kalerkantho


ফেসবুকে গুজব ছাড়ানোর অভিযোগ

কোটা আন্দোলনের নেত্রী লুনা রিমান্ডে

আদালত প্রতিবেদক   

১৭ আগস্ট, ২০১৮ ০২:৪০



কোটা আন্দোলনের নেত্রী লুনা রিমান্ডে

লুৎফুন্নাহার লুনা। ফাইল ছবি

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে গুজব রটানো কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতৃত্ব দেওয়া সংগঠন সাধারণ ছাত্র অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির গ্রেপ্তার যুগ্ম-আহবায়ক লুৎফুন্নাহার লুনাকে তিন দিন জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের হেফাজতে (রিমান্ড) দেওয়া হয়েছে। 

গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর হাকিম কাজী কামরুল ইসলাম ওই আদেশ দেন। এ সময় তার জামিন আবেদন নাকচ করা হয়।

রাজধানীর রমনা থানায় দায়ের হওয়া তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনের মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতে হাজির করা হয়। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোযেন্দা পুলিশের পরিদর্শক আনিছুর রহমান তদন্তের স্বার্থে আসামিকে হেফাজতে নিয়ে পাঁচদিন জিজ্ঞাসাবাদ করার অনুমতি চান। 

রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, বাসচাপায় শহীদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হওয়ার পর নিরাপদ সড়কের দবিতে স্কুল-কলেজের ছাত্র-ছাত্রীদের আন্দোলন চলাকালে দুই ছাত্রের মৃত্যুর সংবাদ দিয়ে গুজব ছড়ানোর অভিযোগ রয়েছে। ওই বিষয়ে তার কাছ থেকে তথ্য জানা প্রয়োজন। 

অন্যদিকে লুনার পক্ষে রিমান্ড বাতিল করে জামিনে মুক্তি দেওয়ার আবেদন করা হয়। আদালতে আইনজীবী জায়েদুর রহমান ওই আবেদনের ওপর শুনানি করেন। 

লুনা গোপালগঞ্জ জেলার কাশিয়ানি উপজেলার বারৈখোলা গ্রামের আবদুল কুদ্দুসের মেয়ে। দীর্ঘদিন বেলকুচির ক্ষিদ্র চাপড়ির চরে দাদার বাড়িতে পালিয়ে ছিলেন। বুধবার ভোরে বেলকুচি থানা পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে সিরাজগঞ্জের বেলকুচি যমুনা নদীর দুর্গম চরাঞ্চল ক্ষিদ্র চাপড়ির চর থেকে তাকে আটক করা হয়। 

গত ২ আগস্ট এ মামলাটি দায়ের করে পুলিশ। মামলায় নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলাকালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ও বিভ্রান্তিমূলক তথ্য ছড়িয়ে উসকানি দেওয়ার অভিযোগ আনা হয়েছে। মামলায় সুনির্দিষ্টভাবে কারো নাম না থাকলেও ধ্বংসাত্মক কার্যক্রমের উসকানিদাতা হিসেবে মেট্রেপলিটন পুলিশের সাইবার ক্রাইম বিভাগ ২৮টি ফেসবুক ও টুইটার আইডি শনাক্ত করেছে মর্মে উল্লেখ করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর সঙ্গে অডিও ফোনালাপকারী কুমিল্লার মিলহানুর রহমান নাওমিসহ মোট সাতজন এখন পর্যন্ত গ্রেপ্তার হয়ে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ড শেষে বর্তমানে কারাগারে আছে বলে প্রসিকিউশন সূত্র জানিয়েছে।



মন্তব্য