kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২০ জুন ২০১৯। ৬ আষাঢ় ১৪২৬। ১৬ শাওয়াল ১৪৪০

নান্দাইলে মাদক কারবারে বাধা

মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের ওপর হামলা

আঞ্চলিক প্রতিনিধি, ময়মনসিংহ   

৩১ মে, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ময়মনসিংহের নান্দাইলে মাদক কারবারে বাধা দেওয়ার জেরে প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল কাদেরের পরিবারের ওপর হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে তিনজন আহত হয়। দুর্বৃত্তরা মুক্তিযোদ্ধার কবরের টাইলস ক্ষতিগ্রস্ত করে বলে অভিযোগ। পাশাপাশি কবর নিশ্চিহ্ন করে দেওয়ার হুমকি দেয়। ঘটনাটি ঘটেছে গত মঙ্গলবার রাতে ফরিদাকান্দা গ্রামে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ফরিদাকান্দার জালাল উদ্দিনের ছেলে জহুিরুল ইসলাম ও তাজুল ইসলাম চিহ্নিত মাদক কারবারি। তাঁদের এই কাজে বাধাসহ প্রতিবাদ করেন একই গ্রামের প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা কাদেরের ছেলেরা। এতে ক্ষিপ্ত হয় মাদক কারবারিরা। মঙ্গলবার বিকেলে জালাল তাঁদের (কাদের) পারিবারিক কবরস্থানের জায়গায় জোর করে ঘর তোলে। এতে বাধা দিলে জালালের লোকজন লাঠিসোঁটা নিয়ে প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা কাদেরের পরিবারের ওপর হামলা চালায়। এতে কাদেরের দুই ভাই আব্দুর রশিদ ও আব্দুল হাফিজ এবং এক ছেলে রফিকুল ইসলাম গুরুতর আহত হন। পরে জালালসহ তাঁর ছেলেরা শাবল দিয়ে মুক্তিযোদ্ধা কাদেরের কবরের টাইলস ক্ষতিগ্রস্ত করে। পাশাপাশি কবর নিশ্চিহ্ন করে দেওয়ার হুমকি দেয়।

বাড়িতে না থাকায় অভিযুক্ত জালাল ও তাঁর ছেলেদের বক্তব্য নেওয়া যায়নি। তবে জালালের স্ত্রী ফাতেমা আক্তার দাবি করেন, কবর ভাঙচুরের কোনো ঘটনা তাঁদের পরিবারের কেউ ঘটায়নি। তাঁর স্বামী ও ছেলেদের ওপর প্রতিপক্ষরা হামলা করলে আত্মরক্ষার সময় সেখানে ধস্তাধস্তিতে টাইলস ভাঙতে পারে।

নান্দাইল মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার হাজী গাজী আব্দুস সালাম ভূইয়া (বীরপ্রতীক) ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কমিটির সদস্য মো. শাহ আলম জানান, ঘটনাটি নিন্দনীয়। এর সঙ্গে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেপ্তারের জোর দাবি জানিয়েছেন তাঁরা।

মুশলী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সদস্য মো. বাবলু মিয়াসহ গ্রামের কয়েকজন জানায়, হামলাকারী জালালের ছেলেরা এলাকায় সন্ত্রাসী কার্যকলাপ, মাদক ও মোটরসাইকেল চোরাকারবারির সঙ্গে জড়িত।

এ বিষয়ে নান্দাইল থানার ওসি কামরুল ইসলাম মিয়া জানান, ঘটনাটি খুবই ন্যক্কারজনক। পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া ছাড়াও অভিযুক্তদের গ্রেপ্তার করা হবে।

 

মন্তব্য