kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৩ মে ২০১৯। ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৭ রমজান ১৪৪০

নান্দাইল রোড বাজার

হাঁটু সমান কাদায় ডুবে রাস্তা

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ   

৭ জুন, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হাঁটু সমান কাদায় ডুবে রাস্তা

ময়মনসিংহের নান্দাইল রোড বাজারের প্রবেশপথ এটি। তিন বছর সড়কটি বেহাল। গতকাল তোলা ছবি।ছবি : কালের কণ্ঠ

‘প্রতি মাসে লাখ লাখ টেহা উঠে বাজার থাইক্যা। কিন্তু বাজারে ঢুহনের (প্রবেশ) রাস্তাডায় বেশ কয়েক বছর ধইর্যা বড় বড় গাতা (গর্ত)। আইট্ট্যাও (হেঁটে) যাঅন যায় না। আর অহন তো বাইষ্যা (বর্ষা) মাস। কী যে অইবো! এই অবস্থা তিন বছর ধইর্যা। কারও চোহে পড়ে না! এর লাইগ্যা দূর-দূরান্ত থেকে মহাজনরা আসে না মালামাল কিনতে।’

ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার চণ্ডীপাশা ইউনিয়নের নান্দাইল রোড বাজারের প্রবেশপথ নিয়ে এভাবে ক্ষোভের সঙ্গে কথাগুলো বলেন ধান-চালের পাইকারি ব্যবসায়ী হাবিবুর রহমান।

গতকাল বুধবার সকালে গিয়ে দেখা যায়, নান্দাইল রোড বাজারের প্রবেশপথে সড়কের প্রায় ৩০০ মিটার অংশ হাঁটু সমান কাদায় ডুবে আছে। সড়কের পাশে অবস্থিত হাবিবুর রহমানের দোকানটি। তিনি বলেন, ‘খুব পেরেশানির মধ্যে আছি, ভাই।’

আরেক ব্যবসায়ী মো. মোস্তফা বলেন, ‘সড়ক বেহালের কারণে বর্ষায় আমাদের ব্যবসা প্রায় বন্ধ থাকে।’ তিনি বলেন, মূল সড়কে গাড়ি দাঁড় করিয়ে ধান-চালের বস্তা শ্রমিক দিয়ে ঘরে আনতে হয়। এতে প্রতি বস্তায় শ্রমিক খরচ দিতে হয় ২০ টাকা। অথচ ঘরের সামনে গাড়ি দাঁড় করাতে পারলে এ খরচ হয় পাঁচ টাকা।

নান্দাইল রোড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আমিনুল ইসলাম আঞ্জু বলেন, ‘এই পথ দিয়ে আমার বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা নিরাপদে আসতে পারত। এখন সড়কের বেহালে তাদের ব্যস্ত সড়ক দিয়ে বিদ্যালয়ে আসতে হচ্ছে।’

নান্দাইল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল মালেক চৌধুরী বলেন, ‘যাদের হাতে রাস্তা নির্মাণ ও সংস্কার করার মতো ক্ষমতা আছে তাঁদের কাছে দুর্ভোগের বিষয়টি তুলে ধরেছি। কিন্তু তাঁরা কোনো পাত্তা দিচ্ছেন না। তাই সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের সুফল নান্দাইল রোড বাজারের ব্যবসায়ী, আশপাশের বাসিন্দা ও পথচারীরা ভোগ করতে পারছেন না। আমার যতখানি ক্ষমতা আছে তা দিয়ে সড়কটি সংস্কারের চেষ্টা করব।’

চণ্ডীপাশা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এমদাদুল হক ভূঁইয়া বলেন, বাজারের যে আয় হয় তার ১৫ শতাংশ দিয়ে সড়কটির উন্নয়ন করা যেতে পারে। কিন্তু ইউএনও উদ্যোগ নিচ্ছেন না।

মন্তব্য