kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৮ জুলাই ২০১৯। ৩ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৪ জিলকদ ১৪৪০

বার্ষিক বিক্রি অর্ধকোটি টাকা হলে তবেই ভ্যাট

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৩ জুন, ২০১৯ ২০:৪৫ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বার্ষিক বিক্রি অর্ধকোটি টাকা হলে তবেই ভ্যাট

আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে বলা হয়েছে, ব্যবসায়ীদের বার্ষিক অর্ধকোটি টাকার বেশি টার্নওভার হলে ভ্যাট দিতে হবে। ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক ব্যবসায়ীদের মূল্য সংযোজন করের (ভ্যাট) আওতার বাইরে রাখতে ৫০ লাখের নিচে টার্নওভার থাকলে তাঁদের কর অব্যাহতি দেওয়ার প্রস্তাব করেছেন অর্থমন্ত্রী মুস্তফা কামাল।

আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে ২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেট প্রস্তাবনা সংসদে উত্থাপন করা হয়।

সংসদে মূল্য সংযোজন কর বিষয়ে জানানো হয়, অধিকতর যুগোপযোগী ও ব্যবসায়-বান্ধব করার লক্ষ্যে নতুন আইনে কিছু সংস্কার ও সহজীকরণের প্রস্তাব করেন তিনি, যেগুলোর মধ্যে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক ব্যবসায়ীদের জন্য টার্নওভার ৫০ লাখ টাকা পর্যন্ত মুসক অব্যাহতি রয়েছে।

এছাড়া ক্ষুদ্র ও মাঝারি খাতকে উৎসাহ দিতে ৫০ লাখ টাকা থেকে ৩ কোটি টাকা পর্যন্ত বার্ষিক টার্নওভারের ক্ষেত্রে ৪ শতাংশ হারে কর দেওয়ার সুযোগ, মূসক নিবন্ধন সীমা ৮০ লাখ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩ কোটি টাকা করা, ১৫ শতাংশ মূসকের পাশাপাশি নির্দিষ্ট পণ্য ও সেবার ক্ষেত্রে ৫ শতাংশ, সাড়ে ৭ শতাংশ ও ১০ শতাংশ মূসক আরোপ, স্থানীয় ব্যবসায়ী পর্যায়ে করভার কমানোর জন্য মূসক হার ৫ শতাংশ নির্ধারণ, ওষুধ ও পেট্রোলিয়ামজাত পণ্যের ক্ষেত্রে বর্তমানের মতো স্থানীয় ব্যবসায়ী পর্যায়ে মূসকের হার যথাক্রমে ২ দশমিক ৪ শতাংশ এবং ২ শতাংশ অব্যাহত রাখা।

এছাড়া পণ্য ও সেবার সরবরাহের ক্ষেত্রে চালানের তথ্য ধারণের জন্য দোকান ও ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে ইলেকট্রনিক ফিসক্যাল ডিভাইস (ইএফডি) এবং সেলস ডেটা কন্ট্রোলার (এসডিসি) স্থাপন বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। সরকার ইএফডি মেশিন ক্রয়ের কার্যক্রম হাতে নিয়েছে।

পাশাপাশি বাজেট প্রস্তাবে সংশোধিত আইনে পণ্য সরবরাহের আগে বিদ্যমান মূল্য ঘোষণা পদ্ধতি বাতিল করে বিনিময় বা ন্যায্য বাজার মূল্যের ভিত্তিতে কর পরিশোধের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা