kalerkantho

রবিবার  । ১৫ চৈত্র ১৪২৬। ২৯ মার্চ ২০২০। ৩ শাবান ১৪৪১

আড্ডা আর কেনাকাটায় কেটে যায় বইমেলার বিকেল

মাহতাব হোসেন   

১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৯:২১ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আড্ডা আর কেনাকাটায় কেটে যায় বইমেলার বিকেল

ছবি : কালের কণ্ঠ

অমর একুশে গ্রন্থমেলা অর্ধমাস অতিক্রম করেছে। চলবে পুরো ফেব্রুয়ারি মাসজুড়ে।  বাংলা একাডেমি বেরিয়ে বইমেলা নিজেকে বিস্তৃত করেছে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে৷ উদ্যানের সবুজের তলে মেলা পেয়েছে নতুন প্রাণ। প্রতিবছর মেলার রূপ কিছুটা করে পরিবর্তন হচ্ছে৷ 

গত বছর বইমেলার উত্তর অংশে লেকের দিকটা খোলা রাখা হয়। এতে করে ক্রেতা দর্শনার্থীরা মেলাকে একদম নতুন ভাবে পেয়েছিল৷ কেনা কাটা শেষে ক্লান্তি এলে কিংবা আড্ডা দিতে লেকের ধারের সিমেন্টের বেঞ্চগুলোকে বেছে নিয়েছিল৷ এবার মেলার পশ্চিম-উত্তরাংশ পরিবর্ধিত করে লেকটাকে প্রায় ভেতরে নেওয়া হয়েছে৷ একপাশে বইমেলা আরেক পাশে স্বচ্ছ জলের লেক। 

এবার মেলায় আসা মানুষজন যেন আরো গা ছড়িয়ে আড্ডা দিতে পারছে, ঘুরতে পারছে। কেউ কেউ তো গ্লাস টাওয়ারের নিচে সুদৃশ্য লেকের জলে পা ডুবিয়ে এক চিলতে প্রশান্তি গ্রহণ করছে। প্রায় প্রতিদিনই তরুণ-তরুণীদের দেখা যায় সিমেন্টের বেঞ্চে বসে আড্ডা দিচ্ছে, কেউ বা লেকের জলে পা ভেজাচ্ছে। 

আজিমপুর থেকে একদল তরুণীর সাথে কথা হয় প্রতিবেদকের। তারা সকলেই ইডেন কলেজের শিক্ষার্থী। এদেরই একজন ফারজানা, বলছিলেন, 'আমরা প্রায়ই দিনই বইমেলায় আসি, প্রতিদিনই যে কেনা হয় তা না। আমাদের মেলায় আসতে ভালো লাগে। কেমন যেন একটা আত্মিক টান অনুভব করি। এসে চা খাই, ঘুরে বেড়াই। আমাদের ভালো লাগে। তাছাড়া মাঝেমধ্যে বইটই তো কেনাই হয়।'

লেকের জলে পা নাড়াতে নাড়াতে শ্যামল ও সুনয়না বলছিলেন, 'আমাদের বাসা মধুবাগ। মেলাতে বই কিনতে আসি কয়েকবার। বই কেনা, মেলায় ঘুরে বেড়ানো সবকিছু আমাদের কাছে কিছুটা অন্যরকম লাগে।'

সুললিত চয়ন এসেছেন বনশ্রী থেকে। তার সাথে স্ত্রী। বললেন, আগে একা একা চলে আসতাম বইমেলায়। এখন একা আসা হয় না, তবে সুযোগ পেলেই স্ত্রীকে নিয়ে মেলায় চলে আসি। 

এবার বইমেলার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে নতুন প্রবেশ গেইট। টিএসসির সঙ্গে এই গেট দিয়ে প্রবেশ করলেই উন্মুক্ত চত্বর। সেখানে খাবারের দোকান, ফুডকোর্ট। পাশে অফুরন্ত আড্ডা দেয়ার জায়গা। আরেকদিকে লেখক চত্বর। তার সামনে সবুজ অংশ। সবখানেই ছড়ানো ছিটানো আড্ডাস্থল। বই কেনা সাথে জিরিয়ে নেয়া কিংবা দারুণ এক আড্ডা- এবারের বইমেলার নতুন প্রাণ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা