kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২০ জুন ২০১৯। ৬ আষাঢ় ১৪২৬। ১৬ শাওয়াল ১৪৪০

ভ্যাংকুভার

সাইফুল্লাহ মাহমুদ দুলাল

৫ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



আমরা আগুনের ভাষা জানি,

আগুনের ভাষায় মিশিয়ে খাই শূকরের মাংস

পুড়ে খাই কড়া সূর্য।

বরফের ভাষা জানি—

বরফজলে ভিজিয়ে কাঁচা মাছ খাই।

ডিঙি ভাসিয়ে দ্বীপপুঞ্জে সামুদ্রিক স্যামন ধরি

তীর-ধনুকে শিকার করি শেয়াল বা বিবার,

মেপলের কষে বানাই নিজস্ব তাড়ি

পান করি আঙুরের রস।

 

প্রশান্ত মহাসাগরের উপকূলে পা দুলিয়ে

আমি আর গ্রাজিয়া

আমাদের পূর্বপুরুষদের গান গাই

যাঁরা নিজ হাতে বর্শা তৈরি করেছেন,

যাঁরা পাথরে পাথর ঘষে—

লাল আগুন আবিষ্কার করেছিলেন

যাঁরা মৃত্যুকে অগ্নি-উসত্ব মনে করেন!

 

থাকি বনাঞ্চলের পাশে—

প্রাগৈতিহাসিক পাহাড়ের গুহায়।

কিন্তু ধর্মনিরপেক্ষ হরিণের মতো—

আমি আর গ্রাজিয়া

মুক্তমাঠে, খোলা আকাশের নিচে সংগম করি

ফ্রেজার নদীতে সাঁতার কাটি জলসংগমে।

আমরা পশুপ্রাণীপাখিমাছদের কাছ থেকেই

শিখেছি সংগমসংগীত।

আমি আর গ্রাজিয়া নিষিদ্ধ গন্দম খাই

গাছ থেকে ছিঁড়ে ছিঁড়ে চেরি খাই

নাতিশীতোষ্ণ ঝর্ণার পারে বসে বনজ চাঁদ দেখি—

আমরা নেটিভ; নেংটো হয়ে

কূলপ্লাবী জোছনায় ঘুরে বেড়াই

আর আমাদের পূর্বপুরুষদের গান গাই।

মন্তব্য