kalerkantho

দেশ পরিচিতি

১১ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দেশ পরিচিতি

উগান্ডা

আফ্রিকার রাষ্ট্র উগান্ডা। দেশটির পূর্বে কেনিয়া, উত্তরে সুদান, পশ্চিমে গণতান্ত্রিক কঙ্গো প্রজাতন্ত্র, দক্ষিণ-পশ্চিমে রুয়ান্ডা এবং দক্ষিণে তানজানিয়া। উগান্ডা নামটির উত্পত্তি হয়েছে বুগান্ডা রাজত্ব থেকে। দেশটির ভূ-প্রকৃতি বিচিত্র। এখানে সাভান্না তৃণভূমি, ঘন অরণ্য, উঁচু পর্বত এবং আফ্রিকার বৃহত্তম হ্রদ ভিক্টোরিয়া হ্রদের অর্ধেকেরও বেশি অবস্থিত। উন্নয়নশীল এই দরিদ্র রাষ্ট্রটি মূলত কৃষিপ্রধান।

বর্তমান উগান্ডায় প্রাচীনতম মানব বসতি স্থাপন করেছিল আদিম শিকারি মানুষ। আজ থেকে আনুমানিক ২০০০ বা ১৫০০ বছর আগে বান্টু ভাষাভাষী জনগণ প্রধানত মধ্য ও পশ্চিম আফ্রিকা থেকে দেশটির দক্ষিণাংশে অভিবাসী হয়ে এসে বসবাস শুরু করে। এই জনগোষ্ঠীর লোকদের লোহার কাজ সম্পর্কে বিশেষ জ্ঞান ছিল। ১৪০০ ও ১৫০০ শতকে রাজত্ব বিস্তারকারী কিতারা সাম্রাজ্য এখানকার প্রাচীনতম রাজনৈতিক বা রাষ্ট্রীয় সংগঠন। এই সাম্রাজ্যের পর দেশটিতে উত্থান ঘটে বুনিইওরো-কিতারা, বুগান্ডা ও আনকোলে সাম্রাজ্যের। ১৮৯৪ সালে উগান্ডা একটি ব্রিটিশ প্রোটেক্টোরেটে পরিণত হয়। ১৯২৬ সালে এর বর্তমান সীমানা নির্ধারিত হয়। ১৯৬২ সালে এটি ব্রিটিশ শাসন থেকে স্বাধীনতা লাভ করে।

 

এক নজরে

পুরো নাম : উগান্ডা প্রজাতন্ত্র।

রাজধানী ও সবচেয়ে বড় শহর : কাম্পালা।

দাপ্তরিক ভাষা : ইংরেজি, সোয়াহিলি।

সরকার পদ্ধতি : ইউনিটারি ডমিনেন্ট-পার্টি সেমি-প্রেসিডেনশিয়াল রিপাবলিক।

প্রেসিডেন্ট : ইউয়েরি মুসেভেনি।

আইনসভা : পার্লামেন্ট।

ব্রিটেন থেকে স্বাধীনতা : ৯ অক্টোবর, ১৯৬২।

আয়তন : দুই লাখ ৪১ হাজার ৩৮ বর্গকিলোমিটার।

জনসংখ্যা : চার কোটি ১৪ লাখ ৮৭ হাজার ৯৬৫ জন, ঘনত্ব : প্রতি বর্গকিলোমিটারে ১৫৭.১ জন।

জিডিপি : মোট ৮৮.৬১০ বিলিয়ন ডলার, মাথাপিছু আয় : দুই হাজার ৩৫২ ডলার।

মুদ্রা : উগান্ডান শিলিং

জাতিসংঘে যোগদান : ১৯৬২ সালে।

 

মন্তব্য