kalerkantho

অতিরিক্ত মেদ?

অতিরিক্ত মেদ নিয়ে বিপাকে পড়েছেন? মেদ কমাতে কিছু খাবার বেশ উপকারী। জানালেন ইবনে সিনা হাসপাতালের চিকিত্সক ও অধ্যাপক মোহাম্মদ লুত্ফুল কবির। শুনেছেন এ এস এম সাদ

১ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



অতিরিক্ত মেদ?

লেবুর শরবত

প্রতিদিন সকালে এক গ্লাস লেবুর শরবত পান করুন। এটি পেটের মেদ কমানোর সবচেয়ে কার্যকর উপায়। এক গ্লাস হালকা গরম পানিতে লেবু চিপে শরবত করে সঙ্গে একটু লবণ মিশিয়ে নিন। এর সঙ্গে মধুও মিশিয়ে নিতে পারেন। চিনি মেশাবেন না। প্রতিদিন সকালে পানীয়টি পান করুন। এই পানীয় আপনার বিপাকপ্রক্রিয়া বাড়িয়ে পেটের মেদ কমাতে সাহায্য করবে।

ভাত পরিহার করুন

মেদ হওয়ার অন্যতম কারণ হচ্ছে সাদা ভাত। সাদা চালের ভাতের বদলে বিভিন্ন গমজাতীয় শস্য যুক্ত করে নিন প্রতিদিনের খাদ্যতালিকায়। তা ছাড়া লাল চালের ভাত, গমের রুটি, ওটস, অন্যান্য শস্য যুক্ত করে নিতে পারেন। প্রথম দিকে এক বেলা ভাত খেতে পারেন। এরপর দুই বেলাই না খাওয়ার চেষ্টা করুন।

 

 

মিষ্টি পরিহার করুন

চিনিজাতীয় খাবার থেকে দূরে থাকুন। এ ছাড়া মিষ্টিজাতীয় খাবার যেমন—মিষ্টি, চকোলেট, আইসক্রিম, ফিরনি, সেমাই ইত্যাদি খাওয়া থেকে দূরে থাকুন।

 

তেলযুক্ত খাবারকে না বলুন

তেলযুক্ত খাবার খেতে মুখরোচক, লোভ সামলানোও মুশকিল! কিন্তু খেয়াল রাখতে হবে, তেলযুক্ত খাবার অতিরিক্ত হয়ে যাচ্ছে কি না। তেলযুক্ত খাবার বাদ না দিলে মেদ কমানো সম্ভব নয়।

 

পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান

পেটের মেদ কাটাতে প্রতিদিন প্রচুর পরিমাণে পানি পান করতে হবে। পানি শরীরের বিপাকের হার বাড়ানোর পাশাপাশি শরীরের বিষাক্ত উপাদানগুলো দূর করে দেবে। তাই পানিকে বলা হয় প্রাকৃতিক ক্লিঞ্জার।

 

সবজি খান বেশি

মাছ, মাংস না খেয়ে বা কম খেয়ে সবজির পদ বেশি রাখুন খাদ্যতালিকায়। সবজি সিদ্ধ করে খেলে শরীরের জন্য অনেক উপকারী। এতে আপনার পেটে চর্বি না জমে ঠিকমতো হজম হতে সাহায্য করবে।

 

কাঁচা রসুন

সকালে কাঁচা রসুনের কয়েক কোয়া খান। তারপর লেবুর শরবত পান করুন। এটি ওজন কমানোর জন্য সাহায্য করবে এবং শরীরের রক্তপ্রবাহ সহজ করবে।

 

দুই বেলা ফল খান

দুই বেলা খাবারের আগে বা পরে ফল খেতে হবে। বিশেষ করে পানীয় ফল বেশ উপকারী। এই অভ্যাসটি দেহে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, ভিটামিন এবং খনিজ লবণের ঘাটতি পূরণ করবে।

 

ঝাল খাবার

দারচিনি, আদা, গোলমরিচ, কাঁচা মরিচ—এগুলো রান্নায় ব্যবহার করুন। এই মসলা স্বাস্থ্যকর। এগুলো শরীরে ইনসুলিন সরবরাহ বাড়ায় এবং রক্তের সুগার লেভেল কমাতে সাহায্য করে। তাই এগুলো ডায়াবেটিক রোগীর জন্যও বেশ উপকারী।

এই খাবারগুলো রুটিনমাফিক খাওয়ার পরও যদি আপনার মেদ না কমে, তাহলে চিকিত্সকের পরামর্শ নিন।

মন্তব্য