kalerkantho

শুক্রবার । ১৪ মাঘ ১৪২৮। ২৮ জানুয়ারি ২০২২। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

মানসম্পন্ন টিভিকেই প্রাধান্য দিচ্ছেন ক্রেতারা

রাশেদুল তুষার, চট্টগ্রাম   

২১ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



মানসম্পন্ন টিভিকেই প্রাধান্য দিচ্ছেন ক্রেতারা

ড্রয়িংরুম সাজাতে সুন্দর টিভিকেও অনেকে গুরুত্ব দেন

একটা সময় চট্টগ্রামের টেলিভিশনের বাজার ছিল মূলত নিউ মার্কেটকেন্দ্রিক। এই বিপণিবিতানের চতুর্থ তলার পুরো অংশই ছিল ইলেকট্রনিক পণ্যে ভরপুর। তবে কালের পরিবর্তনে বর্তমানে শহরের আনাচে-কানাচে ছড়িয়ে পড়েছে ইলেকট্রনিকস পণ্যের প্রদর্শনীকেন্দ্র। বিশেষ করে বিভিন্ন ধরনের কিস্তি সুবিধা দিয়ে উচ্চবিত্তের বিলাস পণ্য টেলিভিশন এখন বস্তিবাসীর ঘরেও পৌঁছে গেছে।

বিজ্ঞাপন

বাংলাদেশে টেলিভিশন যুগ শুরু হওয়ার পর থেকেই দীর্ঘদিন রাজত্ব করেছে সিআরটি (ক্যাথোড রে টিউব) টিভি। মাঝে কিছুদিন এলসিডি দাপট দেখালেও চট্টগ্রামের পুরো টেলিভিশন বাজার এখন এলইডি টিভির দখলে। বাজার থেকে সিআরটি ও এলসিডি টিভি প্রায় হারিয়েই গেছে। বর্তমানের স্যাটেলাইট যুগে ঝকঝকে ছবি, শব্দের উৎকর্ষতা, আভিজাত্য বিবেচনায় এখন দাপট দেখিয়ে যাচ্ছে এলইডি টিভি। তবে এখানেও থাকছে শ্রেণি বিভাজন। বিভিন্ন সুবিধার মারপ্যাঁচে স্মার্ট, এনড্রয়েড আর ফোরকে কোয়ালিটিতে বিভক্ত হয়ে ক্রেতাদের আকর্ষণে নিজেদের সাজিয়েছে।

টিভির জগতে দেশি ব্র্যান্ডের আধিপত্য রয়েছে। গুণগত মান আর ঝলমলে ছবির জন্য চট্টগ্রামে গ্লোবাল ব্র্যান্ডের মধ্যে স্যামসাং, সনি, তোশিবা, প্যানাসনিক, এলজি ব্র্যান্ডের টিভির দিকেই ক্রেতাদের ঝোঁক বেশি। এ ছাড়া দামের বিবেচনায় দেশি ব্র্যান্ডের ক্ষেত্রে ওয়ালটন, মিনিস্টার, ভিশন কিংবা হেয়ার ব্র্যান্ডে আস্থা রাখছেন ক্রেতারা।

বিভিন্ন টেলিভিশন বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বাজারে বর্তমানে ৩২ ইঞ্চির নিচে টিভি নেই। শুধু ওয়ালটন ও মিনিস্টার ব্র্যান্ড এখনো কিছু ২৪ ইঞ্চি মডেলের টিভি বাজারজাত করছে নিম্নবিত্তদের কথা মাথায় রেখে। চট্টগ্রামের জামালখান এলাকায় র‌্যাংসের শোরুমে কথা বলে জানা যায়, এই বিক্রয় কেন্দ্রে ৩২ ইঞ্চি থেকে সর্বোচ্চ ৭৫ ইঞ্চি পর্যন্ত টিভি রয়েছে বিক্রির জন্য। মডেলভেদে ২৬ হাজার ৯০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ দুই লাখ ৭৫ হাজার ৯০০ টাকায় দাম ধরা হয়েছে। জানতে চাইলে র‌্যাংগস ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের রিজিওনাল সেলস ম্যানেজার মো. মহসিন উদ্দিন চৌধুরী কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘যাঁরা গুণগতমানের কথা চিন্তা করেন তাঁরা স্বাভাবিকভাবে বৈশ্বিক ব্র্যান্ডের টিভিকেই প্রাধান্য দেন। ’

তিনি বলেন, ‘বৈশ্বিক ব্র্যান্ডের টিভিগুলো সরাসরি আমদানি করা হয়। সারা বছর টিভি বিক্রি হলেও বিশ্বকাপ ফুটবল, বিশ্বকাপ ক্রিকেট, বিভিন্ন উৎসব, শীতকালীন অফারে বিভিন্ন ছাড়ের সুযোগ নিতে ক্রেতারা এ সময়টার জন্য মুখিয়ে থাকেন। ’

টেলিভিশন কেনার সময় এখন ক্রেতারা দামের চেয়ে কোয়ালিটির মূল্যায়ন করেন বেশি। ক্রেতাদের মধ্যে আগের চেয়ে এখন দামি পণ্য কেনার প্রবণতা বেড়েছে। এ ক্ষেত্রে ক্রেডিট কার্ডের একটা বড় অবদান রয়েছে বলে মনে করেন বিক্রেতারা। কিস্তি সুবিধা (ইএমআই), বিনা সুদে কিস্তিসহ (ফ্লেক্সিবাই) বিভিন্ন নামে ক্রেতাদের সুবিধা অনুযায়ী সর্বোচ্চ ৩৬ মাসের কিস্তির অফারে দামি পণ্যকেও হাতের নাগালে নিয়ে এসেছে। এ ছাড়া কম্পানিগুলোও আলাদা করে নিজেদের নীতিমালা অনুযায়ী, সামান্য সুদে কিস্তি সুবিধা দিচ্ছে

ক্রেতাদের।

কিছুদিন আগে ওয়াসা মোড়ের র‌্যাংগস ইলেকট্রনিকস শোরুম থেকে সনি ব্র্যান্ডের ৪৩ ইঞ্চি ফোরকে মডেলের এলইডি টিভি নিয়েছেন বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা আলমগীর মিলন। ৬৯ হাজার টাকায় টিভি কেনা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘মেয়ের আবদারে আমেরিকান এক্সপ্রেসের ক্রেডিট কার্ড দিয়ে ১২ মাসের ফ্লেক্সিবাই সুবিধায় টিভিটি কিনেছি। পুরো টাকাটা ক্যাশ দিতে হলে হয়তো এত দামে টিভি কেনা সম্ভব হতো না। কিন্তু ক্রেডিট কার্ডধারীদের জন্য এই সুবিধাটা থাকার কারণে মধ্যবিত্তরাও কোয়ালিটি পণ্য কেনার সুযোগ পাচ্ছেন। এই টিভিতে অ্যাপস ডাউনলোড সুবিধা এবং ওয়াইফাই কানেকশন সুবিধা থাকার কারণে টিভি দেখার ক্ষেত্রেও বৈচিত্র্যের অবারিত স্বাধীনতা রয়েছে। ’

চট্টগ্রামের ওয়াসা মোড়ে চাইনিজ হেয়ার ব্র্যান্ডের শোরুমে কথা হয় হেয়ার বাংলাদেশ লিমিটেডের রিজিওনাল সেলস হেড রাজীব ধরের সঙ্গে। এই ব্র্যান্ডটির বিশেষত্ব হলো, ক্রেতাকে ছয় মাসের রিপ্লেসমেন্ট সুবিধা দিচ্ছেন তাঁরা। রাজীব ধর বলেন, ‘একসময় ২৪ ইঞ্চি ও ৩২ ইঞ্চি টিভি বেশি চলত। এখন তো বেশির ভাগ কম্পানি ২৪ ইঞ্চি বাজারজাত বন্ধ করে দিয়েছে। তাই ৩২ ও ৪৩ ইঞ্চি টিভিই ক্রেতাদের প্রধান আকর্ষণ। আর এসব টিভির প্রধান ক্রেতা মূলত মধ্যবিত্ত ও উচ্চবিত্তরা। ’ তবে আগামী বছর প্রায় সব কম্পানি টিভির দাম কমিয়ে আনবে বলে তিনি মনে করেন। বর্তমানে হেয়ার ব্র্যান্ডের সব টেলিভিশন চীন থেকে আমদানি করা হলেও আগামী বছর থেকে ঢাকার গাজীপুরে নিজস্ব কারখানায় সংযোজন করবে। এরই মধ্যে সেখানে কারখানা স্থাপন করা হয়েছে বলে তিনি জানান।