kalerkantho


সিলেটে বিএনপিকে ছাড় দেবে জামায়াত, আশাবাদী ফখরুল

কালের কণ্ঠ অনলাইন   

১৪ জুলাই, ২০১৮ ২০:৫৪



সিলেটে বিএনপিকে ছাড় দেবে জামায়াত, আশাবাদী ফখরুল

সিলেট সিটি করপোরেশন (সিসিক) নির্বাচনের কথা উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, দেশের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে জামায়াতে ইসলামী ২০ দলের প্রার্থী হিসেবে আরিফুল ইসলামকে সমর্থন করবে। তারা বিএনপির প্রার্থীর পক্ষে কাজ করবে বলে আমরা প্রত্যাশা করি।

তিনি  বলেন, ২০ দলীয় জোটের মধ্যে কোনো বিবেধ নেই। সিলেট সিটিতে স্থানীয় সরকার নির্বাচন হচ্ছে, এটি নিয়ে ঐক্য নষ্ট হওয়ার কোনো সম্ভাবনা নেই। এটি জাতীয় নির্বাচনে কোনো প্রভাব ফেলবে না। আমরা আশা করি সিলেটে জামায়াত বিএনপি প্রার্থীকে সমর্থন দেবে। আমাদের ঐক্য অটুট থাকবে। 

শনিবার (১৪ জুলাই) বিকেলে দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে ২০ দলের বৈঠক শেষে তিনি একথা বলেন।

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ২০ দলের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান বলেন, আজ জোটের বৈঠকে সিলেটে মেয়র নির্বাচনে জামায়াতের প্রার্থীর বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। সেখানে এখনও তাদের প্রার্থী আছে। আমরা বসে নেই, এখনও তাদের সঙ্গে আলোচনা চলছে। জামায়াতের মোবারক হোসাইন বৈঠকে ছিলেন তার সিদ্ধান্ত নেওয়ার এখতিয়ার নেই। তিনি আমাদের অনুরোধটি তার দলের নেতাদের জানাবেন। তারা যে সিদ্ধান্ত নেবে সেটিই চূড়ান্ত হবে।

নজরুল ইসলাম বলেন, আমরা বিএনপিসহ জোটের নেতারা জামায়াত নেতাদের অনুরোধ করেছি গণতন্ত্র, ঐক্য ও জাতির স্বার্থে সিদ্ধান্ত নেওয়ার।  আমরা আশা করবো জোটের প্রার্থীর বিজয় ও ঐক্যের কথা বিবেচনা করে তারা সিদ্ধান্ত নেবেন। কারণ রাজনৈতিক দল হিসেবে তাদের নিজেদের সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার রয়েছে। আমরা কারো ওপর কোনো কিছু চাপিয়ে দিতে পারি না। আমরা আশা করবো সঠিক সময়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।  জোটের ঐক্য ও বিজয়ের কথা চিন্তা করে জামায়াতকে সিদ্ধান্ত নেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। 

জোটের বৈঠকে জোটের শরিক জাতীয় পার্টি কাজী জাফরের মহাসচিব মোস্তফা জামাল হায়দারের স্ত্রীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করা হয়েছে। এছাড়া লিবারেল ডেমোক্র্যাটিক পার্টির (এলডিপি) সভাপতি কর্নেল অব. অলি আহমেদের গাড়ি বহরে হামলার ঘটনায় প্রতিবাদ ও তীব্র নিন্দা এবং ক্ষোভ জানিয়েছে ২০ দল। জোট এসব হামলাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছে। ওইসময় সেখানে দায়িত্বে থাকা পুলিশের নিশ্চুপ থাকার বিষয়ে তদন্ত করারও দাবি জানিয়েছে। 

এর আগে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের সভাপতিত্বে  বৈঠকে  উপস্থিত ছিলেন-জোটের সমন্বয়ক ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, জামায়াতে ইসলামী’র কর্মপরিষদ সদস্য মোবারক হোসেন ভূঁইয়া, বিজেপির আন্দালিব রহমান পার্থ, সাম্যবাদী দলের সাঈদ আহমদ, এলডিপির মহাসচিব ড. রেদোয়ান আহমদ, জাতীয় পার্টি (জাফর) আহসান হাবীব লিঙ্কন, লেবার পার্টির একাংশের সভাপতি ডা. মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, এনপিপির ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, খেলাফত মজলিশের যুগ্ম মহাসচিব গোলাম আজগর, জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের মহিউদ্দিন ইকরাম, বাংলাদেশ ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভূঁইয়া প্রমুখ। 



মন্তব্য