kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২০ জুন ২০১৯। ৬ আষাঢ় ১৪২৬। ১৬ শাওয়াল ১৪৪০

মুন্সীগঞ্জ

এমপির বিরুদ্ধে আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ

মুন্সীগঞ্জ প্রতিনিধি   

২৯ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মুন্সীগঞ্জ সদর উপজেলা নির্বাচনে স্থানীয় সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাস ও দলের বিদ্রোহী আনারস প্রতীকের প্রার্থী এস এম মাহতাব উদ্দিন কল্লোলের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ করা হয়েছে। গত বুধবার রাতে মুন্সীগঞ্জের একটি রেস্তোরাঁয় সংবাদ সম্মেলনে নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আনিস উজ্জামান আনিসের পক্ষে তাঁর ছেলে জালালউদ্দিন রুমি রাজন ও সাবেক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার এম এ কাদের মোল্লা এই অভিযোগ করেন।

লিখিত অভিযোগে বলা হয়, আগামী ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিতব্য উপজেলা নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে এস এম মাহতাব উদ্দিন কল্লোল মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার আগে থেকেই তাঁর পক্ষে প্রচারণা চালাচ্ছেন মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাডভোকেট মৃনাল কান্তি দাস। কল্লোল নিজের নির্বাচনী পোস্টার ও ব্যানারে আওয়ামী লীগের প্রধান শেখ হাসিনা ও মৃণাল কান্তি দাসের ছবি ব্যবহার করেছেন। এ বিষয়ে অসংখ্যবার লিখিত অভিযোগ দিলেও নির্বাচন কমিশন কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। লিখিত অভিযোগে আরো বলা হয়, ‘আমরা সংসদ সদস্যকে নির্বাচনের সময় মুন্সীগঞ্জে চাই না। নির্বাচনে তিনি মুন্সীগঞ্জে থাকলে সমস্যা তৈরি হতে পারে।’ তবে মুন্সীগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য মৃণাল কান্তি দাস এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি।

জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আনিছুর রহমান জানান, দলীয় প্রার্থী ছাড়া অন্য কোনো প্রার্থী দলীয় কোনো ব্যানার বা কোনো দলের প্রধানের ছবি ব্যবহার করতে পারবেন না।

এদিকে মুন্সীগঞ্জে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন, সমর্থকদের মারধর, নির্বাচনী ক্যাম্প ভাঙচুরসহ বিভিন্ন অভিযোগ করেছেন স্বতন্ত্র প্রার্থী (কাপ-পিরিচ প্রতীক) মো. রফিকউল্লাহ সেলিম। গতকাল দুপুরে উপজেলার ভবেরচর বাজারে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আমিরুল ইসলামের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন। এ ক্ষেত্রে ভোটাররা যাতে কেন্দ্রে গিয়ে স্বাধীনভাবে ভোট দিতে পারে, প্রশাসনের প্রতি এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান তিনি।

এ বিষয়ে গজারিয়া থানার ওসি হারুন অর রশিদ বলেন, ‘হামলার ঘটনার অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

মন্তব্য