kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ০৫ ডিসেম্বর ২০১৯। ২০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৭ রবিউস সানি ১৪৪১     

শুরুতে হাসো

সমাধির গর্তে

২৭ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



একটা সমাধিখানায় একটা সমাধি খোঁড়া আছে। মানে কেউ মারা গেলে তার সত্কার যাতে চটজলদি করা যায়, এ জন্য কর্তৃপক্ষ আগেই প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে। সমাধিটা ঠিকঠাক খোঁড়া হয়েছে কি না সেটা পরীক্ষা করতে কর্তৃপক্ষ এক কর্মীকে পাঠাল। সমাধি চেক করতে গিয়ে ওই লোক নিজেই পড়ে গেল গভীর গর্তে। চারপাশে মাটির ঢিবি আর দেয়ালটাও বেশ পিচ্ছিল। লোকটা কিছুতেই উঠতে পারছে না। চিত্কার করছে সমানে। ‘কেউ আছেন! আমাকে বাঁচান!’ কিন্তু সমাধিতে কে আর আসে বেড়াতে! এমন সময় শুরু হলো ঝুম বৃষ্টি। পানিতে ভিজে চুপসে গেছে লোকটা। কাদামাটির হাত থেকে বাঁচতে গর্তের ঠিক মাঝ বরাবর গিয়ে দাঁড়ালো। এমন সময় সমাধির পাশ দিয়ে যাচ্ছিল এক মাতাল। লোকটার চেঁচামেচি শুনে এগিয়ে এলো গর্তটার দিকে।

মাতালটাকে দেখে আশার আলো দেখতে পেল গর্তে পড়া কর্মী।

‘ভাই অনেক ধকল গেল, এবার আমায় টেনে তুলুন।’

এটা শুনে মাতাল বলল, ‘সব মাটি ওপরে ছুড়ে ফেলে চকচকে স্যুট পরে দাঁড়িয়ে আছেন, আর বাকিটুকু উঠতে পারবেন না! এটা আমাকে বিশ্বাস করতে বলছেন!’

অঙ্কন : বিপ্লব

মন্তব্য