kalerkantho

রবিবার । ২৮ আষাঢ় ১৪২৭। ১২ জুলাই ২০২০। ২০ জিলকদ ১৪৪১

যেসব শর্তে ঘরে বা ছাদে ঈদের জামাত করা যায়

মুফতি মুহাম্মদ মর্তুজা   

২৪ মে, ২০২০ ১৯:১৪ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যেসব শর্তে ঘরে বা ছাদে ঈদের জামাত করা যায়

করোনা মহামারির কারণে ঈদের নামাজ ঘরে পড়া যাবে কি না এ নিয়ে বিতর্কের শেষ নেই। কেউ কেউ ঢালাও ভাবে বলে দিচ্ছেন, ঈদের নামাজ ঘরে একাকী পড়া যাবে। আবার কারো কারো ধারণা মতে ঈদগাহ ছাড়া ঈদের নামাজ আদায় হবে না। দুটি ধারণার কোনোটিই সঠিক নয়। 

হানাফি মাজহাব মতে ঈদের নামাজ ওয়াজিব। জুমার নামাজের জন্য যে সকল শর্ত প্রযোজ্য, ঈদের নামাজের জন্যও সে সকল শর্ত প্রযোজ্য। বর্তমানে যেহেতু সরকারের পক্ষ থেকে জনগণের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে মসজিদে ঈদের জামাত করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে তাই স্বাস্থ্যবিধি মেনে প্রয়োজনীয় নিরাপত্তা গ্রহণ করে মসজিদে গিয়েই নামাজ পড়া উচিত। 

কিন্তু কোনো এলাকা যদি এতটাই বিপদজনক হয় যে, সেখানে মসজিদের যাওয়ার অনুমতি নেই বা সেই এলাকায় আক্রান্তের সংখ্যা খুবই বেশি, সেখানে বাড়ির আঙ্গিনায়, ছাদে বা বৈঠকখানায় ঈদের নামাজ পড়া যাবে। কারণ ঈদের নামাজ পড়ার জন্য কেবল ঈদগাহ হওয়াই শর্ত নয়। (ফাতাওয়ায়ে মাহমুদিয়া : ১৪/২৩৮, ফাতাওয়ায়ে ফকীহুল মিল্লাত : ৪/৪১৫) 

এক্ষেত্রে নিম্নের কয়েকটি শর্ত অবশ্যই পূরণ করতে হবে।

ক. ঈদের জামাত শুদ্ধ হওয়ার জন্য কমপক্ষে তিনজন মুসল্লি থাকতে হবে। 

খ. কোনো জায়গায় ঈদের জামাত করতে হলে সেখানে জুমার নামাজের ন্যায় ‘ইজনে আম’ (নামাজের সময় যেখানে নামাজ পড়া হবে, সেখানে যে কোনো মুসলমানের প্রবেশাধিকার থাকা) এর শর্ত প্রযোজ্য হবে। 

এগুলো জুমার নামাজের ক্ষেত্রেও শর্ত। তবে জুমার নামাজে খুতবার দেওয়া ওয়াজিব। পক্ষান্তরে, ঈদের নামাজে খুতবা দেওয়া সুন্নত। অর্থাৎ খুতবা দেওয়ার যোগ্যতা সম্পন্ন কেউ না থাকলেও উপরোক্ত শর্ত মেনে কেবল নামাজ পড়লেও ঈদের নামাজ আদায় হয়ে যাবে। 

তবে বাংলাদেশে যেহেতু মসজিদেই নিরাপত্তা নিশ্চিত করে নামাজের সুযোগ আছে, তাই মসজিদেই পড়া উচিত। 

মহান আল্লাহ আমাদের সকলকে সঠিক ভাবে নিরাপদে ঈদের নামাজ আদায় করার তাওফিক দান করুন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা