kalerkantho

বুধবার । ২১ আগস্ট ২০১৯। ৬ ভাদ্র ১৪২৬। ১৯ জিলহজ ১৪৪০

দ্বিতীয় রাজধানী প্রতিদিন

চট্টগ্রামে তালিকা ধরে গ্রেপ্তার অভিযান

আরো জোরদার হবে ১৬ ডিসেম্বরের পর

এস এম রানা, চট্টগ্রাম   

১২ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০১:৪৪ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আরো জোরদার হবে ১৬ ডিসেম্বরের পর

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে নাশকতা এবং নির্বাচনের দিন কেন্দ্র দখল করতে পারে এমন কিছু সম্ভাব্য নাশকতাকারীর তালিকা তৈরি করে তাদের গ্রেপ্তার অভিযান চালাচ্ছে চট্টগ্রামের পুলিশ। এই তালিকার প্রায় সবাই বিরোধীদলীয় রাজনৈতিক নেতাকর্মী। আগামী ১৬ ডিসেম্বরের পর এই অভিযান আরো জোরদার হবে।

চট্টগ্রাম মহানগর ও জেলা পুলিশের দায়িত্বশীল একাধিক কর্মকর্তার সঙ্গে আলাপ করে জানা গেছে, নাশকতামূলক মামলায় গ্রেপ্তার অভিযান অব্যাহত রাখার নির্দেশনা দিয়েছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও পুলিশ সদর দপ্তর। এ কারণে মাঠপর্যায়ে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। 

কর্মকর্তারা জানান, বিএনপি-জামায়াত জোট ভোট কেন্দ্রে ভোটের দিন পূর্ণ শক্তি নিয়ে মাঠে নামার পরিকল্পনা করেছে বলে গোয়েন্দা তথ্য পাওয়া গেছে। এ কারণে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্ভাব্য নাশকতাকারীদের ধরতে নির্দেশনা দিয়েছে। 

জানতে চাইলে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘পুলিশের কাছে তথ্য আছে নির্বাচনের আগে প্রচারণার সময় এবং নির্বাচনের দিন কেন্দ্র দখল করে তাণ্ডব চালাতে পারে নাশকতাকারীরা। তাই থানাভিত্তিক সম্ভাব্য নাশকতাকারীদের তালিকা তৈরি করে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার স্বার্থে পুলিশ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় আইনগত ব্যবস্থা নেবে।’

সম্ভাব্য নাশকতাকারী বলতে কাদের বোঝানো হচ্ছে—এমন প্রশ্নের জবাবে পুলিশ সুপার বলেন, ‘অতীতে নাশকতামূলক কার্যক্রম চালিয়েছে এমন ব্যক্তি, যারা ইতিমধ্যে নাশকতা মামলার আসামি হয়েছে কিংবা তদন্তে যাদের নাম আসবে তারা তালিকায় স্থান পেয়েছে।’

চট্টগ্রাম জেলার ১৬ থানায় সম্ভাব্য নাশকতাকারীদের সংখ্যা কত—জানতে চাইলে পুলিশ কর্মকর্তা নূরে আলম মিনা বলেন, ‘সংখ্যা আলাদা করে বলা কঠিন। এটি প্রতিটি থানায় থানায় আছে।’ 

সম্ভাব্য নাশকতাকারীদের গ্রেপ্তার অভিযান চালানোর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম মহানগরীর একাধিক থানার ওসি। তাঁরা বলেছেন, নাশকতাকারীদের ধরতে অভিযান চলমান আছে। এই অভিযান আরো জোরদার করার নির্দেশনা আছে। তাই ১৬ ডিসেম্বরের পর অভিযান আরো জোরদার হবে। 

গতকাল সকালে চট্টগ্রাম নগরের কোতোয়ালি থানা এলাকা থেকে বাকলিয়া থানা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব আলী চৌধুরী নাজিমকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাঁর বিরুদ্ধে নাশকতার মামলা আছে বলে জানিয়েছেন বাকলিয়া থানার ওসি প্রণব চৌধুরী।

চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সহপ্রচার সম্পাদক ইদ্রিস আলী বলেন, সম্প্রতি প্রায় দেড় শ ‘গায়েবি’ মামলা হয়েছে, এসব মামলায় চট্টগ্রামের বহু নেতাকর্মীর নাম উল্লেখ এবং শত শত অজ্ঞাতপরিচয় আসামি দেখানো হয়েছে। এখন পুলিশ এসব মামলায় নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করছে এবং মামলার তদন্ত পর্যায়ে ওই নেতাকর্মীর নাম এসেছে বলে দাবি করছে পুলিশ। 

গতকাল সকালে নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর পর বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান বলেছেন, পুলিশ এখনো বিএনপি নেতাকর্মীদের ধরপাকড় চালাচ্ছে। এভাবে চললে নির্বাচনের মাঠে থাকা কঠিন হয়ে পড়বে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা