kalerkantho

মঙ্গলবার । ২২ অক্টোবর ২০১৯। ৬ কাতির্ক ১৪২৬। ২২ সফর ১৪৪১            

‘ডাটা সেন্টার কনস্ট্রাকশন টিম অব দ্য ইয়ার’ অ্যাওয়ার্ড পেলো জেডটিই

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৯:৩২ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



‘ডাটা সেন্টার কনস্ট্রাকশন টিম অব দ্য ইয়ার’ অ্যাওয়ার্ড পেলো জেডটিই

বাংলাদেশের প্রথম টায়ার ফোর জাতীয় ডাটা সেন্টার নির্মাণে উল্লেখযোগ্য ভূমিকার জন্য সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত ডিসিডি (ডাটাসেন্টারডায়নামিকস) এশিয়া প্যাসিফিক অ্যাওয়ার্ডে ‘ডাটা সেন্টার কনস্ট্রাকশন টিম অব দ্য ইয়ার’ অ্যাওয়ার্ড জিতে নিয়েছে জেডটিই করপোরেশন। গাজীপুরের কালিয়াকৈরে হাইটেক পার্কে জাতীয় ডাটা সেন্টারটি স্থাপন করা হয়েছে। 

মোবাইল ইন্টারনেটে টেলিযোগাযোগ, এন্টারপ্রাইজ এবং কনজ্যুমার টেকনোলজি সেবাদাতা বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় প্রতিষ্ঠান জেডটিই করপোরেশন আজ এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানিয়েছে। 

আপটাইম টায়ার ফোর ডিজাইন ও ফ্যাসিলিটি সনদপ্রাপ্ত দেশের প্রথম জাতীয় ডাটা সেন্টার এটি। এছাড়াও, এ ডাটা সেন্টার দক্ষিণ এশিয়ার প্রথম ডাটা সেন্টার যা আপটাইম টায়ার ফোর ফ্যাসিলিটি সনদপ্রাপ্ত। এছাড়াও, এ ডাটা সেন্টার আপটাইম টায়ার ফোর কনস্ট্রাকশন সনদের সবগুলো পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে আপটাইম ইনস্টিটিউটের প্রশংসা কুড়িয়েছে। 

এ ডাটা সেন্টার নির্মাণকাজের সময় জেডটিই কনস্ট্রাকশন টিমকে অনেক প্রতিক‚লতার মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে যার মধ্যে ছিলো পরিবহনে অসুবিধা, অনিয়মিত পাওয়ার সাপ্লাই এবং খারাপ আবহাওয়া। এর মধ্যেও জেডটিই’র ডিজাইন সক্ষমতা, লিডিং প্রোডাক্ট পারফরমেন্স, সায়েন্টিফিক প্রজেক্ট ম্যানেজমেন্ট এবং রিলায়্যাবল ডেলিভারির কারণে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে প্রকল্পটি শেষ করা সম্ভব হয়েছে। 

২০০৬ সাল থেকে জেডটিই টানা চারবার ডিসিডি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে। এর মধ্যে ছিলো মডুলার ডেপ্লয়মেন্ট অ্যাওয়ার্ড। প্রতিষ্ঠানটি ২০১৬ সালে পেয়েছে ইন্টারনেট ডাটা সেন্টার অ্যাওয়ার্ড, ২০১৭- তে এক্সেলেন্স ইন ডাটা সেন্টার অপারেশনস অ্যাওয়ার্ড এবং ২০১৮ সালে ডিজাইন টিম অব দ্য ইয়ার অ্যাওয়ার্ড। এ অ্যাওয়ার্ডগুলোর মধ্য রয়েছে ডিজাইন থেকে শুরু করে ডাটা সেন্টার নির্মাণ, কার্যক্রম পরিচালনা ও রক্ষণাবেক্ষণ অর্থাৎ ডাটা সেন্টারের ফুল লাইফ সাইকেল যা ডাটা সেন্টার নির্মাণখাতে জেডটিই’র এন্ড-টু-এন্ড সক্ষমতার প্রমাণস্বরূপ। 

জেডটিই’র রয়েছে ১৫শ’র বেশি আরঅ্যান্ডডি প্রকৌশলী ও টেক্যনিক্যাল এক্সপার্ট। যাদের নিয়ে বিশ্বজুড়েই জেডটিই ২৬০টি’র বেশি প্রকল্প করেছে। যার মধ্যে রয়েছে ডাটা সেন্টার খাতে সর্বাধুনিক আপটাইম টায়ার ফোর ডাটা সেন্টারের ডিজাইন ও নির্মাণ। 

এ নিয়ে জেডটিই করপোরেশন বাংলাদেশ লিমিটেডের সিইও ভিনসেন্ট লিউ বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে আমাদের অংশীদার হওয়ার সুযোগ করে দেয়ার জন্য আমরা বাংলাদেশ সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞ। বাংলাদেশের প্রথম টায়ার ফোর ডাটা সেন্টার নির্মাণে আমাদের মানসম্পন্ন কাজের জন্য আমরা এ স্বীকৃতি পেয়েছি। এ জন্য আমরা গর্বিত। তবে, সরকারের সহায়তা ছাড়া আমরা এটা করতে পারতাম না। তাই, আমি তাদের আবারও ধন্যবাদ জানাতে চাই।’ 

জেডটিই : জেডটিই গ্রাহক, ক্যারিয়ার, প্রতিষ্ঠান ও সরকারি প্রতিষ্ঠানে টেলিযোগাযোগ ব্যবস্থা, মোবাইল ডিভাইস এবং এন্টারপ্রাইজ প্রযুক্তি সংশ্লিষ্ট সেবাদান করে। জেডটিই’র ব্যবসায়িক কৌশল অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানটি সমন্বিত এন্ড-টু-এন্ড উদ্ভাবন নিয়ে এর গ্রাহকদের সর্বোচ্চ মানসম্পন্ন সেবাদানে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। বিশ্বের ১৬০টি’রও বেশি দেশে জেডটিই’র পণ্য বা সেবা রয়েছে। এখন পর্যন্ত ইউরোপ, এশিয়া প্যাসিফিক, মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকাতে ১৫টি ফাইভ জি কমার্শিয়াল কন্ট্রাক্ট নিয়ে কাজ করেছে জেডটিই। প্রতিষ্ঠানটি এর বার্ষিক আয়ের ১০ শতাংশ গবেষণা ও উন্নয়নে ব্যয় করে। জেডটিই করপোরেট সামাজিক দায়িত্বের প্রতি প্রতিশ্রুতিবদ্ধ এবং জাতিসংঘের গ্লোবাল কমপ্যাক্টের সদস্য। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা