kalerkantho

বুধবার । ১৭ জুলাই ২০১৯। ২ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৩ জিলকদ ১৪৪০

বাজেট পাসের দিনই সব পর্যায়ের গ্যাসের দাম বাড়ল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১ জুলাই, ২০১৯ ০৮:৩৩ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



বাজেট পাসের দিনই সব পর্যায়ের গ্যাসের দাম বাড়ল

জাতীয় বাজেট পাসের দিনই সব পর্যায়ের গ্যাসের দাম বাড়িয়েছে সরকার; যা আজ ১ জুলাই থেকে কার্যকর হচ্ছে। নতুন দাম অনুযায়ী, গৃহস্থালি গ্রাহকদের এক চুলার (বার্নার) জন্য মাসে ৯২৫ টাকা এবং দুই চুলার জন্য ৯৭৫ টাকা দিতে হবে। এত দিন এক চুলা ৭৫০ টাকা এবং দুই চুলার জন্য ৮০০ টাকা ছিল।

গৃহস্থালিতে মিটারে যারা গ্যাসের বিল দেন, তাদের এখন প্রতি ঘনমিটার গ্যাস ব্যবহারের জন্য ১২ টাকা ৬০ পয়সা করে দিতে হবে। এত দিন প্রতি ঘনমিটারে তাদের ৯ টাকা ১০ পয়সা করে দিতে হতো।

গতকাল রবিবার বিকেলে বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে কমিশন এ ঘোষণা দেয়। সংবাদ সম্মেলনে কমিশনের চেয়ারম্যান মনোয়ার ইসলাম, সদস্য মিজানুর রহমান ও রহমান মোর্শেদ উপস্থিত ছিলেন। পরে বিইআরসির আদেশক্রমে সচিব মো. রফিকুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি হয়।

যানবাহনে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহৃত রূপান্তরিত প্রাকৃতিক গ্যাসের (সিএনজি) দাম প্রতি ঘনমিটার ৩৮ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৪৩ টাকা করা হয়েছে। একই সঙ্গে বিদ্যুৎ উৎপাদন, সার, শিল্প, চা-বাগান ও বাণিজ্যিক খাতেও গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়েছে।

প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী, বিদ্যুৎ উৎপাদনে ব্যবহৃত প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম চার টাকা ৪৫ পয়সা, ক্যাপটিভ পাওয়ারে ১৩ টাকা ৮৫ পয়সা, সার কারখানায় চার টাকা ৪৫ পয়সা এবং শিল্প কারখানা ও চা-বাগানে ১০ টাকা ৭০ পয়সা করা হয়েছে। বাণিজ্যিক খাতে হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্টে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম ২৩ টাকা এবং ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পে ১৭ টাকা ৪ পয়সা নির্ধারণ করা হয়েছে।

বিইআরসি জানায়, ভোক্তা পর্যায়ে প্রতি ঘনমিটার গ্যাসের দাম সাত টাকা ৩৮ পয়সা থেকে বাড়িয়ে ৯ টাকা ৮০ পয়সা নির্ধারণ করা হয়েছে। গড়ে দাম বেড়েছে ৩২.৮ শতাংশ। বিদ্যমান ন্যূনতম চার্জ প্রত্যাহার করা হয়েছে। গৃহস্থালি ব্যতীত অন্যান্য গ্রাহক শ্রেণির ক্ষেত্রে প্রতি ঘনমিটার মাসিক অনুমোদিত লোডের বিপরীতে ০.১০ টাকা হারে ডিমান্ড চার্জ আরোপ করা হয়েছে।

এর আগে সর্বশেষ ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে গ্যাসের দাম গড়ে ২২.৭০ শতাংশ বাড়ানো হয়। ওই বছরের মার্চ ও জুলাই মাসে দুই দফায় এই নতুন মূল্য কার্যকর করার কথা ছিল। মার্চ মাসের নতুন মূল্য কার্যকর হলেও হাইকোর্টের আদেশে জুলাই মাসের মূল্যবৃদ্ধি স্থগিত হয়েছিল।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা