kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

বাফেটের হাজার কোটি ডলারের ভুল

বাণিজ্য ডেস্ক   

৪ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাফেটের হাজার কোটি ডলারের ভুল

এখনো মাঝেমধ্যে ভুল করেন বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ বিলিয়নেয়ার ওয়ারেন বাফেট। সম্প্রতি আরেকটি বড় ভুলের কথা স্বীকার করে তিনি জানান, একটি কম্পানি কিনে তাঁকে চড়া মূল্য দিতে হয়েছে। তাঁর কম্পানি বার্কশেয়ার হেথাওয়ে ২০১৬ সালে তিন হাজার ২০১ কোটি ডলারে উড়োজাহাজ ও শিল্প যন্ত্রাংশ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান প্রিসিজন ক্যাস্টপার্টস করপোরেশন ক্রয় করে। এটাই ছিল তাঁর প্রতিষ্ঠানের সবচেয়ে বড় ক্রয় এবং এটাকেই বাফেট বড় ভুল বলছেন। ২০২০ সালে করোনা মহামারিতে বিমান ভ্রমণ সীমিত হয়ে পড়ায় এই কম্পানির পণ্য বিক্রিতে ধস নামে। এতে কম্পানিটির বাজার মূল্য পড়ে যাওয়ায় গত আগস্টে বার্কশেয়ারকে গচ্চা দিতে হয় ৯৮০ কোটি ডলার।

বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশে দেওয়া বার্ষিক চিঠিতে বাফেট লিখেন, ‘একটি দারুণ কম্পানি কিনেছিলাম, ব্যবসায় ভালো করছিল। এমনকি বার্কশেয়ার ভাগ্যবান যে প্রিসিজনের প্রধান নির্বাহী হিসেবে আমরা মার্ক ডনেগানকে পেয়েছিলাম, যিনি এখনো দায়িত্বে আছেন। কিন্তু পিসিসির স্বাভাবিক মুনাফা সম্ভাবনা নিয়ে ছিলাম খুব বেশি আশাবাদী।’

বাফেট লিখেন, ‘ভবিষ্যৎ আয়ের গড় হিসাব করে আমি ভুল করেছি, পরিণতিতে ব্যবসার জন্য আমাকে যে মূল্য দিতে হবে সে হিসাব করার ক্ষেত্রেও আমি ভুল করলাম। যদিও পিসিসি আমার প্রথম ভুল নয় কিন্তু এটি বড় একটি ভুল।’ বার্কশেয়ারের তথ্য অনুযায়ী, করোনা মহামারিতে ক্ষতিগ্রস্ত প্রিসিজন ২০২০ সালে ১৩ হাজার ৪০০ কর্মী ছাঁটাই করে, যা মোট শ্রমশক্তির ৪০ শতাংশ। বর্তমানে ব্যবসার কিছুটা উন্নতি হচ্ছে।

দুই বছর আগে বাফেট স্বীকার করে বলেছিলেন, ক্র্যাফট ফুডসের জন্য তাঁকে অতিরিক্ত গচ্চা দিতে হয়েছে। ২০০৮ সালে বার্ষিক চিঠিতে বাফেট ১৯৯৩ সালে ডেক্সটার শো ক্রয়কে সবচেয়ে বাজে চুক্তি হিসেবে অভিহিত করেছিলেন। বলেছিলেন, তিনি একটি মূল্যহীন ব্যবসা ক্রয় করেছেন।

সর্বশেষ চিঠিতে বাফেট আরো লিখেন, ‘ভবিষ্যতে আমি আরো অনেক ভুল করব—এ ব্যাপারে আপনি বাজি ধরতে পারেন।’ বাফেটের এই সরল স্বীকারোক্তিকে স্বাগত জানিয়েছেন বার্কশেয়ারের দীর্ঘ সময়ের বিনিয়োগকারী টম রুশো। তিনি বলেন, ‘আমি বাফেটের প্রশংসা না করে পারছি না, কারণ তিনি প্রিসিজন ক্যাস্টপার্টস করপোরেশনের দায় নিজের কাঁদে তুলে নিয়েছেন। এমন ব্যবস্থাপক খুব কমই আছেন, যাঁরা অন্যের ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে না দিয়ে নিজেই ব্যক্তিগতভাবে দায় নেন।’ সূত্র : রয়টার্স।