kalerkantho

শুক্রবার । ২৪ মে ২০১৯। ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৮ রমজান ১৪৪০

রূপচর্চা

গরমে ভেজা খুশকি?

চুলে ভেজা খুশকি। গরমে তা আরো চিটচিটে হচ্ছে। এতে মাথার ত্বকে জন্ম দিচ্ছে নানা সমস্যা। সমাধান দিয়েছেন শোভন মেকওভারের রূপবিশেষজ্ঞ শোভন সাহা। লিখেছেন মোনালিসা মেহরিন

১ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



গরমে ভেজা খুশকি?

রোদে বাইরে বের হলে মাথার ত্বক ঘামবেই। সঙ্গে যোগ হয় বাইরের ধুলা-ময়লা। চুলে খুশকির জন্য তা আরো বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়। রোদে মাথার ত্বকে ঘাম হলে চুল চিটচিটে বা অয়েলি হয়ে যায়। গরমে ঘাম ও বাতাসের ধুলাবালির কারণে ব্যাকটেরিয়া বা ফাঙ্গাসের জন্ম হয়। এটা থেকেই চুলে ভেজা খুশকির প্রকোপ আরো বাড়ে। এতে করে মাথার ত্বকে ফুসকুড়ি কিংবা চুলকানি হতে পারে। তাই এ সময় সবচেয়ে জরুরি হলো চুল পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা। গরমে নিয়মিত চুলে শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হবে। শুধু শ্যাম্পু করেই দায়িত্ব শেষ বলে মনে করা যাবে না। নিয়মিত আরো কিছু পরিচর্যা করা প্রয়োজন। বাইরে থেকে ঘরে ফিরে চুল খুলে দিয়ে ফ্যানের নিচে কিছুক্ষণ বসুন। এতে চুলের গোড়ায় জমা ঘাম শুকিয়ে যাবে। বাইরে থেকে এসেই সরাসরি শাওয়ারে যাওয়া যাবে না। চুলে সঠিকভাবে শ্যাম্পু করতে হবে। শ্যাম্পু করার পর চুলের জন্য উপযোগী কোনো কন্ডিশনার ব্যবহার করতে হবে। খেয়াল রাখতে হবে, শ্যাম্পু করে চুল ধুয়ে ফেলার পর চুলের গোড়ায় যাতে শ্যাম্পু লেগে না থাকে।

ঘুমানোর আগে রাতে চুলে নারকেল তেল মেখে রাখা ভালো। এটা চুলে ডিপ কন্ডিশনিংয়ের কাজ করে। চুলে নিয়মিত লেবুর রস ব্যবহার করলে খুশকির সমস্যা কমে। তাই তেলের সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়ে চুলে লাগাতে পারেন।

অ্যালোভেরার রস লাগিয়ে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে চুল পরিষ্কার করে ফেলুন।

টক দই, মেহেদিপাতা, মেথি গুঁড়া ও লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করুন। চুলে ৩০ মিনিট লাগিয়ে রেখে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।

পাকা কলা, আমলকীর রস, মধু ও মেথি গুঁড়া একসঙ্গে মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে চুলে লাগাতে পারেন।

গরমে চুলটা আঁটসাঁট করে না বেঁধে পাঞ্চ ক্লিপে হালকা করে আটকে নিন।

গরমে চুলের পরিচর্যার জন্য ব্যবহার করতে পারেন নারকেলের দুধ। এটির ব্যবহার আপনার মাথায় রক্ত চলাচল বাড়ায়। এ ছাড়া এটি ভিটামিন ‘ই’ ও ফ্যাটের দ্বারা সমৃদ্ধ, যা আপনার ড্যামেজ হয়ে যাওয়া চুলের পরিচর্যা করে ও ভেতর থেকে চুলকে মজবুত রাখে। এটা খুশকি দূর করতেও সহায়ক।

গরমে খুশকি শুকিয়ে গিয়ে চুল ভেতর থেকে ড্যামেজ করে দেয়। মাথার ত্বকে নিয়মিত অ্যালোভেরা জেল মালিশ করতে পারেন। এটি খুশকি দূর করার পাশাপাশি চুলের স্বাস্থ্য বৃদ্ধিতেও ভূমিকা রাখে।

অতিরিক্ত গরমে শরীরে ডিহাইড্রেশন দেখা দেয়। এটা থেকে চুলের ক্ষতি হতে পারে। পর্যাপ্ত পানি পান করলে শরীরের কোষ তা টেনে নেয়। চুলও এর থেকে উপকৃত হয়। আর্দ্রতা বজায় থাকে।

খুশকি খুব বেশি হলে খুশকিনাশক শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হবে।

যে হেয়ার স্টাইল করুন, গরমে তা যেন আরামদায়ক হয়, সেদিকে খেয়াল রাখুন।

গরমে ঘামের সমস্যা কমাতে উত্তেজনা, দুশ্চিন্তা, গরম আবহাওয়া যথাসম্ভব পরিহার করার চেষ্টা করতে হবে।

রোদে বাইরে বের হলে অবশ্যই ছাতা বা স্কার্ফ ব্যবহার করুন।

মন্তব্য