kalerkantho

শুক্রবার । ২৪ মে ২০১৯। ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৮ রমজান ১৪৪০

ব্যবহারকারীর ব্যবচ্ছেদ

কর্মকাণ্ডের ওপর ভিত্তি করে ফেসবুক ব্যবহারকারীদের বেশ কয়েকটি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। তাদের সম্পর্কে জানাচ্ছেন মো. হাবিব

২০ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ব্যবহারকারীর ব্যবচ্ছেদ

হা হা হা হায়েনা : এরা কোনো স্ট্যাটাসেই ঠিকমতো পড়ে না। অকারণেই সারা দিন হায়েনার মতো হা হা হাসতে থাকে। তাইতো যেকোনো স্ট্যাটাসেই কমেন্ট করে খঙখ.

 

আন্ডারগ্রাউন্ডের বাসিন্দা : এরা কালেভদ্রে স্ট্যাটাস আপডেট করে। কারো স্ট্যাটাসে কমেন্ট কিংবা লাইক করে না। তবে সারা দিন ফেসবুকে অবস্থান করে এবং সবার স্ট্যাটাস খুব মনোযোগ দিয়ে পড়ে।

 

সকালবেলার মোরগ : এমন একটা দিন নেই, যেদিন তারা সকালে উঠেই ফেসবুকে ‘গুড মর্নিং’ স্ট্যাটাস দেয় না।

 

মি. অ্যান্ড মিসেস পপুলার : কোনো কারণ ছাড়াই এদের ফেসবুক ফ্রেন্ডের সংখ্যা চার হাজার ৭৩৫ জন এবং ফলোয়ারের সংখ্যা পাঁচ হাজার জনেরও ওপরে।

 

অল টাইম গেমার : এদের কাজই হলো সারা দিন ফেসবুকে বসে গেমস খেলা আর ‘ওয়ার্ডস উইথ ফ্রেন্ডস’, ‘মাফিয়া ওয়ার্স’, ‘গার্ডেন অব টাইম’, ‘ফার্ম ভিল’ ইত্যাদি বিচিত্র গেমস বন্ধুদের ইনভাইট করা।

 

প্রোমোটার ব্যবহারকারী : এদের কাজ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ফেসবুক পেজ লাইক করা এবং সেগুলোর লিংক ফ্রেন্ডদের পাঠানো।

 

মাথামোটা চোর : এরা শুধু অন্যের স্ট্যাটাস চুরি করে নিজের নামে চালিয়ে দেয়।

 

আজব : যেকোনো ঘটনায়ই তারা আকাশ থেকে পড়ে এবং সঙ্গে সঙ্গেই ফেসবুকে স্ট্যাটাস আপডেট করে। স্ট্যাটাসটা শুরুই হয় ঙগ েদিয়ে।

 

ড্রামা কিং অথবা কুইন : এদের কাজই হলো নাটকীয়ভাবে একটা স্ট্যাটাস শুরু করা; কিন্তু পুরোটা শেষ না করে ছেড়ে দেওয়া। সবাই বাধ্য হয়েই কমেন্ট করে, ‘কী হয়েছে?’

 

নিউজ চ্যানেল : মিনিটে মিনিটে নিজের দিনলিপি সম্পর্কে অন্যদের জানানো এদের কাজ। এমনকি হাঁচি-কাশি দিলেও সেটি নিয়ে স্ট্যাটাস দিতে ভোলে না। অন্যদিকে বিরক্ত হলো কি না এতে কোনো ভ্রুক্ষেপই নেই তাদের।

 

অল টাইম লাইকার : স্ট্যাটাসটা যা-ই হোক না কেন, লাইক বাটনটা তাদের ক্লিক করাই লাগবে। যেমন কেউ যদি স্ট্যাটাস দেয়—‘আমার ক্যান্সার হয়েছে, ডাক্তার বলেছে আর মাত্র তিন মাস বাঁচব।’ তাহলে সেখানেও দিয়ে বসবে লাইক।

মন্তব্য