kalerkantho

শনিবার  । ১৯ অক্টোবর ২০১৯। ৩ কাতির্ক ১৪২৬। ১৯ সফর ১৪৪১                     

পুঁজিবাজারে ধারাবাহিক দরপতন

রাস্তায় নামলো বিনিয়োগকারীরা

♦ প্রতিদিনই শেয়ার বিক্রির চাপে সূচক ও লেনদেন কমছে ♦ পুঁজিবাজারে স্থিতিশীলতা ফেরানোর দাবিতে বিক্ষোভ

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২০ মার্চ, ২০১৯ ১১:৪৮ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



রাস্তায় নামলো বিনিয়োগকারীরা

শেয়ার বিক্রির চাপে ক্রমাগত নিম্নমুখী পুঁজিবাজার। প্রতিদিনই শেয়ার বিক্রির চাপে সূচক ও লেনদেন কমছে। ধারাবাহিক দরপতনে বিক্ষোভ করেছে বিনিয়োগকারীরা। বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদের ব্যানারে দ্বিতীয় দিনের মতো গতকাল মঙ্গলবারও মতিঝিলে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের সামনে বিক্ষোভ করেছে সংগঠনটি।

মঙ্গলবার ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৪৩৭ কোটি ৮০ লাখ টাকা। আর সূচক বেড়েছে ২৬ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ৪৭৬ কোটি ৬৭ লাখ টাকা আর সূচক কমেছিল প্রায় ৫১ পয়েন্ট। সেই হিসাবে আগের দিনের চেয়ে সূচক বাড়লেও কমেছে লেনদেন।

বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, লেনদেন শুরুর পর শেয়ার কেনার চাপ থাকলে সূচক বৃদ্ধি পায় আবার পরে বিক্রি বাড়লে সূচক কমে। কিন্তু দুপুর ১২টার পর শেয়ার কেনার চাপ বাড়লে সূচক ঊর্ধ্বমুখী হয়। এতে দিন শেষে সূচকের উত্থানের মধ্য দিয়ে দিনের লেনদেন শেষ হয়েছে। দিন শেষে সূচক দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৬৩১ পয়েন্ট। ডিএস-৩০ মূল্যসূচক ৩ পয়েন্ট কমে ২ হাজার ১৪ পয়েন্ট ও ডিএসইএস শরিয়াহ সূচক ১০ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ২৯২ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। লেনদেন হওয়া ৩৪৬ কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ২৩৩টির, কমেছে ৮১টির আর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ৩২ কম্পানির শেয়ারের।

লেনদেনের ভিত্তিতে শীর্ষে রয়েছে ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো। কম্পানিটির লেনদেন হয়েছে ২৯ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ইউনাইটেড পাওয়ারের লেনদেন হয়েছে ২৫ কোটি ৯ লাখ টাকা। আর তৃতীয় স্থানে থাকা ব্র্যাক ব্যাংকের লেনদেন হয়েছে ২১ কোটি ৪৮ লাখ টাকা। অন্যান্য শীর্ষ কম্পানি হচ্ছে ডাচ্-বাংলা ব্যাংক, মুন্নু সিরামিকস, স্কয়ার ফার্মা, মেরিকো বাংলাদেশ, প্রিমিয়ার ব্যাংক ও রেকিট বেনকাইজার।

দাম বৃদ্ধির শীর্ষে রয়েছে বিডি ফাইন্যান্স, বাংলাদেশ ন্যাশনাল ইনস্যুরেন্স, অ্যাপোলো ইস্পাত, মতিন স্পিনিং, ফেডারেল ইনস্যুরেন্স, তাকাফুল ইনস্যুরেন্স, ন্যাশনাল হাউজিং, স্ট্যান্ডার্ড ইনস্যুরেন্স, গ্লোবাল ইনস্যুরেন্স ও বিডি অটোকারস। অন্যদিকে দাম কমার শীর্ষে রয়েছে বিচ হ্যাচারি, ইউনাইটেড ইনস্যুরেন্স, গ্ল্যাস্কো স্মিথক্লাইন, ইউনাইটেড ফাইন্যান্স, বাটা শু, গ্রিনডেল্টা ইনস্যুরেন্স, সিএপিএম আইবিবিএল মিউচ্যুয়াল ফান্ড, অ্যাকমি ল্যাব, এক্সিম ব্যাংক ফার্স্ট মিউচ্যুয়াল ফান্ড ও ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো।

অন্য বাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জেও (সিএসই) সূচক বাড়লেও কমেছে লেনদেন। মঙ্গলবার সিএসইতে লেনদেন হয়েছে ১২ কোটি ৪৫ লাখ টাকা আর সুচক বেড়েছে ৪০ পয়েন্ট। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ১৭ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। লেনদেন হওয়া ২৩৪ কম্পানির মধ্যে দাম বেড়েছে ১৩৬টির, কমেছে ৬৪টির আর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে ৩৪ কম্পানির শেয়ারের।

পুঁজিবাজারে অব্যাহত পতনে দ্বিতীয় দিনের মতো ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সামনে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ পুঁজিবাজার বিনিয়োগকারী ঐক্য পরিষদ। এতে পুঁজিবাজারে স্থিতিশীলতা আনার পাশাপাশি আরো কয়েকটি দাবি তুলে ধরে বিনিয়োগকারীরা। দাবির মধ্যে রয়েছে ইব্রাহিম খালেদের তদন্ত প্রতিবেদন অনুযায়ী দোষীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা, জেড ক্যাটাগরি ও ওটিসি মার্কেটের বিষয়ে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ এবং ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ প্রদানে বাধ্য করা।

সংগঠনটির সভাপতি মিজান-উর-রশিদ চৌধুরী বলেন, শেয়ারবাজারে পতন হওয়ার মতো কিছু না ঘটলেও পাতানো খেলার মাধ্যমে বাজারে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করা হচ্ছে। এ ক্ষেত্রে বড় বড় রাঘব বোয়ালরা জড়িত, যাদের নাম ইব্রাহিম খালেদের তদন্তে উঠে এসেছিল কিন্তু কার্যকর কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। ক্রমাগত নিম্নমুখী অবস্থার উত্তরণ এবং বাজারে স্থিতিশীলতা আনতে কার্যকর উদ্যোগ নেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা