kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৫ জুন ২০১৯। ১১ আষাঢ় ১৪২৬। ২২ শাওয়াল ১৪৪০

অভয়নগর

আ. লীগের প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগ

অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি   

৩০ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



আগামীকাল ৩১ মার্চ রবিবার যশোরের অভয়নগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের প্রতিপক্ষ শ্রমিক লীগ এবং ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের প্রতিপক্ষ আওয়ামী লীগ। এদিকে নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষের আশঙ্কা এলাকাবাসীর। এ ক্ষেত্রে প্রশাসনও নজরদারি বাড়িয়েছে।

নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকে অভয়নগর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক শাহ ফরিদ জাহাঙ্গীরের বিপরীতে আনারস প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন জাতীয় শ্রমিক লীগ রাজঘাট-নওয়াপাড়া শিল্পাঞ্চল শাখার সাধারণ সম্পাদক রবিন অধিকারী ব্যাচা।

তা ছাড়া ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করছেন আব্দুল মান্নান মোল্লা, আক্তারুজ্জামান তারু, আব্দুর রউফ মোল্লা, আতিয়ার রহমান বাবু ও বিপুল শেখ। তাঁরা সবাই আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচন করছেন বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান (সদ্য বহিষ্কৃত থানা বিএনপির মহিলা সম্পাদিকা) ফরিদা বেগম, আওয়ামী লীগের সাফিয়া খানম ও মিনারা পারভীন। ভোটারদের আশঙ্কা, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দ্বিধাবিভক্ত নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটতে পারে।

গোপন সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিভিন্ন প্রার্থীর পক্ষে অবৈধ অস্ত্র, গোলাবারুদ ও বোমা মজুদ শুরু হয়েছে। ভারত থেকে গোপন পথে এনে এসব বিভিন্ন স্থানে লুকিয়ে রাখা হয়েছে। হিন্দু সম্প্রদায় ও প্রত্যন্ত এলাকার ভোটারদের দাবি, শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন করতে হলে উপজেলাজুড়ে পুলিশি টহল বাড়ানোর পাশাপাশি তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী ও মাদক কারবারিদের আইনের আওতায় আনা প্রয়োজন। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. শাহীনুজ্জামান বলেন, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কোনো অনিয়ম-বিশৃঙ্খলা বরদাশত করা হবে না।

অভয়নগর থানার ওসি আলমগীর হোসেন বলেন, ‘উপজেলাজুড়ে পুলিশি টহল ও নজরদারি বাড়ানো হয়েছে। আশা করি, অবাধ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ভোট সম্পন্ন হবে।’

উপজেলা নির্বাচনী কর্মকর্তা ওয়াহিদা আফরোজ জানান, শান্তিপূর্ণ পরিবেশে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্পন্ন করতে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

 

মন্তব্য