kalerkantho

বুধবার । ২৬ জুন ২০১৯। ১২ আষাঢ় ১৪২৬। ২৩ শাওয়াল ১৪৪০

রূপচর্চা

এখনো ফাটছে ঠোঁট?

আমাদের ত্বকের সবচেয়ে নাজুক অংশ ঠোঁটের ত্বক। তাই খুব সহজেই আর্দ্রতা হারায়। অনেকেই সারা বছর ঠোঁটের শুষ্কতায় ভোগেন। ত্বকের অন্যান্য অংশের মতো ঠোঁটের পরিচর্যাও ক্লিনজিং, স্ক্রাবিং ও ময়েশ্চারাইজিং—এই তিন ধাপ মেনে চলতে হবে নিয়মিত। পরামর্শ দিয়েছেন নভিন’স-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক রূপবিশেষজ্ঞ আমিনা ঘশ

৬ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এখনো ফাটছে ঠোঁট?

রাতে দাঁত ব্রাশ করার পর নরম সুতি কাপড় ভিজিয়ে ঠোঁট হালকা করে ঘষে নিন। এরপর ভেজা ঠোঁটেই গ্লিসারিনের সঙ্গে সমপরিমাণ গোলাপজল মিশিয়ে ঠোঁটে লাগান। শুকিয়ে গেলে ভালো মানের লিপবাম লাগিয়ে ঘুমাতে যান। বাইরে যাওয়ার আগে ঠোঁটে প্রথমে লিপবাম লাগিয়ে কয়েক মিনিট পর টিস্যু দিয়ে হালকা চেপে তার ওপর লিপস্টিক লাগান। শুষ্ক ঠোঁটের জন্য ময়েশ্চারাইজারযুক্ত ভালো মানের লিপস্টিক বেছে নিতে হবে। বাইরে বের হওয়ার সময় ব্যাগে ময়েশ্চারাইজারযুক্ত লিপবাম ব্যবহার করুন। ঠোঁট শুষ্ক মনে হলে সঙ্গে সঙ্গে লিপবাম লাগান। মোটকথা কখনোই ঠোঁট শুষ্ক হতে দেওয়া যাবে না। সপ্তাহে তিন দিন স্ক্রাবিং করতে হবে। আধা চামচ চিনির সঙ্গে অল্প অলিভ অয়েল মিশিয়ে হালকাভাবে ম্যাসাজ করুন। চিনি গলে যাওয়া পর্যন্ত ম্যাসাজ করতে থাকুন। এরপর ধুয়ে-মুছে ঠোঁটে লিপবাম লাগান। মনে রাখতে হবে, স্ক্রাবিংয়ের পর ঠোঁটের ত্বক খুব বেশি সেনসেটিভ থাকে। তাই ১২ ঘণ্টার মধ্যে সরাসরি সূর্যালোক এড়িয়ে চলা ভালো। এ জন্য সন্ধ্যার পর বা রাতে ঘুমনোর আগে ঠোঁটে স্ক্রাবিং করুন।

সপ্তাহে ২-৩ দিন লেবুর রসের সঙ্গে সমপরিমাণ মধু মিশিয়ে ঠোঁটে লাগান। ১০ মিনিট পর ধুয়ে পেট্রোলিয়াম জেলি বা লিপবাম লাগান। শুষ্কতার কারণে ঠোঁট কালো হয়ে গেলে গোলাপের পাপড়ি বেটে দুধের সর ও মধু মিশিয়ে প্যাক বানিয়ে ফ্রিজে রাখুন। এক সপ্তাহ প্যাক ভালো থাকবে। প্রতিদিন সুবিধাজনক সময়ে ঠোঁটে লাগিয়ে শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত রেখে ধুয়ে নিন। ঠোঁটের স্বাভাবিক রঙের সঙ্গে কোমলতাও ফিরে আসবে।

শরীরে পানির অভাব ও প্রয়োজনীয় পুষ্টির ঘাটতি হলে ঠোঁট শুষ্ক হতে পারে। সকালে ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে ২-৩ গ্লাস পানি খাবেন। ঘুম থেকে ওঠার এক ঘণ্টার মধ্যে নাশতা করে ফেলতে হবে। সারা দিনে আড়াই থেকে তিন লিটার বিশুদ্ধ পানি ও পানীয় পান করুন। বাদাম, পনির, ডিমের কুসুম, কলিজা ইত্যাদি খাবার ঠোঁটের ত্বকে পুষ্টি জোগায়। এ ছাড়া প্রতিদিন রাতে শোবার আগে কুসুম গরম দুধের সঙ্গে এক চিমটি গুঁড়া হলুদ মিশিয়ে খান। দিনে একটি মৌসুমি টক ফল এবং এক গ্লাস লেবুর শরবত ঠোঁটের স্বাস্থ্য ভালো রাখতে সাহায্য করবে। আরো কিছু বিষয় ঠোঁটের শুষ্কতার কারণ হতে পারে। যেমন—জিব দিয়ে ঠোঁট ভেজানোর অভ্যাস এর মধ্যে অন্যতম। যদি এ অভ্যাস থেকে থাকে, প্রথমে সচেতনভাবে এটি কমিয়ে দিতে হবে। এক দিনেই বিষয়টি বাদ দেওয়া সম্ভব নয়। সময় নিয়ে ধীরে ধীরে চেষ্টা করলে আশানুরূপ ফল মিলবে। স্বাস্থ্যকর ঠোঁট চাইলে ধূমপান করা চলবে না।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা