kalerkantho

মঙ্গলবার। ২০ আগস্ট ২০১৯। ৫ ভাদ্র ১৪২৬। ১৮ জিলহজ ১৪৪০

প্যাসিফিক ডেনিমসের সব পরিচালককে জরিমানা

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১২ ডিসেম্বর, ২০১৮ ১০:৩২ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্যাসিফিক ডেনিমসের সব পরিচালককে জরিমানা

অবৈধ লেনদেন, ঋণ পরিশোধে অনিয়ম এবং কমিশনে মিথ্যা তথ্য দেওয়ায় পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত প্যাসিফিক ডেনিমসের ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ সব পরিচালককে (স্বতন্ত্র পরিচালক বাদে) তিন লাখ টাকা করে জরিমানার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

একই সঙ্গে ব্যবস্থাপনা পরিচালককে অবৈধভাবে লেনদেন করা অর্থ কম্পানিতে আগামী ৩১ জানুয়ারির মধ্যে ফেরত দিতে নির্দেশ দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। গত মঙ্গলবার বিএসইসির চেয়ারম্যান ড. এম খায়রুল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ৬৬৮তম কমিশন সভায় এ সিদ্ধান্ত হয়।

প্যাসিফিক ডেনিমসের প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) তহবিল ব্যবহার পরীক্ষার জন্য মেসার্স ম্যাবস অ্যান্ড জে পার্টনার্স চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্টকে বিশেষ নিরীক্ষক নিয়োগ করে বিএসইসি।

নিরীক্ষক প্রতিষ্ঠানের নিরীক্ষা প্রতিবেদনে উঠে আসে—‘প্যাসিফিক ডেনিমস প্রাথমিক গণপ্রস্তাবসংক্রান্ত প্রসপেক্টাসে ব্যাংকঋণ পরিশোধের যে সময়সূচি ছিল, সে অনুযায়ী ঋণ পরিশোধ করেনি। পাশাপাশি কম্পানি তাদের খরচ নির্বাহ করার ক্ষেত্রে ৫৯ লাখ ১১ হাজার ৭৫৯ টাকা সম্মতিপত্রের শর্ত ভঙ্গ করে নগদে খরচ করে।’

এর মাধ্যমে কম্পানিটি ২০১৬ সালের ১০ নভেম্বর বিএসইসির দেওয়া সম্মতিপত্রের পার্ট সির ২, ৫ ও ৬ প্যারা ভঙ্গ করেছে। এ ছাড়া প্যাসিফিক ডেনিমস নিরীক্ষাকাজে কমিশনের নিযুক্ত বিশেষ নিরীক্ষককে সহায়তা করেনি বলেও বিএসইসি অভিযোগ তুলেছে।

বিএসইসি বলছে, নিরীক্ষা প্রতিবেদন অনুযায়ী কম্পানিটি প্রাথমিক গণপ্রস্তাব থেকে উত্তোলন করা তহবিলের ২০ কোটি ৯৮ লাখ ছয় হাজার ৬২৫ টাকা অপব্যবহার করেছে এবং কমিশনে মিথ্যা তথ্য দিয়েছে। এর মাধ্যমে তারা সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ অর্ডিন্যান্স ১৯৬৯-এর সেকশন ১৮ ভঙ্গ করেছে। এসব আইন লঙ্ঘনের কারণে প্যাসিফিক ডেনিমসের ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ সব পরিচালককে তিন লাখ টাকা করে জরিমানার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে স্বতন্ত্র পরিচালককে জরিমানা দিতে হবে না। এ ছাড়া একই রসিদে একাধিকবার টাকা পরিশোধের মাধ্যমে বিপুল অর্থ অবৈধ লেনদেন করা হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছে বিএসইসি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা