kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৪ চৈত্র ১৪২৬। ৭ এপ্রিল ২০২০। ১২ শাবান ১৪৪১

প্রাণের মেলা

গল্পের মায়াবী জগৎ

আজিজুল পারভেজ   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১০:০৪ | পড়া যাবে ৬ মিনিটে



গল্পের মায়াবী জগৎ

বাংলা সাহিত্যে গল্পের যে মায়াবী জগৎ তৈরি হয়েছে তার ছোঁয়া পাওয়া যায় অমর একুশে গ্রন্থমেলায়। রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়, বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়, মানিক বন্দ্যোপাধ্যায় থেকে শুরু করে সমসাময়িক তরুণতম কথাশিল্পীর গল্পের বইও প্রকাশিত হচ্ছে বইমেলায়। নতুন বইয়ের তালিকায় এঁদের নাম পাওয়া যাচ্ছে প্রতিদিন। বাংলা সাহিত্যের ধ্রুপদি লেখকদের বইয়ের ১০০ বছর পেরিয়ে যাওয়ায় সেগুলো যে কারো প্রকাশে আর কোনো বাধা নেই। ফলে প্রায় সব প্রকাশকই প্রকাশ করছেন বাংলা সাহিত্যের কীর্তিমান লেখকদের গল্পের বই। যেমন—গতকাল সোমবার মেলায় এসেছে ১৩৫টি নতুন বই। এর মধ্যে গল্পের বই ছিল ২২টি। এরই মধ্যে  বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘শ্রেষ্ঠ গল্প’, বনফুলের ‘শ্রেষ্ঠ গল্প’ ও তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘শ্রেষ্ঠ গল্প’ মেলায় এনেছে অবসর প্রকাশনা সংস্থা।

পাশাপাশি সমসাময়িক লেখকদের গল্পের বইও প্রকাশিত হচ্ছে সমানতালে। প্রকাশকদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, মেলায় উপন্যাসের পর বেশি চলে গল্পের বই। ফলে গল্পের বই প্রকাশে প্রকাশকদের পিছুটান থাকে না।

গতকাল পর্যন্ত বইমেলার ১৬ দিনে মোট প্রকাশিত নতুন বই দুই হাজার ৪৭৫টির মধ্যে গল্পের বই ৩৩৮টি। বিষয়ভিত্তিক প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যার দিক দিয়ে গল্পের অবস্থান তৃতীয়। দ্বিতীয় স্থানে উপন্যাস, ৩৯৯টি। গত বছর কবিতার বইয়ের পরই ছিল গল্পের বইয়ের স্থান। মোট চার হাজার ৬৮৫টি নতুন বইয়ের মধ্যে কবিতা এক হাজার ৫৫৫টি, গল্প ৭৩২টি এবং উপন্যাস ছিল ৬৮২টি।

মেলা ঘুরে দেখা গেছে, সমসাময়িক লেখকদের মধ্যে আনোয়ারা সৈয়দ হকের ‘নিশিগন্ধা’ প্রকাশ করেছে মাওলা। ইমদাদুল হক মিলনের ‘বাড়িটায় কে যেন থাকে’ প্রকাশ করেছে কথা প্রকাশ। বইমেলায় হরিশংকর জলদাসের এসেছে তিনটি বই। ‘আছে তো দেহখানী’ মাওলা, ‘মনোজবাবুদের বাড়ি’ প্রথমা এবং ‘গল্পের গল্প’ মেলায় এনেছে অবসর। মোহিত কামালের ‘ঈর্ষার ঘোরমগ্ন সময়’ এনেছে বিদ্যাপ্রকাশ। সময় প্রকাশন এনেছে নূহ-উল-আলম লেনিনের ‘ছেঁড়া পাতার গল্প’। ঐতিহ্য এনেছে রেজাউর রহমানের ‘শিউলির বাবার শূন্যে উদ্যান ও আরও গল্প’। আহমদ মোস্তফা কামালের ‘বড়দের গল্প যেমন হয়’ এনেছে নাগরী। মাহবুব মোর্শেদের ‘ব্যক্তিগত বসন্তদিন’ এনেছে আদর্শ। শিহাব শাহরিয়ারের ‘ঘাটে নদী নেই’ ও মনি হায়দারের ‘ফ্যান্টাসি’ মেলায় এনেছে অনন্যা। অন্যপ্রকাশ মেলায় এনেছে মাসুদ আহমেদের ‘প্রচারবিমুখ’। সাদ কামালীর ‘কমলা অন্ধকার’ এনেছে রোদেলা প্রকাশনী। মামুন মিজানুর রহমানের ‘কোথায় তারে পাই’ মেলায় এনেছে লিটলম্যাগ পরান কথা। 

পাঞ্জেরী পাবলিকেশনস মেলায় এনেছে স্বকৃত নোমানের ‘বানিয়াশান্তার মেয়ে’, মোজাফ্্ফর হোসেনের ‘অতীত একটা ভিনদেশ’, আলম খোরশেদের ‘মানবীমঙ্গল’, ফারুক আহমেদের ‘শহরে দেবশিশু’সহ কয়েকটি বই।

অনিন্দ্য প্রকাশ মেলায় এনেছে ইশতিয়াক আহমেদের ‘ডেথ সার্টিফিকেট’সহ তিনটি এবং শামীম আল আমিনের ‘আমি তো আছি’। আগামী প্রকাশ করেছে মৌলি আজাদের ‘বইয়ের পাতায় স্বপ্ন বলে’, ঝর্না রহমানের ‘আয়নামামি’।

এ ছাড়া শওকত আলীর প্রথম দিককার লেখা অপ্রকাশিত গল্পের বই ‘সাক্ষাৎ আর মার্জনার গল্প’, শাহীন আখতারের ‘ভালোবাসার পরিধি’ প্রকাশ করবে প্রথমা। হায়াৎ মামুদের ‘যাদুকরের ভেঁপু’ আসার কথা অবসর থেকে।

সমসাময়িক লেখকদের নতুন গল্পের বইয়ের পাশাপাশি সংকলনও প্রকাশিত হয়েছে এবারের মেলায়। স্বাধীনতার কবি শামসুর রাহমানের ‘গল্প’, কথাসাহিত্যিক মোস্তফা কামালের ‘প্রিয় পঞ্চাশ গল্প’, কবি তমিজউদ্্দীন লোদীর ‘নির্বাচিত গল্প’ প্রকাশ করেছে অনন্যা।

বোরহানউদ্দিন খান জাহাঙ্গীরের ‘নির্বাচিত গল্প’ প্রকাশ করেছে বেঙ্গল পাবলিকেশন্্স। জ্যোতিপ্রকাশ দত্তের ‘সাম্প্রতিক সেরা গল্প’ প্রকাশ করেছে পাঞ্জেরী। মঞ্জু সরকারের ‘শ্রেষ্ঠ গল্প’ এনেছে আগামী। সুব্রত বড়ুয়ার ‘সংগ্রহ গল্প’ অনুপম প্রকাশনী, মামুন হুসাইনের ‘গল্প সংগ্রহ’ এবং হাবিব আনিসুর রহমানের ‘নির্বাচিত গল্প’ মেলায় এনেছে পাঠক সমাবেশ।

সৈয়দ মনজুরুল ইসলামের ‘গল্পসকল’ মেলায় আনার কথা অন্যপ্রকাশের। মোহিত কামাল সম্পাদিত ‘তরুণদের ৭১ গল্প’ গতকাল মেলায় এনেছে বিদ্যা প্রকাশ।

আছে গল্প নিয়ে প্রবন্ধের বইও। মুম রহমানের ‘হুমায়ূন আহমেদের ছোটগল্প : বিষয় বৈচিত্র্য ও শিল্পরূপ’ প্রকাশ করেছে অন্যপ্রকাশ। মেলায় প্রকাশিত গল্পের বইয়ের মধ্য থেকে নির্বাচিত চারটি বইয়ের তথ্য তুলে ধরা হলো।

‘শামসুর রাহমানের গল্প’ : শামসুর রাহমান ত্রিশোত্তর বাংলা কবিতার সবচেয়ে নন্দিত কবি। দুই বাংলায় তাঁর শ্রেষ্ঠত্ব ও জনপ্রিয়তা প্রতিষ্ঠিত। জীবদ্দশায় তিনি কবিতার পাশাপাশি যেমন সমসাময়িক কলাম লিখেছেন, তেমনি কিছু গল্পও লিখেছেন। তাঁর ছয়টি গল্প জীবদ্দশায়ই গ্রন্থাকারে বেরিয়েছিল একটি অখ্যাত প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান থেকে। সেই গ্রন্থটি নতুন করে প্রকাশ করল অনন্যা। মূল্য ১৫০ টাকা।

‘ভালো মানুষের জগৎ’ : বিশিষ্ট চিন্তাবিদ সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী শুরু করেছিলেন গল্প লেখক হিসেবেই। একাধিক উপন্যাসও লিখেছেন। কিন্তু তাঁর বিশেষ ক্ষেত্রটি হচ্ছে প্রবন্ধ। তাঁর প্রবন্ধে গল্পের খোঁজ পাওয়া যায়, তবে গল্পে প্রবন্ধ ঢুকে যায়নি। ১১টি গল্প নিয়ে তাঁর এ গ্রন্থ। প্রতিটি গল্পে আছে ব্যক্তি, আছে ঘটনা-ইতিহাস। বইটি প্রকাশ করেছে কথা প্রকাশ। মূল্য ৩০০ টাকা।

‘নির্বাচিত গল্প’ : বোরহানউদ্দিন খান জাহাঙ্গীর ছোটগল্প নিয়ে সর্বদা নানা নিরীক্ষা করেছেন। তাঁর ছোটগল্পে মানুষের স্বপ্ন ও আকাঙ্ক্ষা প্রতিফলিত। ছোট গল্পকার হিসেবে তিনি যে বৈচিত্র্য সন্ধানী ও জনজীবনের আশা-আকাঙ্ক্ষা রূপায়ণে সিদ্ধহস্ত, তার বিচ্ছুরণ আছে এই গ্রন্থে। বইটি প্রকাশ করেছে বেঙ্গল পাবলিকেশন্্স। মূল্য ২৭৫ টাকা।

‘দুধ’: মশিউল আলমের সাতটি গল্পের সংকলন। নামগল্প ‘দুধ’ হিমাল সাউথএশিয়ান শর্ট স্টোরি প্রতিযোগিতায় ২০১৯-এ সেরা গল্পের পুরস্কার পেয়েছে। গল্পটি ইংরেজিতে Milk নামে অনুবাদ করেছেন শবনম নাদিয়া। দুধ গল্পগ্রন্থ প্রকাশ করেছে মাওলা ব্রাদার্স। বইটির মূল্য ২০০ টাকা।

গতকালের বইমেলা
গতকাল অমর একুশে গ্রন্থমেলার ১৬তম দিনে পাঠক দর্শনার্থীদের সমাগম ছিল ভালো। ছিমছাম পরিবেশে কেউ মেতেছিল আড্ডায়, কেউবা নতুন বইয়ের খোঁজে স্টলে স্টলে ঘুরে বেরিয়েছে। এর মধ্যে জনপ্রিয় লেখক অধ্যাপক মুহাম্মদ জাফর ইকবালকে দেখা গেছে মেলায়। যথারীতি তরুণ পরিবেষ্টিত ছিলেন তিনি। তরুণরা তাঁর নতুন বইয়ে অটোগ্রাফ নেওয়ার পাশাপাশি সেলফিও তুলছিল। অনন্যার স্টলে দেখা গেছে আরেক জনপ্রিয় লেখক ইমদাদুল হক মিলন ও অভিনেতা তৌকীর আহমদকে। 

গতকাল বিকেলে গ্রন্থমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় অধ্যাপক হারুন-অর-রশিদ রচিত ‘৭ই মার্চের ভাষণ কেন বিশ্ব-ঐতিহ্য সম্পদ : বঙ্গবন্ধু মুক্তিযুদ্ধ বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধ্যাপক মোহাম্মদ সেলিম। আলোচনায় অংশ নেন ড. এ কে এম শাহনাওয়াজ এবং ড. কুতুব আজাদ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিশিষ্ট ইতিহাসবিদ অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা