kalerkantho


বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ছেই

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

২০ মে, ২০১৮ ১২:৩২



বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ছেই

ছবি অনলাইন

গত মঙ্গলবার বিশ্ববাজারে তেলের দাম বেড়ে সাড়ে তিন বছরে সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছায়। তবে এ বছর বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের চাহিদা কিছুটা কমবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছে আন্তর্জাতিক জ্বালানি সংস্থা (আইইএ)। তেলের দাম বেড়ে যাওয়ায় অনেক দেশ আমদানি কমাতে পারে বলে মনে করে সংস্থা।

প্রতিবেদনে বলা হয়, গত বছর বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম বেড়েছে ৫১ শতাংশ। এ বছরও বৃদ্ধি অব্যাহত রয়েছে। দাম এরই মধ্যে ৮০ ডলারের কাছাকাছি এসেছে। দাম বাড়ায় উদীয়মান আমদানিকারক দেশগুলো ভোক্তা পর্যায়ে ভর্তুকি দিতে আর উত্সাহিত হবে না। কারণ অনেক দেশই দাম কমার সুবিধায় এরই মধ্যে ভর্তুকি কমিয়েছে। ফলে তেলের চাহিদা যদি আগের মতো থাকে তবে তা কিছুটা অস্বাভাবিক হবে।

প্যারিসভিত্তিক সংস্থাটি জানায়, এ বছর জ্বালানি তেলের চাহিদা থাকবে দৈনিক ১.৪ মিলিয়ন ব্যারেল, যা আগের পূর্বাভাসে ছিল ১.৫ মিলিয়ন ব্যারেল। সৌদি আরব ও ইরাকের পর ওপেকের তৃতীয় বৃহৎ তেল সরবরাহকারী দেশ ইরান। দেশটি বর্তমানে দৈনিক প্রায় ৩.৮ মিলিয়ন ব্যারেল তেল উত্পাদন করে। আগে যখন দেশটির ওপর নিষেধাজ্ঞা ছিল তখন উত্পাদন কমেছিল দৈনিক ১০ লাখ ব্যারেলের বেশি। ফলে নতুন করে নিষেধাজ্ঞা আরোপ হলে ইরানের উত্পাদন কমবে, যা তেলের দাম বাড়াবে।

সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ইরানের সঙ্গে করা পরমাণু চুক্তি থেকে নিজেদের প্রত্যাহার করে নিয়েছেন এবং ইরানের ওপর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দিয়েছেন। এ ছাড়া বিশ্ববাজারে তেলের দাম বাড়াতে সৌদি আরবসহ রপ্তানিকারক দেশগুলোর সংগঠন ওপেক এবং রাশিয়া তেল উত্পাদন কমানোর চুক্তি করে। সেই চুক্তির আলোকে সরবরাহ কমায় এখন দাম বাড়ছে।

গত বুধবার বিশ্ববাজারে ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েট জ্বালানি তেলের দাম ৩০ সেন্ট কমে হয় ব্যারেলপ্রতি ৭১.০১ ডলার। ব্রেন্ট তেলের দাম ২৭ সেন্ট কমে হয় ৭৮.১৬ ডলার। আগের দিন মঙ্গলবার বিশ্ববাজারে তেলের দাম বেড়ে সাড়ে তিন বছরে সর্বোচ্চ হয়।

রিভকিন সিকিউরিটিজের বিনিয়োগ বিশ্লেষক উইলিয়াম ওলাগলিন বলেন, বর্তমানে তেলের দাম বাড়ার পেছনে অন্যতম প্রধান কারণ উত্পাদন নিয়ন্ত্রণে সৌদি আরবসহ ওপেক দেশগুলোর প্রতিশ্রুতি। এ ছাড়া নিষেধাজ্ঞার কারণে ইরানের তেল রপ্তানি কমবে এ আশঙ্কাও কাজ করছে।



মন্তব্য