kalerkantho

সোমবার। ১৭ জুন ২০১৯। ৩ আষাঢ় ১৪২৬। ১৩ শাওয়াল ১৪৪০

হিজ পার্টি লুক

নিমন্ত্রণে ছেলেদের পোশাক ও লুক হতে হবে স্টাইলিশ। তবেই না মিলবে প্রশংসা। ছেলেদের পার্টি লুকের আদ্যোপান্ত জানিয়েছেন নাঈম সিনহা

১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



হিজ পার্টি লুক

ছবি : শামসুল হক রিপন

চিরায়ত প্রথার আগল ভাঙছে আজকের তরুণ। বন্ধুর আড্ডায় তাই নির্দ্বিধায় পরছে পলো শার্ট। ফর্মাল শার্ট ইন না করে হাতা গুটিয়েও চলছে স্টাইলের প্রকাশ

নিমন্ত্রণে স্টাইলিশ হতে বেছে নিতে পারেন ফিউশন ওয়্যার। ডেনিম আর শার্টের সঙ্গে এক্সেসরিজ মিলেমিশে বেশ একটা পার্টি লুক হতে পারে।

পার্টিতে ছেলেদের প্রথম পছন্দ স্যুট। অনেকে আবার বেছে নিচ্ছেন পাঞ্জাবির সঙ্গে কটি। এমনটাই জানালেন ফ্যাশন হাউস ওটুর ডিজাইনার জাফর ইকবাল। তিনি বলেন, পার্টি পোশাক হিসেবে পাঞ্জাবি বেছে নিচ্ছেন এখন অনেকে। সঙ্গে নানা নকশার কাজের ও রঙের কটি পরতেও দেখা যায়। এমব্রয়ডারি ও হাতের কাজ করা থাকে কটির পকেট, কলারে ও হাতায়। রঙের ক্ষেত্রে বেশি চলে কালো, নীল, সাদা, অফহোয়াইট। তবে ইদানীং অনেকেই কটি বা পাঞ্জাবির জন্য সোনালি রংও বেছে নিচ্ছেন।

প্যান্টের ক্ষেত্রে গ্যাবার্ডিনের চিনো পরা হচ্ছে। পার্টিতে ডেনিম অনেকেই পরে না। এটা এখন ক্যাজুয়াল পোশাক হয়ে গেছে। শার্টের ক্ষেত্রে চায়নিজ কাট জনপ্রিয়তা ধরে রেখেছে। সব কিছুর পরেও পার্টিতে ছেলেদের স্যুটের প্রতি রয়েছে বিশেষ টান। সিঙ্গেল নট ও ডাবল ভিন্টেজ স্যুট বেশি চলছে।’

স্যুট

পার্টিতে কালো বা নেভি ব্লু স্যুট বেশ মানাবে। যেকোনো বর্ণের পুরুষের জন্য এটি মানানসই। কিছুটা গাম্ভীর্য আনতে চাইলে পরুন ধূসর রঙের স্যুট। প্রিন্স কোটও পরছেন অনেকে। চলচ্চিত্রে খলনায়ক ও আন্ডারওয়ার্ল্ডের ডনদের সাদা স্যুট পরতে দেখা যায়। পার্টিতে ব্যতিক্রমী সাজে সবাইকে চমকে দিতে চাইলে পরতে পারেন সাদা স্যুট। স্যুটের সঙ্গে কনট্রাস্ট কোনো রঙের প্যান্ট দারুণ মানিয়ে যাবে।

রঙ বাহারি

রঙের বৃত্ত ভাঙতে শুরু করেছে ছেলেরা। অনেকেই বেগুনি, লাল, কমলার মতো গাঢ় রঙের পোশাক বেছে নিচ্ছেন। তরুণদের ঝোঁকটাই বেশি। এ ছাড়া ছেলেদের চিরায়ত পছন্দের রং সাদা, কালো, ধূসর, অলিভ গ্রিন, নীল, সবুজ তো থাকছেই।

ছেলেরা সাধারণত পাঞ্জাবিতে অফহোয়াইট, কালো, নীল কিংবা সাদা রং বেছে নেয়। নিরীক্ষার জন্য পাঞ্জাবিতে পছন্দের কোনো উজ্জ্বল রং বেছে নিতেই পারেন। সঙ্গে একটা নকশাদার কটি বেছে নিন। শুধু খেয়াল রাখতে হবে কটির রং ও নকশা যেন পাঞ্জাবির সঙ্গে মানানসই হয়।

মানানসই অ্যাক্সেসরিজ

পোশাক যা-ই হোক অ্যাক্সেসরিজ ছাড়া দাওয়াতের সাজ অসম্পূর্ণ রয়ে যাবে। পোশাক আর অনুষ্ঠানের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে বেছে নিন অনুষঙ্গ। এ ক্ষেত্রে সাধারণত প্রথম মাথায় আসবে ঘড়ি, বেল্ট ও জুতা। রুপালি বা কালো মেটাল ঘড়ি বেশ মানিয়ে যাবে ফরমাল ও ক্যাজুয়াল পোশাকের সঙ্গে। ডেনিম ও চেক শার্টের সঙ্গে পরতে পারেন ফ্যাব্রিকস বা খয়েরি লেদার বেল্টের স্পোর্টস ঘড়ি। ব্যক্তিত্বের সঙ্গে মানিয়ে পরুন বেল্ট। চামড়া, কাপড় বা সিনথেটিক যেকোনো ধরনের হতে পারে। বাড়তি নজর কাড়তে কালো প্যান্টের সঙ্গে পরতে পারেন খয়েরি চামড়ার বেল্ট। দিনের পার্টি লুকে সানগ্লাস সঙ্গে নিতে ভুলবেন না। তবে মুখের গড়নের সঙ্গে মানিয়ে পরুন সানগ্লাস।

দাওয়াতের সাজে আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ অনুষঙ্গ সুগন্ধি। ব্যক্তিত্বের সঙ্গে মানানসই সুগন্ধি নির্বাচন করুন। এ ক্ষেত্রে মাথায় রাখুন, অফিস বা দাওয়াতের সুগন্ধি কিন্তু আলাদা হবে।

সাজ

মেকআপ না করলেও নিমন্ত্রণের সাজে ছেলেদেরও কিছুটা টাচআপের প্রয়োজন আছে বলে জানান শোভন মেকওভারের রূপবিশেষজ্ঞ শোভন সাহা। তিনি বলেন, ‘যেকোনো দাওয়াতে যাওয়ার আগে ছেলেদের প্রথমে দেখতে হবে হেয়ার স্টাইল ঠিক আছে কি না। চুল ঠিকঠাক কাটা না থাকলে অনুষ্ঠানের সঙ্গে মানিয়ে চুল কাটতে হবে। দাড়ি থাকলে ট্রিম করে নেওয়া ভালো। দীর্ঘক্ষণ হেয়ার স্টাইল ঠিক রাখতে চুলে জেল বা স্প্রে ব্যবহার করতে পরেন। দিনের অনুষ্ঠানে অবশ্যই সানব্লক ব্যবহার করতে হবে। মুখে সানব্লক লাগালে অনেকের অস্বস্তি হয়। আঠালো ভাব চলে আসে। সে ক্ষেত্রে অল্প পাউডার পাফ করে নিতে পারেন। এতে কিছুটা সতেজ অনুভূতি থাকবে। রাতের অনুষ্ঠানে মুখে ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। ঠোঁটে ময়েশ্চারাইজার ও এসপিএফ সমৃদ্ধ চ্যাপ স্টিক বা লিপ বাম লাগান।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা