kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬। ২২ শাওয়াল ১৪৪০

চাঁদপুর ৪

নৌকা প্রতীকের মনোনয়নবঞ্চিতদের বিক্ষোভ, এলাকায় উত্তেজনা

চাঁদপুর প্রতিনিধি   

৮ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নৌকা প্রতীকের মনোনয়নবঞ্চিতদের বিক্ষোভ, এলাকায় উত্তেজনা

চাঁদপুর-৪ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগের চূড়ান্ত প্রার্থী দেওয়া হয়েছে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি মুহাম্মদ শফিকুর রহমানকে। এতে মনোনয়নবঞ্চিত বর্তমান সংসদ সদস্য ড. মোহাম্মদ শামছুল হক ভূঁইয়ার কর্মীরা গতকাল সন্ধ্যার পর থেকে ব্যাপক বিক্ষোভে ফেটে পড়ে। ছবি : কালের কণ্ঠ

চাঁদপুর-৪ ফরিদগঞ্জ আসনে নৌকা প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগের চূড়ান্ত প্রার্থী দেওয়া হয়েছে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি মুহাম্মদ সফিকুর রহমানকে। এতে মনোনয়নবঞ্চিত বর্তমান সংসদ সদস্য ড. মোহাম্মদ শামছুল হক ভূঁইয়ার সতীর্থরা শুক্রবার সন্ধ্যার পর থেকে ব্যাপক বিক্ষোভে ফেটে পড়ে। উপজেলার প্রধান বাজারসহ বিভিন্ন সড়কে শত শত কর্মী-সমর্থক বিক্ষোভ প্রদর্শন এবং সড়ক অবরোধ করে। এমন পরিস্থিতিতে সেখানে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। এ ছাড়া আজ শনিবার উপজেলা সদরে বিক্ষোভ সমাবেশের ডাক দিয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগসহ সহযোগী সংগঠনগুলো।

এই আসনে বর্তমান সংসদ সদস্য ড. মোহাম্মদ শামছুল হক ভূঁইয়াকে প্রথমে মনোনয়ন দেওয়া হয়। পরে গত ২৭ নভেম্বর রাতে নতুন করে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি মুহাম্মদ সফিকুর রহমানকেও মনোনয়নপত্র তুলে দিয়েছেন আওয়ামী লীগ সভাপতি, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শেষ পর্যন্ত চূড়ান্ত পর্যায়ে শুক্রবার সকাল ১১টায় নৌকা প্রতীক তাঁর হাতেই তুলে দেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

এমন পরিস্থিতিতে নির্বাচনী এলাকায় দ্রুত এই খবর পৌঁছে যায়। ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে মনোনয়নবঞ্চিত বর্তমান সংসদ সদস্য ড. মোহাম্মদ শামছুল হক ভূঁইয়ার সতীর্থরা। দুপুরের পর থেকেই তারা সংগঠিত হতে শুরু করে। একপর্যায়ে সন্ধ্যার পর ফরিদগঞ্জ বাজারসহ আশপাশের প্রধান সড়কে বিক্ষোভে ফেটে পড়ে। সড়কে আগুন জ্বালিয়ে প্রতিবাদ জানায়। বের করে বিক্ষোভ মিছিলও। এতে নেতৃত্ব দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটোয়ারী। তাঁর সঙ্গে যোগ দেন যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতারাও।

এদিকে এমন পরিস্থিতিতে থানা পুলিশের হস্তক্ষেপে শান্ত হয় বিক্ষুব্ধ নেতাকর্মীরা। ফরিদগঞ্জ থানার ওসি হারুন অর রশিদ চৌধুরী বলেন, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির যেন অবনতি না ঘটে সে বিষয়ে পুলিশ কঠোর ভূমিকা পালন করবে।

অন্যদিকে ফরিদগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের পাটোয়ারী বলেন, ‘আগের দুটি নির্বাচনে মুহাম্মদ সফিকুর রহমানকে নিয়ে আমরা নির্বাচন করেছি। কিন্তু জয় ছিনিয়ে আনতে পারিনি। তা ছাড়া তিনি এলাকায় নেই। বর্তমান সংসদ সদস্য ড. মোহাম্মদ শামছুল হক ভূঁইয়া আসনটি ধরে রাখার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করছেন।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমরা সবাই ভূঁইয়া সাহেবের নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ। সুতরাং নৌকা প্রতীক বর্তমান সংসদ সদস্যকেই দিতে হবে। নয়তো আজ শনিবার থেকে কঠোর কর্মসূচির মধ্য দিয়ে আন্দোলন চলবে।’

প্রসঙ্গত, চাঁদপুর-৪ ফরিদগঞ্জ আসনে ২০০১ ও ২০০৮ সালে দুই দফায় সংসদ নির্বাচন করে বিএনপির প্রার্থীর কাছে হেরে যান মুহাম্মদ সফিকুর রহমান। পরে ২০১৪ সালের নির্বাচনে এই আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সংসদ সদস্য হন জেলা আওয়ামী লীগের তৎকালীন সভাপতি ড. মোহাম্মদ শামছুল হক ভূঁইয়া।

মন্তব্য