kalerkantho

শনিবার । ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ৪ রজব জমাদিউস সানি ১৪৪১

বাণিজ্য মেলায় দেশি প্লাস্টিক পণ্যের দাপট

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৭ জানুয়ারি, ২০২০ ১৯:৪৯ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বাণিজ্য মেলায় দেশি প্লাস্টিক পণ্যের দাপট

প্রতি বছরের মত এবারের ২৫তম আর্ন্তজাতিক বাণিজ্য মেলাতেও রকমারি প্লাষ্টিক পণ্য পাওয়া যাচ্ছে। প্লাস্টিকের তৈরি পানি খাওয়ার প্লাস, চামচ, জগ, ঝুড়ি, খেলনা থেকে শুরু করে ডাইনিং টেবিল, চেয়ার, সোফা সেট, আলমিরা, শোবার খাটসহ ঘর গৃহস্থালীর নিত্য ব্যবহার্য প্রায় সব কিছুই পাওয়া যাচ্ছে। প্লাস্টিক পণ্যের ক্রেতাদের অধিকাংশই নারী। ঘর গৃহস্থালীর জন্য তারা এসব সংগ্রহ করছে।     

রাজধানীর আগারগাঁয়ে অনুষ্ঠিত এবারের মেলায় গুণগতমানের এসব প্লাষ্টিক পণ্যের দাম একই ডিজাইনের কাঠ, স্টিল, কাঁচ বা সিরামিকের পণ্যের চেয়ে কম। মেলায় আমদানিকৃত প্লাস্টিক পণ্যের চেয়ে দেশি প্রতিষ্ঠানে উৎপাদিত প্লাস্টিক পণ্যের চাহিদা বেশি। 

বাণিজ্য মেলা সরেজমিনে ঘুরে প্লাস্টিক পণ্যের বেচাকেনার এমন চিত্র দেখা যায়।    

প্লাস্টিক পণ্য উৎপাদনকারী দেশের অন্যতম প্রতিষ্ঠান প্রাণ আরএফ গ্রুপের সহকারী মহা ব্যবস্থাপনাক জিয়াউল হক কালের কণ্ঠকে বলেন, প্রতি বছরের মত এবারেও প্রাণআরএফএলের একাধিক স্টল নেয়া হয়েছে। ক্রেতার চাহিদা বিবেচনায় গত বছরের বাণিজ্য মেলার চেয়ে এবারে প্লাস্টিক পণ্যের স্টল বেশি নেয়া হয়েছে। প্রাণ আরএফএলের প্লাস্টিক পণ্যের ক্রেতাদের অধিকাংশ নারী। আমরা বিভিন্ন ছাড় দিয়ে ক্রেতা আর্কষণে চেষ্টা করছি। 

বাণিজ্য মেলাতে দেশি-বিদেশি সকল প্রতিষ্ঠানই প্লাস্টিক পণ্য বিক্রিতে বিভিন্ন ছাড় দিচ্ছে। অনেক প্রতিষ্ঠান ১০ থেকে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত মূল্য ছাড় দিচ্ছে। প্রাণ আলএফএল, বেঙ্গল গ্রুপ, হ্যামকোসহ বিভিন্ন নামিদামি প্রতিষ্ঠানও শুধু বাণিজ্য মেলার জন্য বিশেষ মূল্য ছাড়। অনেকে আবার এক সঙ্গে নূন্যতম দুই হাজার টাকার পণ্য কিনলে মোট মূল্যের শতকরা ১০ শতাংশ কম নিচ্ছে। প্লাস্টিক পণ্যের মূল্য দশ টাকা থেকে পাঁচ হাজার টাকা বা বেশি।  

প্রাণ আরএফএল এবারের বাণিজ্য মেলাতে প্রায় আড়াই হাজার ডিজাইনের পণ্য নিয়ে এসেছে।  পুরানো সব পণ্যের পাশাপাশি শুধু এবারের বাণিজ্য মেলার জন্য প্রাণ আরএফএল এনেছে সম্পূর্ণ নতুন ধরনের প্রায় পাঁচ শতাধিক পণ্য। এক সঙ্গে অনেক পণ্য কিনলে উপহার হিসাবেও এটা উটা দিচ্ছে। বাণিজ্য মেলা উপলক্ষে আরএফএল এবারে দুই থেকে আড়াই/তিন হাজার টাকায় স্বচ্ছ চেয়ার বিক্রি করছে। প্রতিষ্ঠানটির থালা, বাটি, গ্লাস, ভাতের ডিশ, তরকারির ডিশ গড়ে বিশ টাকা থেকে দুইশ /আড়াইশ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে। এসব পণ্য সকল শ্রেণির গৃহিনীদের কাছেই আকর্ষণীয়। বাণিজ্য মেলায় প্রাণ আরএফএলের প্যাভেলিয়ানে এসে পণ্য না কিনে ফিরছে এমন আগতদের সংখ্যা খুব কম। এবারে বাণিজ্য মেলাতে প্রাণআরএফ ক্রেতা টানতে বিশেষ কৌশল নিয়েছে। এছাড়া অনেক প্লাষ্টিক উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান পণ্য কিনলে লটারিতে বিদেশ যাওয়ার টিকেটও দিচ্ছে। শুধু প্রাণআরএফএল নয় দেশি অন্যান্য প্রতিষ্ঠানও বাণিজ্য মেলার জন্য বিশেষ ছাড় দিয়ে পণ্য বিক্রি করছে। এসব প্রতিষ্ঠানের বিক্রিও ভালো। 

আমদানিকৃত প্লাস্টিক পণ্য বিক্রিতেও ক্রেতা টানতে বিভিন্ন সুবিধা দেয়া হচ্ছে অনেক স্টল, প্যাভেলিয়ানে। অনেক প্রতিষ্ঠান এক সঙ্গে নূণ্যতম ১০/১২টি পণ্য কিনলে ক্রেতাকে মূল্য ছাড় দিচ্ছে। এক্ষেত্রে শুধু বাণিজ্য মেলার জন্য দশ হাজার টাকার পণ্য কিনলে সব্বোর্চ্চ এক হাজার টাকা কম নিচ্ছে কোন কোন প্রতিষ্ঠান। 

 মেলায় প্লাষ্টিকের থালা গ্লাস বালতি কেনার পর গৃহীণি মনিরা জামান কালের কণ্ঠকে বলেন, প্লাস্টিক পণ্যের দাম কম। টেকসই ও গুণগতমানের। দেখতেও সুন্দর। আমাদের মত মধ্যবিত্ত পরিবারের জন্য প্লাষ্টিক পণ্য প্রয়োজনীয় হয়ে উঠেছে। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা