kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৭ জুন ২০১৯। ১৩ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

রূপচর্চা

গ্রীষ্মে বরফে ত্বকচর্চা

অস্বস্তিকর গরমে হিমশীতল বরফের চেয়ে স্বস্তিদায়ক আর কী হতে পারে। আর সেই বরফেই যদি হয় রূপচর্চা, তাহলে তো কথাই নেই। শীতল অনুভূতির পাশাপাশি ত্বক পাবে সজীবতা। ত্বকচর্চায় বরফের ব্যবহার নিয়ে জানাচ্ছেন রেড বিউটি স্যালনের রূপবিশেষজ্ঞ আফরোজা পারভিন। লিখছেন নাঈম সিনহা।

২০ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



গ্রীষ্মে বরফে ত্বকচর্চা

এই গরমে গ্লাসের পানিতে দু-এক টুকরা বরফের জেল নয়, ফলেও হবে রূপচর্চা। মৌসুমি বিভিন্ন ফলের রস আর ভেষজ উপাদান আইসবক্সে রেখে কিউব করুন ফ্রিজে। আর হুটহাট প্রয়োজনে ব্যবহার করুন। এটি যেমন সহজ, তেমনি সময় সাশ্রয়ী। কিশোরী থেকে বয়োজ্যেষ্ঠ সবার উপযোগী। সব ধরনের ত্বকের ব্যবহার করতে পারবেন।

 

বরফের গুণগান

ত্বকের বিবর্ণতা, রোদে পোড়া দাগ ও কালচে ভাব দূর করতে বরফ বেশ কার্যকর। সারা দিনের ধকল শেষে ঘুমানোর আগে বরফ ঘষলে ত্বকের ক্লান্ত ভাব দূর হয়। ঘুমের ঘাটতির কারণে অনেকের চোখের নিচের অংশ ফুলে যায়। কালো হয়ে যায়। এক টুকরা বরফ পরিষ্কার পাতলা কাপড়ে পেঁচিয়ে চোখের ফোলা জায়গায় চেপে ধরে রাখুন কিছুক্ষণ। নিয়মিত এটি করলে কিছুদিনের মধ্যে চোখের ফোলা ভাব কমে যাবে। ত্বকে র্যাশ হলে আক্রান্ত স্থানে আইস কিউব দিয়ে ঘষুণ। ত্বকের জ্বালা বা অস্বস্তি কমে যাবে। মেকআপ দীর্ঘস্থায়ী করতে কয়েক মিনিট বরফ ম্যাসাজ করুন। ঘাম কম হবে এবং মেকআপ বেশিক্ষণ থাকবে। এটি প্রাইমার হিসেবেও কাজ করবে। মুখে ক্রিম মাখার পর হালকাভাবে বরফ বুলিয়ে নিন। ত্বকের সঙ্গে ক্রিম ভালো করে মিশে যাবে। ত্বকের লোমকূপ থেকে তেল নিঃসরণ কমাতে প্রতিদিন বরফ ম্যাসাজ কার্যকর।

 

ভেষজ বরফ

বিভিন্ন ভেষজ উপাদান দিয়ে বরফ বানিয়ে নিলে তা দিয়ে রূপচর্চা হবে সহজেই। ভেষজ বরফের নেই কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া; বরং আছে উপকারিতা। আধা কাপ অ্যালোভেরা জেলের সঙ্গে সমপরিমাণ গোলাপজল মিশিয়ে আইস ট্রেতে ঢেলে দিন। ফ্রিজে দুই ঘণ্টা রাখলেই বরফ হয়ে যাবে। এরপর এটি মুখ ও ঘাড়ে ১৫ মিনিট ম্যাসাজ করে লাগান। এই আইস প্যাক রোদে পোড়া দাগ, ত্বকের জ্বালা-পোড়া দূর করতে সাহায্য করবে। ১ টেবিল চামচ শসার রস ও ৩ টেবিল চামচ মধু ১ কাপ পানিতে মিশিয়ে বরফ বানিয়ে নিন। মুখ ও ঘাড়ে ১০ মিনিট ম্যাসাজ করে লাগান। তারপর পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। ত্বক পরিষ্কার করতে এটি বেশ কার্যকর। সমপরিমাণ কাঁচা দুধ ও লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে ফ্রিজ করুন। দুধে থাকা ল্যাকটিক এসিড ত্বকের কোলাজেন বৃদ্ধি করে বলিরেখা দূর করে। আর লেবুর রস দ্রুত ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায়। ব্রণ দূর করতে ২ টেবিল চামচ নিমপাতা গুঁড়া আধা কাপ গোলাপজলে মিশিয়ে বরফ করে নিন। গ্রিন টি সারা রাত ভিজিয়ে রেখে তারপর আইস কিউব বানিয়ে নিন। চোখের নিচের কালো দাগ দূর হবে। ব্রণ ও অসামাঞ্জস্য ত্বকের জন্য বেশ উপকারী। এ ছাড়া চোখের ফোলাভাব দূর করতেও সাহায্য করবে। শুধু গোলাপজলের কিউব বানিয়ে ব্যবহার করুন। এটি ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায়। প্রতিদিন বাইরে থেকে এসে গোলাপ পানির কিউব ব্যবহার করতে পারেন, যা ত্বকে আনবে সতেজ ভাব। এটি সব রকম ত্বকের জন্যই উপযোগী।

 

ফলের বরফ

♦    তরমুজের রস ও পুদিনা পাতা ব্লেন্ড করে জমিয়ে নিন। এটি ত্বক ভেতর থেকে পরিষ্কার করবে এবং ত্বকের ক্লান্ত ভাব দূর হবে।

♦    আধা কাপ আনারসের রসের সঙ্গে ২ টেবিল চামচ লেবুর রস ও ২ টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে আইস বক্সে রাখুন। সূর্যের পোড়া ভাবের জন্য খুবই উপকারী। এটি তৈলাক্ত ত্বকের জন্য দারুণভাবে কাজ করে।

♦    বাঙ্গির রস দিয়েও বানিয়ে নিতে পারেন আইস কিউব। এটি শুষ্ক ও মিশ্র ত্বকের জন্য বেশ উপকারী।

♦  পেঁপের ক্বাথের সঙ্গে লেবুর রস ও গোলাপজল মেশানো বরফ ত্বকের যেকোনো ধরনের দাগ ছোপ দূর করতে অতুলনীয়। রোদে পোড়া ত্বকের জন্যও এই বরফ সমান কার্যকর।

 

মনে রাখবেন, আইস কিউব ব্যবহারের পর মুখ পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। আপনি দিনের যে সময়েই আইস কিউব ব্যবহার করুন না কেন, মুখ ধোয়ার পর অবশ্যই ক্রিম লাগাতে হবে।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা