kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ মে ২০১৯। ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৫ রমজান ১৪৪০

গ্রীন লাইফ মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটাল

চিকিৎসায় আস্থা ও নির্ভরতা

৪ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৫ মিনিটে



চিকিৎসায় আস্থা ও নির্ভরতা

ঢাকার গ্রিন রোডে অবস্থিত গ্রীন লাইফ মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটাল। এটি নিজস্ব ১৫ তলা ভবনে প্রতিষ্ঠিত। ২০০৬ সালে ৫০০ বেডের অত্যাধুনিক এই হাসপাতালের যাত্রা শুরু হয়েছে। দেশের সেরা বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মাধ্যমে উন্নত চিকিৎসাসেবা প্রদানে হাসপাতালটির বেশ সুনাম রয়েছে

 

বিভাগসমূহ

গ্রীন লাইফ মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হসপিটালে ২৪ ঘণ্টা চালু আছে জরুরি বিভাগ (অ্যাকসিডেন্ট অ্যান্ড ইমার্জেন্সি)। রয়েছে বহির্বিভাগ, অত্যাধুনিক কার্ডিয়াক ইমার্জেন্সি, হৃদরোগ বিভাগ ও বিশেষায়িত সিসিইউ, আইসিইউ, এইচডিইউ, নিউরোকেয়ার বিভাগ, ভ্যাকসিনেশন সেন্টার, গাইনি-প্রসূতি ও ইনফার্টিলিটি, জেনারেল সার্জারি, ল্যাপারোস্কোপিক ও এন্ডোল্যাপারোস্কোপিক সার্জারি, মেডিসিন, রিউম্যাটোলজি, গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজি, নাক-কান-গলা, হেড-নেক সার্জারি বিভাগ, কিডনি ও ইউরোলজি এবং ডায়ালিসিস বিভাগ, শিশু স্বাস্থ্য ও পুষ্টি, শিশু-কিশোর সার্জারি, বক্ষব্যাধি ও থোরাসিক সার্জারি, নিউরোমেডিসিন ও নিউরোসার্জারি, অর্থোপেডিক (টোটাল হিপ অ্যান্ড নি রিপ্লেসমেন্ট) সার্জারি, প্লাস্টিক সার্জারি, ভাসকুলার সার্জারি, ক্যান্সার বিভাগ, ডেন্টাল ও ম্যাক্সিলোফেসিয়াল সার্জারি বিভাগ, চক্ষুরোগ ও চক্ষু সার্জারি বিভাগ ইত্যাদি।

 

চিকিৎসক

বিশিষ্ট চিকিৎসকদের মধ্যে রয়েছেন জাতীয় অধ্যাপক ডা. শাহ্লা খাতুন, অধ্যাপক এ বি এম আবদুল্লাহ, অধ্যাপক প্রাণ গোপাল দত্ত, অধ্যাপক শামসুদ্দিন আহমেদ, অধ্যাপক সৈয়দ আতিকুল হক, অধ্যাপক আর আর কৈরী, অধ্যাপক খন্দকার আব্দুল আউয়াল রিজভী, অধ্যাপক এ কে এম আনোয়ার উল্লাহ, অধ্যাপক জামানুল ইসলাম ভূঁইয়া, অধ্যাপক এ কে এম খুরশিদুল আলম, অধ্যাপক মুহা. রফিকুল আলম, অধ্যাপক আব্দুল ওয়াদুদ চৌধুরী, অধ্যাপক এ টি এম খলিলুর রহমান, অধ্যাপক এ এইচ এম তৌহিদুল আলম, অধ্যাপক নিশাত বেগম, অধ্যাপক আবুল খায়ের, অধ্যাপক মো. আলী হোসেন, অধ্যাপক এম. মোয়াররফ হোসেন, অধ্যাপক আশরাফুল হক (কাজল), অধ্যাপক গোলাম মহিউদ্দীন আকবর চৌধুরী, অধ্যাপক এ কে এম রাজ্জাক, অধ্যাপক শরিফুন্নাহার প্রমুখ।

 

আউটডোর

৫০, ১০০, ১৫০ ও ২০০ টাকার বিনিময়ে আউটডোর বা বহির্বিভাগে রোগী দেখানো যায়। বহির্বিভাগ চালু থাকে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত। বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের চেম্বার চালু থাকে সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা এবং বিকেল ৩টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত, যাতে প্রতিদিন ৭০০ থেকে ৮০০ রোগীকে চিকিৎসা পরামর্শ দেওয়া হয়। ব্যক্তিগত চেম্বারে ৩০০ থেকে ১০০০ টাকায় রোগী দেখা হয়।

 

খরচ

খাবারসহ ২০০০ টাকা থেকে বেডভাড়া শুরু। টুইন শেয়ারড কেবিন ভাড়া ২৯০০ টাকা। সিঙ্গল কেবিন ভাড়া ৬৩০০ টাকা। সিঙ্গল ডিলাক্স বা স্যুট ভাড়া ৭৫০০ থেকে ৮৫০০ টাকা।

এখানে রয়েছে ২০ বেডের জেনারেল আইসিইউ, যার প্রতি বেডের ভাড়া ৯৫০০ টাকা, ১২ বেডের সিসিইউতে বেডভাড়া ৬৫০০ টাকা, ১০ বেডের এনআইসিইউতে বেডভাড়া ৫৫০০ টাকা, পাঁচ বেডের পিআইসিইউর ভাড়া ৩৭০০ থেকে ৯০০০ টাকা।

 

গরিব ও দুস্থ রোগীদের জন্য

গরির ও হতদরিদ্র রোগীদের জন্য ৬০টি বেড রয়েছে, যার মাধ্যমে শতভাগ বিনা মূল্যে চিকিৎসা দেওয়া হয়। এটি হাসপাতালের ১৩ তলায় অবস্থিত। এখানে ভর্তি রোগীদের কোনো চিকিৎসক ফি লাগে না। এ ছাড়া পরীক্ষা-নিরীক্ষায়ও ৫০ শতাংশ ছাড় দেওয়া হয়।

 

ল্যাবরেটরি সার্ভিস

বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য এখানে রয়েছে উন্নত মানের ল্যাবরেটরি। এখানে কোলনোস্কোপি, কলপোস্কোপি, ইটিটি, ইইজি, ইএমজি, এনসিভি, বিএমডি, এক্স-রে, ওপিজি, পোর্টেবল এক্স-রে, আল্ট্রাসাউন্ড, ইকো, পোর্টেবল ইকো, ইসিজি, ইউরোফ্লোমেট্রি, সিটি স্ক্যান, এমআরআই প্রভৃতি পরীক্ষা-নিরীক্ষার ব্যবস্থা রয়েছে। এ ছাড়া রয়েছে মোট ১৩টি অপারেশন থিয়েটার। রয়েছে সি-আর্ম অপারেটিং মাইক্রোস্কোপ, ল্যাপারোস্কোপ, অর্থোস্কোপ, সনোপেট, ইস্কিটার, হারমোনিক, মানমারসহ সর্বাধুনিক যন্ত্রপাতি। ল্যাবরেটরি সার্ভিস ২৪ ঘণ্টাই খোলা থাকে।

 

হেলথ চেকআপ প্যাকেজ

এই হাসপাতালে রয়েছে ১১ ধরনের হেলথ চেকআপ প্যাকেজ। জুনিয়র এক্সিকিউটিভ প্যাকেজ ৩২০০ টাকা, সিনিয়র এক্সিকিউটিভ প্যাকেজ ৬৩০০ টাকা, পঞ্চাশোর্ধ্ব পুরুষের জন্য ৯০০০ টাকা, প্রাপ্তবয়স্ক নারীদের জন্য ৫২০০ থেকে ৮০০০ টাকা, পালমোনারি চেকআপ ২৫০০ টাকা, রেনাল চেকআপ প্যাকেজ ৪২০০ টাকা, গ্যাস্ট্রোইনটেস্টিনাল চেকআপ ৫০০০, ডায়াবেটিক চেকআপ ৫০০০ টাকা, ওবিসিটি স্ক্রিনিং প্যাকেজ ৫০০০ টাকা, হোল বডি চেকআপ ১০০০০ টাকা, জয়েন্ট পেইন অ্যান্ড আর্থ্রাইটিস চেকআপ ৩৪০০ টাকা।

 

অন্যান্য

সম্প্রতি চালু হওয়া হার্ট সেন্টারে রয়েছে অত্যাধুনিক কার্ডিয়াক ইমার্জেন্সি, হৃদরোগ বহির্বিভাগ ও বিশেষায়িত সিসিইউ। সর্বাধুনিক মডেলের ক্যাথল্যাব মেশিনে এনজিওগ্রামসহ হার্টের সব প্রসিডিউর, ইকোকার্ডিওগ্রাম, ইটিটি, ইসিজি ও হল্টার ইসিজি করার ব্যবস্থা আছে এখানে। রয়েছে ২৪ ঘণ্টা ইমার্জেন্সি সার্ভিস ও ইমার্জেন্সি ওটি, ইমার্জেন্সি অবজারভেশন, নিজস্ব ব্লাড ব্যাংক ও ইনডোর ফার্মেসি, ব্রেস্ট ফিডিং, নিউট্রিশন সার্ভিস, ফিজিওথেরাপি সেন্টার, ক্যাফেটেরিয়া, কার পার্কিং, মরচুয়ারি ইত্যাদি।

ঢাকা শহরের মধ্যে ৩৫০ থেকে ১২০০ টাকা এবং ঢাকার বাইরের জন্য দূরত্ব অনুযায়ী ভাড়া দিয়ে অ্যাম্বুল্যান্স সার্ভিস পাওয়া যায়। তবে ক্ষেত্রবিশেষে বিশেষ ছাড় দেওয়া হয়।

হাসপাতালের চিকিৎসক বা সার্ভিস সম্পর্কে কোনো অভিযোগ থাকলে যথাযথ কর্তৃপক্ষ বরাবর জানালে বিশেষ ব্যবস্থা নেওয়া হয়।

 

কর্তৃপক্ষের বক্তব্য

হাসপাতালের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ডা. মো. মঈনুল আহসান বলেন, ‘বাংলাদেশের সেরা চিকিৎসক, অভিজ্ঞ নার্সিং স্টাফ নিয়ে আমরা বিশ্বমানের সেবা দিয়ে যাচ্ছি। টাকাই সব নয়; বরং আমাদের কাছে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকারের বিষয় হলো রোগীর চিকিৎসা ও সেবা। এই হাসপাতালে টাকার অভাবে যেন কোনো মানুষ চিকিৎসাবঞ্চিত না হয়, এটা আমাদের প্রতিজ্ঞা।’

 

যোগাযোগের ঠিকানা

৩২ বীর-উত্তম কে এম সফিউল্লাহ সড়ক (গ্রিন রোড)

ধানমণ্ডি, ঢাকা-১২০৫।

হটলাইন : ০১৬১৮৮০০০৮৮, ০১৩০৪০২২৭৭১

টেলিফোন : ৯৬১২৩৪৫ হান্টিং (২০টি লাইন)

ডাক্তারদের অ্যাপয়েন্টমেন্ট ০১৬১৮৮০০০৮৮/০১৩০৪০২২৭৭১

৯৬১২৩৪৫/২৫১-২৫২

অন্যান্য নম্বর : জরুরি বিভাগ ০১৭৫৫৬৮৪০৯০, ভর্তি ও বিলের তথ্য : ০১৮২৬৮০৮৯৯৯, আইসিইউ ০১৭১৩০৮৩৭০৭, সিসিইউ ০১৪০১২৬২২০০, এনআইসিইউ ০১৭৫৮৭৭৯৫১৯, ক্যাথল্যাব ০১৩০৬৬৮৩০২৬, অপারেশন থিয়েটার ০১৭৫৭১০৭৩৬৬।

ই-মেইল : [email protected]

ওয়েবসাইট : www.gmch-bd.com

মন্তব্য