kalerkantho

শনিবার । ২০ জুলাই ২০১৯। ৫ শ্রাবণ ১৪২৬। ১৬ জিলকদ ১৪৪০

কেমিক্যাল ফ্রি

সোহেল রানা

৯ জুলাই, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



কেমিক্যাল ফ্রি

পাড়ার সবচেয়ে বুদ্ধিমান ছেলে মফিজ। এতটাই বুদ্ধিমান যে তাকে এলাকার সবাই মফিজ পণ্ডিত নামে ডাকত। লেখাপড়া খুব বেশি একটা না করলেও তার বুদ্ধিমত্তায় অনেকেই বিস্মিত। সেই মফিজ পণ্ডিত এবার আমের ব্যবসা করার সিদ্ধান্ত নিল। তার ইচ্ছা, আমের মৌসুমে ব্যবসা করে যদি বাড়তি কিছু আয় করা যায় তাহলে ক্ষতি কিসের।

বাবা আবুলের কাছে থেকে কিছু টাকা নিয়ে ব্যবসা শুরু করল মফিজ। বাজারের এক পাশে একটা ভ্যানগাড়িতে বাগানের সুন্দর সুন্দর আম এনে একটা ব্যানার টাঙাল সে। ব্যানারে স্পষ্টাক্ষরে বড় করে লেখা, ‘কেমিক্যাল ফ্রি’ আর তার পাশে লেখা ‘মিথ্যা প্রমাণে এক হাজার টাকা পুরস্কার।’

ব্যানারে এমন ধরনের লেখা দেখে ক্রেতার সংখ্যা বাড়তে থাকল তার। বাজারের অন্যদের আম বিক্রি না হলেও মফিজ আম আনা মাত্রই ফুরিয়ে যায়। মফিজের এ রকম রমরমা ব্যবসা দেখে দিন দিন শত্রুর সংখ্যা বাড়তে থাকল। নিজেদের ব্যবসায় টিকে থাকার জন্য মফিজ পণ্ডিতকে কিভাবে দমানো যায়, সেই কুবুদ্ধি আঁটতে থাকল সবাই।

হঠাত্ একদিন মফিজের ভ্যানগাড়ির সামনে একজন লোক হৈচৈ করে মফিজকে মিথ্যাবাদী বলে গালাগাল করতে থাকল। একজন-দুইজন করতে করতে লোকসংখ্যা বাড়তে থাকল। কেউ যে কিছু জিজ্ঞেস করবে, তা বলার সুযোগই পাচ্ছিল না। অনেক কষ্টে যখন লোকটিকে শান্ত করা গেল, তখন তাকে ঘটনা কী জানতে চাওয়া হলে তিনি বললেন, ‘যে মফিজ পণ্ডিত কেমিক্যাল ফ্রি বলে ব্যানার টাঙিয়ে আম বিক্রি করে আমাদের ব্যবসা লাটে তুলেছে, সেই মফিজের আমেই সবচেয়ে বেশি কেমিক্যাল পাওয়া গেছে। এখন থেকে তাকে মফিজ পণ্ডিত না বলে মফিজ বাটপার বলা উচিত।’

লোকটির কথা শুনে সবাই অবাক। এখানে এমন কেউ নাই যে তারা মফিজের কাছ থেকে আম কেনেনি। তারা সবাই রেগে গেল এবং মফিজকে বলল, ‘তুমি কাজটা ভালো করে নাই মফিজ। তার পরও তুমি যেহেতু কাজটা করেছ, সেহেতু তোমার ঘোষণা মতে সবাইকে এক হাজার টাকা করে পুরস্কার তোমাকে দিতেই হবে। আর এটাই হবে তোমার বাটপারির শাস্তি।’

অন্যদের কথা শুনে মফিজ হাসতে থাকল। হাসির কারণ জানতে চাইলে মফিজ বলল, ‘আপনারা যখন আমার কাছে আম কিনেছেন, তখন তো আপনাদের কাছ থেকে শুধু আমের টাকাটাই নিয়েছি, তাই নয় কি?’

মফিজের কথার উত্তরে সবাই বলল, ‘আম কিনলে তো আমের টাকাই নিবা, তোমাকে আবার অন্য কিসের টাকা দেব?’

মফিজ এবার বলল, ‘আমার আমে কেমিক্যাল দিতে যে টাকা লেগেছে, সেই টাকা আমি ক্রেতাদের কাছে না নিয়ে সম্পূর্ণ ফ্রিতে দিয়েছি। তাই আমি ব্যানারে লিখেছি কেমিক্যাল ফ্রি। অর্থাত্ আম কিনলে ফ্রিতে কেমিক্যাল পাওয়া যাবে, কেমিক্যালের জন্য বাড়তি কোনো টাকা নেওয়া হবে না।’

মফিজের কথা শুনে সবাই হতবাক। কারো মুখে কথা নেই। এই সুযোগে মফিজ আমের ভ্যান নিয়ে ‘আম কিনলে কেমিক্যাল ফ্রি, মিথ্যা প্রমাণে এক হাজার টাকা পুরস্কার’ বলতে বলতে অন্যদিকে হাঁটা শুরু করল।

মন্তব্য