kalerkantho

সোমবার । ২২ জুলাই ২০১৯। ৭ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৮ জিলকদ ১৪৪০

'শ'তে শর্মীমালা

দ্বিতীয় ছবিতেই মাত করলেন। 'মৃত্তিকা মায়া'-তে অভিনয়   

১৯ মার্চ, ২০১৫ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



'শ'তে শর্মীমালা

শিল্পকলা একাডেমিতে বন্ধু জয়িতার সঙ্গে শেয়ারে খাবারের দোকান দিয়েছেন শর্মীমালা। দোকানের নাম, 'হেঁশেল'। সন্ধ্যা গড়াতেই ভিড়ভাট্টা জমে উঠেছে। খদ্দেররা আসছেন, যাচ্ছেন, খাচ্ছেন। ক্যাশে বসে হিসাব কষছেন শর্মীমালা। যোগ-বিয়োগের হিসাবের পাট চুকিয়ে হাসিমুখে এগিয়ে এলেন। বেঞ্চিতে বসতেই ওয়েটার কড়া লিকারে দুই কাপ চা দিয়ে গেল। চায়ে চুমুক দিতে দিতে শোনালেন অভিনয়ের হিসাব-নিকাশ। শুরুতেই 'মৃত্তিকা মায়া'। ছবিতে নাম লেখালেন কিভাবে? চায়ের কাপটা টেবিলে রেখে বললেন, "২০১১ সালে 'ডে পিকক' নাটকে অভিনয় করতে গিয়েই গাজী রাকায়েত ভাইয়ের সঙ্গে আমার যোগাযোগটা বাড়ে। নাটকটির রিহার্সেলেই তিনি বলেছিলেন, 'আমি একটা সিনেমা বানাব, সেখানে তুমি কাজ করতে পার।' তারপরই নাম লেখালাম মৃত্তিকা মায়ায়।"

২০১৩ সালের ৬ সেপ্টেম্বর ছবিটি মুক্তি পায়। নিজের ঝুপড়িতে থাকা সবটুকু কারিশমা দেখিয়েছেন দর্শকদের। তার ফলও পেয়েছেন। পেলেন রাষ্ট্রীয় পুরস্কার। ১০ মার্চ বিকেলে ছবির পরিচালক গাজী রাকায়েতের ফোন, 'মৃত্তিকা মায়ায় অভিনয়ের জন্য তুমি শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর পুরস্কার পেয়েছ', শুনে শর্মী যেন আকাশ থেকে পড়লেন! প্রথমে ভাবলেন পরিচালক তাঁর সঙ্গে ফান করছেন। 'কী! আমি চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছি?' কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই বন্ধুবান্ধব জেঁকে ধরল। এখনো নিজেকে বিশ্বাস করাতে পারছেন না। অনেকটা ঘোরের মধ্যেই তাঁর দিন কাটছে। অনেকে যেখানে যুগ যুগ ধরে অভিনয় করেও জাতীয় পুরস্কারের ধার ঘেঁষতে পারেননি সেখানে দ্বিতীয় ছবিতেই বাজিমাত করলেন শর্মী। জীবনের প্রথম ছবি গৌতম ঘোষের 'মনের মানুষ'-এ মাত্র আড়াই মিনিটের উপস্থিতি। 'মৃত্তিকা মায়া'র পর আরো কয়েকটি ছবিতে অভিনয় করেছেন শর্মী-আবু শাহেদ ইমনের 'জালালের গল্প' ও শাহনাজ কাকলীর 'নদী জল' সেন্সর ছাড়পত্র পেয়েছে। বুসান উৎসবে জালালের গল্পের প্রিমিয়ারও হয়েছে। শিগগিরই মুক্তি পাবে দেশে।

বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় টুকটাক মঞ্চে কাজ করলেও পুরোদমে কাজ শুরু করেন ২০০৬ সালে। যোগ দেন পালাকার নাট্যদলে। আমিনুর রহমান মুকুলের 'তাইর আলীর বুকে মিজু মুন্সির পাও' নাটকে তাইর আলীর ৬০ বছর বয়সী মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেন। এরপর একে একে 'ডাকঘর', 'মানগুলা', 'মৃত্তিকাকুমারী', 'বাংলার মাটি বাংলার জল', 'বিসর্জন', 'বায়ান্ন বাজার তিপ্পান্ন গলি', 'জুলিয়াস সিজার', 'রোমিও অ্যান্ড জুলিয়েট' ও 'সোনাটা'সহ আরো কয়েকটি নাটকে অভিনয় করেন। টেলিভিশনে প্রথম ক্যামেরার সামনে আসেন মান্নান হীরার রচনা ও আমিনুর রহমান মুকুলের পরিচালনায় 'বকুল ফুল' নাটকে। বেছে বেছে কাজ করতে পছন্দ করেন শর্মীমালা। তাই দীর্ঘ অভিনয় জীবনে তাঁর নাটক হাতেগোনা। দিনকয়েক আগে করেছেন বদরুল আনাম সৌদের 'পিঞ্জর' ও নিয়াজ মাহমুদের 'কালো মখমল'। বর্তমানে কাজ করছেন আফসানা মিমির 'সাতটি তারার তিমির' ও গোলাম সোহরাব দোদুলের 'হল্লাবাজি' ধারাবাহিকে।

 

 

 

মন্তব্য