি টাকা। ক্ষুদ্র শিল্পে ঋণ বিতরণ হয়েছে আট হাজার ৫৮৬ কোটি টাকা, যা গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল সাত হাজার ৭০৬ কোটি টাকা।

প্রতিবেদনে আরো দেখা যায়, এ সময়ে শিল্পঋণ আদায় হয়েছে ৯৪ হাজার ৫৭৮ কোটি টাকা, যা গত অর্থবছরের চেয়ে ১৫.৬৩ শতাংশ বেশি। এ সময়ে বৃহৎ শিল্পে ১৬.৩৫ শতাংশ, মাঝারি শিল্পে ০.৮৫ শতাংশ ও ক্ষুদ্র শিল্পে ২৮ শতাংশ ঋণ আদায় হয়েছে। অন্যদিকে গত সেপ্টেম্বর প্রান্তিকে শিল্প খাতে মেয়াদোত্তীর্ণ ঋণের স্থিতি দাঁড়িয়েছে ৭৭ হাজার ৩৬৯ কোটি টাকা, যা গত অর্থবছরের একই সময়ে ছিল ৬৭ হাজার ৮৩৯ কোটি টাকা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা