kalerkantho

সোমবার । ২২ আষাঢ় ১৪২৭। ৬ জুলাই ২০২০। ১৪ জিলকদ  ১৪৪১

আঁধারের ওপাশটায়

হারিসুল হক

৩ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



চারদিকে যুদ্ধদামামা বাজছে প্রিয়তমা

আমি যাব—যেতে তো আমাকে হবেই, সোনা।

অদৃশ্য এক বৈরী ওত পেতে আমাদের সতেজ বাগানে

আমি তার নাড়ি-নক্ষত্র কিছুই জানি না

শুধু এইটুকু জানি সে আমার স্বস্তি কেড়েছে

বুক থেকে কেড়ে নিচ্ছে আদরের ধন।

সে আমার রক্ত-মজ্জায় ছড়িয়েছে লোবানের বিষণ্ন ঘ্রাণ

সে আমার আকাশজুড়ে টানিয়েছে মৃত্যু-শামিয়ানা।

হ্যাঁ, আমি যাব, যেতে তো আমাকে হবেই, নন্দিনী

 

খ.

ধূসর ছায়ার ভেতর নির্ভীক হেঁটে গেল যে হংসদল

ওরা কি আমার সংকট জানে?

(কতটা কপট আমি ওরা বেশ জানে

কতটুকু নামতে পারি নিচে জলার শামুকও সে খবর রাখে)

আমার উপায় কী

কোন মুনি মুছে দেবে এ দৈব দশা!

নাকি ধ্রুপদি মেঘের আছে এর নিদান জানা

কিন্তু হায়

অরণ্য ও মেঘ, সাগর ও বৃক্ষ—সব আজ মানুষের বিপক্ষে দাঁড়িয়ে

 

গ.

একদিন এ যুদ্ধ শেষ হবে আমি নিশ্চিত

এ নদী, এ বনভূমি আবারও উচ্চকিত হবে পাখির কূজনে

আবারও বান্দরবানে ঝাঁকড়া-বনানী কাঁধে জেগে উঠবে দর্পিত পাহাড়

বঙ্গোপসাগরের নীলাচলে জলখেলায় মত্ত থাকবে দামাল ডলফিন

এবং আবারও কুহেলি মঞ্চ জুড়ে ঝলমলে মানবীর নাচ

শেষ হবে অন্তহীন করতালির নিঝুম নিক্বণে।

 

প্রাণ আমার

আমি জানি সব যুদ্ধে দিনশেষে মানুষেরই জয় হয়

আঁধারের ওপাশটায় রোশনাই আর রোশনাই খেলা করে।

মন্তব্য