kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

‘মেয়েদের লেখাপড়া শিখিয়ে কি হবে?’

শ্যামেন্দু শ্যামাপ্রসাদ, দেবীগঞ্জ, পঞ্চগড়

২ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



‘মেয়েদের লেখাপড়া শিখিয়ে কি হবে?’

নিজেদের জীবনে হয়তো বসন্ত ছিল না; কিন্তু তাঁরা অপরাপর নারীর জীবনে বসন্ত আনতে করে গেছেন অনেক পরিশ্রম। অন্ধকার প্রকোষ্ঠ থেকে দেখিয়েছেন জীবনে আলোর সূর্য। একবিংশ শতাব্দীতে নারীর যে অগ্রগতি তাতে রাসসুন্দরী, জ্ঞানদানন্দিনী দেবী, বেগম রোকেয়াদের অবদান অনেক। তাঁদের জন্যই আমরা নারীদের দেখি জনজীবনের সর্বত্র। যেন প্রকৃতি পেয়েছে ফিরে তার প্রাণ। ঘর থেকে বাইরে সর্বত্র তাদের পদচারণ। গোলাম মুরশিদের ‘রাসসুন্দরী থেকে রোকেয়া : নারী প্রগতির একশো বছর’ গ্রন্থটিতে আলোচিত নারীরা বর্তমান নারীসমাজের অগ্রগতির অগ্রদূত। তাঁদের নিঃস্বার্থ অবদানের কারণেই জুতা সেলাই থেকে চণ্ডীপাঠ সবই করছে নারীরা। রাসসুন্দরী, রোকেয়া, জ্ঞানদানন্দিনী দেবীদের নিঃস্বার্থ অবদান নারীদের সমাজ বিবর্তনে অগ্রভাগে অবদান রাখার সুযোগ করে দিয়েছে। ‘মেয়েদের লেখাপড়া শিখিয়ে কি হবে?’ এই ধারার প্রশ্নগুলো এখন শুনতে হয় না। শতবর্ষ আগে বেগম রোকেয়ারা যে পথ দেখিয়েছেন তারই ফলে নারীদের এই অসামান্য অগ্রগতি। কী করে তা সম্ভব হলো কয়েকজন নারীর দৃষ্টান্ত তুলে ধরে সে প্রশ্নের জবাব খুঁজেছেন লেখক।