kalerkantho

বুধবার । ১৭ জুলাই ২০১৯। ২ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৩ জিলকদ ১৪৪০

হৃতিকের অন্য রূপ

রোমান্টিক ইমেজ ভেঙে একেবারেই সাধারণ মানুষের চেহারায় হাজির হৃতিক রোশান। গণিতজ্ঞ আনন্দ কুমারের জীবন নিয়ে আগামীকাল মুক্তির অপেক্ষায় থাকা ‘সুপার ৩০’-এ দেখা যাবে তাঁকে। নানা কারণে বিতর্কিত ছবিটি নিয়ে লিখেছেন মামুনুর রশিদ

১১ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



হৃতিকের অন্য রূপ

১৯ বছরের দীর্ঘ অভিনয়জীবনে রোমাঞ্চ, ড্রামা, সায়েন্স ফিকশন, থ্রিলারসহ নানা ধরনের সিনেমা করেছেন। তবে বায়োপিক কখনো করা হয়নি হৃতিক রোশানের। এবারই প্রথম কারো জীবন অবলম্বনে তৈরি ছবি করবেন অভিনেতা। তাও আবার ভারতের বিখ্যাত গণিতজ্ঞ আনন্দ কুমারের চরিত্রে। আনন্দ বিহারের ছেলে। ১৯-২০ বছর ধরে গরিব শিক্ষার্থীদের আইআইটি [ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি] পরীক্ষার জন্য সম্পূর্ণ বিনা মূল্যে প্রশিক্ষণ দিয়ে আসছেন। তাঁর এই প্রশিক্ষণের নাম ‘সুপার ৩০’। দুই দশক আগে প্রথম ৩০ জন ছেলেমেয়েকে বাড়িতে রেখে পড়িয়েছিলেন আনন্দ। আজও বাড়িতেই পড়ান। সারা দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে শিক্ষার্থীরা ভিড় করে তাঁর কাছে। আজ পর্যন্ত কারো কাছ থেকে এক পয়সাও নেননি। তবে কাজটা সহজ ছিল না মোটেও। এই অবৈতনিক শিক্ষা কার্যক্রম চালু রাখার জন্য লড়তে হয়েছিল মাফিয়াদের সঙ্গে। পড়তে হয়েছিল রাজনীতিবিদদের তোপের মুখে। এখন পর্যন্ত ৫১০ জন শিক্ষার্থীকে পড়িয়েছেন আনন্দ, যাদের মধ্যে ৪৪০ জনই আইআইটিতে সুযোগ পেয়েছে! তাঁর এই অর্জন নিয়ে যখন সিনেমা নির্মাণের কথা উঠল, নিজের চরিত্রে রূপদান করার জন্য হৃতিক রোশানকে বাছাই করেন আনন্দ স্বয়ং। তবে পর্দায় অ্যাকশন হিরো, রোমান্টিক হিরো হিসেবে হৃতিককে দেখতে অভ্যস্ত মানুষ। অভিনেতার জন্য এ চরিত্র করা ছিল ভীষণ কঠিন। তবে চ্যালেঞ্জটা নিয়েছিলেন তিনি। চরিত্রটি বোঝার জন্য চিত্রনাট্য ছাড়াও আনন্দ কুমারের লেখা বই পড়েছেন। দফায় দফায় তাঁর সঙ্গে দেখা করেছেন। বিহারি উচ্চারণ রপ্ত করেছেন দুই মাস ধরে। এত কষ্টের ফলও মিলেছে। সিনেমার ফার্স্ট লুক পোস্টারে হৃতিককে দেখে অবাক বনে গিয়েছিলেন সবাই। তাঁকে দেখতে অবিকল কলেজজীবনের আনন্দ কুমারের মতোই লাগছিল। এ নিয়ে টুইট করেন আনন্দও। ট্রেলার মুক্তির পর তো রীতিমতো ঝড়ই বয়ে গিয়েছিল নেট দুনিয়ায়। হৃতিককে দেখে আবেগাপ্লুত হয়ে ওঠেন আনন্দের মা, চরিত্রটির এতটাই নিখুঁত রূপায়ণ করেছেন অভিনেতা।

তবে মুক্তির আগেই একাধিক বিতর্ক জুটেছে ‘সুপার ৩০’-এর কপালে। প্রথম কারণ অবশ্যই বিকাশ বেহেল। পরিচালকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানি নিয়ে অনেক বিতর্ক হয়েছে গেল বছর। বলা যায়, সে প্রসঙ্গ এড়াতেই ছবির মুক্তি পিছিয়ে দেওয়া হয়েছিল। মুক্তির আগে পাত্র-পাত্রীরা দর্শকদের অনুরোধ করেছেন বিতর্ক এড়িয়ে ছবিটি দেখতে। ছবিতে দাবি করা হয়েছে, ‘সুপার ৩০’ প্রশিক্ষণের আইডিয়া একা আনন্দরই ছিল। তবে অভায়ন্দ বলে একজন দাবি করেছেন, শুরুর দিনগুলোতে তিনিও আনন্দর সঙ্গে কাজ করেছেন, যুগান্তকারী এই আইডিয়া দুজনেরই। এ নিয়ে অবশ্য নির্মাতারা কোনো প্রতিক্রিয়া দেখাননি।

ছবিতে হৃতিকের বিপরীতে অভিনয় করেছেন ম্রুনাল ঠাকুর।

মন্তব্য