kalerkantho

শনিবার । ২৫ জানুয়ারি ২০২০। ১১ মাঘ ১৪২৬। ২৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

দারাজ নন্দিনীর বিশেষ আয়োজন 'অনলাইন গরুর হাট'

অ্যাকশনএইড এর সহায়তায় ৮৭টি অর্গানিক গরুর সমারোহে সাজানো হয়েছে বিশেষ এই হাট

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

৩১ জুলাই, ২০১৯ ১৩:২৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দারাজ নন্দিনীর বিশেষ আয়োজন 'অনলাইন গরুর হাট'

দেশের সবচেয়ে বড় অনলাইন মার্কেটপ্লেস দারাজ বাংলাদেশ (http://Daraz.com.bd) পবিত্র ঈদ-উল-আযহা উপলক্ষে দ্বিতীয়বারের মত আয়োজন করেছে 'অনলাইন গরুর হাট'। এই হাটের বিশেষত্ব হলো- প্রতিটি গরু শতভাগ অর্গানিক এবং গরুগুলো লালন-পালন করেছে গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জের নারী উদ্যোক্তারা। দারাজ নন্দিনীর উদ্যোগে অ্যাকশনএইড'র সহায়তায় গরুগুলো ঢাকায় নিয়ে আসা হচ্ছে প্রত্যন্ত গাইবান্ধা থেকে। ক্রেতারা খুব সহজেই কোরবানির পশুর সকল বিস্তারিত বিষয় জেনে ও ভিডিও দেখে দারাজ অ্যাপে কোরবানির গরু অর্ডার করতে পারবেন। ৮৭ টি গরুর সমারোহে সাজানো এই হাটে রয়েছে ৪২,০৮০ টাকা থেকে শুরু করে সর্বোচ্চ ১,৫৯,৫০০ টাকার গরু। সাশ্রয়ী মূল্যের পাশাপাশি ক্রেতাদের জন্য রয়েছে ডিসকাউন্ট ভাউচার এবং ব্যাংক কার্ডে অতিরিক্ত মূল্যছাড়। 

দেশীয় ও ক্রস ব্রিডের এই গরুগুলো অ্যাকশনএইড'র এমএমডাব্লুডাব্লু প্রকল্পের তদারকিতে সম্পূর্ণ প্রাকৃতিক উপায়ে লালন-পালন করেছেন সুন্দরগঞ্জের নারী উদ্যোক্তা খামারিরা। কোনো রকম ক্ষতিকারক হরমোন বা স্টেরয়েড ব্যবহার ছাড়াই এদের প্রাকৃতিক ও ঘরে প্রস্তুতকৃত খাবার, যেমন- সবুজ ঘাস, খড়, ভূষি, কাউ ফিড ইত্যাদি দিয়ে লালন পালন করা হয়েছে। দারাজে গরু অর্ডার করার শেষ তারিখ ৫ আগস্ট। আর গরুগুলো ডেলিভারি শুরু হয়ে যাবে ৯ তারিখ থেকে। 

এই উপলক্ষে অ্যাকশনএইড'র মার্কেট ডেভলপমেন্ট এর ডেপুটি ম্যানেজার মোহাম্মাদ খায়রুজ্জামান বলেন, গ্রামীণ মহিলা উদ্যোক্তাদের দ্বারা গরুগুলো লালিত হয়েছে এবং প্রোজেক্ট স্টাফ এর নিবিড় পর্যবেক্ষণের মাধ্যমে এই গরুগুলোর নিরাপদ খাদ্য ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে। আমাদের রেকর্ড অনুসারে গরু লালন পালনে কোনো রকম ক্ষতিকারক উপাদান ব্যবহার করা হয়নি।  

দারাজ নন্দিনীর প্রজেক্ট লিড সায়ন্তনী ত্বিষা বলেন, দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে নারী উদ্যোক্তাদের উৎপাদনকৃত পণ্য ও লাইভ স্টক পুরো দেশের ক্রেতাদের মাঝে পৌছে দেয়া নন্দিনীর অন্যতম উদ্দেশ্য। এর অংশ হিসেবেই এবারের এই বিশেষ অনলাইন গরুর হাটের আয়োজন করা হয়েছে। যদিও এবার শুধুমাত্র ঢাকাবাসীরা এর সুবিধাভোগী হবেন। কিন্তু এর সাফল্যের ওপর নির্ভর করে পরবর্তী বছরগুলোতে পুরো দেশের মানুষের কাছে অনলাইন গরুর হাট পৌঁছে দেয়ার ইচ্ছা আছে।   

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা