kalerkantho

রবিবার । ০৮ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১০ রবিউস সানি ১৪৪১     

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

সীতাকুণ্ডে দুই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর সংবাদ সম্মেলন

সংসদ সদস্যদের বিরুদ্ধে আচরণবিধি ভঙ্গের অভিযোগ

সীতাকুণ্ড (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

১৬ মার্চ, ২০১৯ ০৩:১৮ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সীতাকুণ্ডে দুই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর সংবাদ সম্মেলন

চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে  সংসদ সদস্য দিদারুল আলমের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ এনেছেন দুই ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী। সংসদ সদস্য উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের অন্য দুই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর পক্ষে কৌশলে প্রচারণা চালাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন তাঁরা। এ ছাড়া নির্বাচন কেন্দ্রে তাঁদের এজেন্টদের থাকতে  দেওয়া হবে না—এমন হুমকিও পাচ্ছেন বলে জানান তাঁরা। 

গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় সীতাকুণ্ড প্রেস ক্লাবে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন সীতাকুণ্ড থানা আওয়ামী লীগের দপ্তর দম্পাদক ও ভাইস চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মো. ইউনুস (মাইক) ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী কামরুন্নাহার নিলু (ফুটবল)। 

মো. ইউনুস বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী উন্মুক্ত করে দেওয়ায় আমি সুষ্ঠু নির্বাচনের প্রত্যাশা করে প্রার্থী হয়েছি। সেই লক্ষ্যে উপজেলাজুড়ে ব্যাপক প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছি। কিন্তু দুঃখের বিষয়, মাননীয় সংসদ সদস্য দিদারুল আলম সেতুমন্ত্রীর রোগ মুক্তি কামনায় দোয়া মাহফিলে দুজন ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীকে নিয়ে গিয়ে প্রচারণা চালাচ্ছেন।’ 

একই অভিযোগ করেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী কামরুন্নাহার নিলু। তিনি বলেন, ‘মাননীয় এমপি মহোদয় আচরণবিধি না মেনে কী করে দুই প্রার্থীর প্রচারণা চালাচ্ছেন, আমরা জানি না। তাঁর কাছে আমরা সবাই সমান। কিন্তু তিনি শুধু দুই জনের প্রচারণা করছেন।’ 

তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন সংসদ সদস্য দিদারুল আলম। এসব অভিযোগ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে দাবি করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘থানা আওয়ামী লীগ সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের রোগমুক্তির জন্য দোয়া মাহফিলের আয়োজন করেছে। সেখানে অতিথি হিসেবে থেকেছি, আমি আয়োজক না। আওয়ামী লীগের আমন্ত্রণে অনেক নেতাকর্মী সেখানে এসেছিল। কয়েকজন প্রার্থীও আসেন। কিন্তু আমি তাঁদের নিয়ে ঘুরছি এই অভিযোগ অমূলক ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।’

সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিল্টন রায় বলেন, ‘অভিযোগ পেয়েছি। কিন্তু সেতুমন্ত্রীর রোগ মুক্তির জন্য দোয়া মাহফিলের অনুষ্ঠানে যে কেউ যেতে পারেন। এটি আচরণবিধি লঙ্ঘনের ঘটনা নয়।’ 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা