kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২৪ অক্টোবর ২০১৯। ৮ কাতির্ক ১৪২৬। ২৪ সফর ১৪৪১       

সংরক্ষিত নারী আসন

মনোনয়ন ফরম জমা দিলেন মুক্তিযোদ্ধা সন্তান মনোয়ারা

নিজস্ব প্রতিবেদক    

১৮ জানুয়ারি, ২০১৯ ১৮:৩৩ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মনোনয়ন ফরম জমা দিলেন মুক্তিযোদ্ধা সন্তান মনোয়ারা

একাদশ জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত নারী আসনে প্রার্থী হতে চান মুক্তিযোদ্ধা সন্তান নারী নেত্রী মনোয়ারা বেগম। এ জন্য তিনি আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের পর আজ শুক্রবার (১৮ জানুয়ারি) তা জমা দিয়েছেন।

মুজিব আদর্শের সাহসী সৈনিক মনোয়ারা বেগম (নারী আসন-১২) দলীয় মনোনয়ন পাবেন বলে আশাবাদী।

সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, ছাত্রজীবনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সক্রিয় কর্মী ছিলেন মনোয়ারা বেগম। তিনি সংগঠনের ইডেন মহিলা কলেজ শাখার নির্বাহী কমিটির সদস্য ছিলেন। ২০০৭ সালের ১১ জানুয়ারির পর বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মুক্তির দাবিতে সক্রিয়ভাবে রাজপথের আন্দোলনে অংশগ্রহণ করেন। ২০০১ সালে বিএনপি-জামায়ত জোট দ্বারা শারীরিকভাবে নির্যাতন ও হয়রানির শিকার হয়েছিলেন তিনি।

ইতিমধ্যে নারী আন্দোলনের সংগঠক হিসেবে বিশেষ পরিচিতি পাওয়া মনোয়ারা বেগমের বাবা মো. আব্দুল বারেক ১৯৭১ সালে ২ নম্বর সেক্টর থেকে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। ১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধুর নির্মম হত্যাকাণ্ডের পর তিনি আওয়ামী শ্রমিক সংগঠনের নেতা হিসেবে আশুগঞ্জ সার কারখানায় দায়িত্ব পালনকালে তৎকালীন সামরিক সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলেন।

মনোয়ারা বেগমের স্বামী মো. মশিয়ার রহমান প্রথমে ছাত্রলীগ ও পরে যুবলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ছিলেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৮১ সালে দেশে প্রত্যাবর্তনের পর তাঁর সফরসঙ্গী হিসেবে বিভিন্ন জেলায় দলীয় সাংগঠনিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করেন তিনি। পরবর্তীতে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে এরশাদবিরোধী আন্দোলন করতে গিয়ে কারাবরণ করেন মশিয়ার রহমান।

পারিবারিক সূত্র জানায়, আইন বিষয়ে সর্বোচ্চ ডিগ্রিধারী মনোয়ারা বেগম বাবা আব্দুল বারেক ও মা শামসুননাহারের ঘরে ১৯৭৯ সালে পহেলা জুন সাতক্ষীরা জেলার কলারোয়া থানার হুলহুলিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বর্তমানে মহিলা আওয়ামী লীগ সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলা শাখার যুগ্ম আহ্বায়কের দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

ছাত্রজীবন থেকেই নিজের এলাকার জনগণের পাশে থেকে জনগণের সেবায় নিবেদিত মনোয়ারা বেগম। তিনি ঈদসহ যে কোন সামাজিক অনুষ্ঠানে নিত্যপ্রয়োজনীয় উপহার সামগ্রী নিয়ে পৌঁছে যান এলাকায়। নিজ উপজেলার হুলহুলিয়া প্রাইমারি স্কুল, সিংগা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও অন্যান্য বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা পালন করেছেন এলাকাবাসীর প্রিয় মনোয়ারা বেগম। 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা