kalerkantho

ভালো রেজাল্ট করলে অনেক বই কিনে দিয়ো

পূর্ণতা

১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



ভালো রেজাল্ট করলে অনেক বই কিনে দিয়ো

এ বছর ও ক্লাস টেনে উঠেছে। সামনের বছর এসএসসিতে ভালো রেজাল্ট করার জন্য উঠেপড়ে লেগেছে। কারণ মা কথা দিয়েছেন, ভালো রেজাল্ট করতে পারলে একগাদা বই কিনে দেবেন। প্রস্তাবটা অবশ্য মা দেননি। ও নিজেই একদিন মায়ের কাছে আবদার করেছিল, ‘ভালো রেজাল্ট করলে অনেক বই কিনে দিয়ো।’ ওর মা নিজেও বই পড়তে খুব পছন্দ করেন। তাই তিনিও সঙ্গে সঙ্গে রাজি হয়ে যান। তারপর থেকে ও আগের চেয়ে আরো বেশি করে পড়াশোনা করতে শুরু করে দিয়েছে। একগাদা বইয়ের লোভ সামলানো তো চাট্টিখানি কথা নয়। 

ওর নাম আয়েশা জোহা পূর্ণতা। পড়ে মতিঝিল আইডিয়াল স্কুলের বনশ্রী শাখায়। পড়াশোনায়ও ও বেশ ভালো। কিন্তু শুধু স্কুলের পড়া নিয়েই ব্যস্ত থেকে ওর মন ভরে না। নিয়মিত গল্পের বইও পড়ে। কোনো কোনো মা-বা ছেলে-মেয়েদের আউট বই পড়তে বাধা দিলেও পূর্ণতার মা ওকে ছোটবেলা থেকে বই পড়তে উত্সাহ দিতেন বলেই ও এমন বইপোকা হয়ে উঠতে পেরেছে। আর এ বাবদে ও এরই মধ্যে ওর মাকেও ছাড়িয়ে গেছে। অন্য মায়েরা যখন গল্প করেন, তাঁদের মেয়ে এত এত ঘণ্টা স্কুলের পড়া করে, পূর্ণতার মা বরং তাঁর মেয়ের বই পড়ার গল্প করে আনন্দ পান।

স্কুলে অবশ্য ওর এমন বইপোকা বান্ধবী আছে আরো কয়েকজন। ওদের স্কুলে প্রতিবছরই বইমেলা হয়। সেখানে বিভিন্ন প্রকাশনী স্টল দেয়। ওরা বইপোকারা সেই মেলাটা খুব উপভোগ করে। মেলা উপলক্ষে মা-বাবার কাছ থেকে আলাদা করে টাকা নিয়ে রাখে। পছন্দ করে বই কেনে। একবার ওর এক বইপোকা বান্ধবী বেশ বেকায়দায় পড়ে গিয়েছিল। স্কুলে বইমেলা হচ্ছে। ওর বান্ধবী বই কেনার জন্য মা-বাবার কাছ থেকে টাকা নিয়েছে। ওরা মেলা ঘুরে ঘুরে যে যার মতো বইও পছন্দ করেছে। কিন্তু কিনতে গিয়ে দেখে, ওর বান্ধবীর টাকা হারিয়ে গেছে। অনেক খুঁজেও আর সে টাকা পাওয়া গেল না। তো একজন বইপোকার দুঃখ তো আরেকজন বইপোকাই বুঝতে পারে। তখন পূর্ণতা ওর বই কেনার টাকা ওর বান্ধবীর সঙ্গে ভাগাভাগি করে নিয়েছিল। তাতে ওর বই কেনা কম হয়েছিল, কিন্তু ভাগাভাগি করে বই কেনায় এক অন্য আনন্দ পেয়েছিল ও।

পূর্ণতার প্রিয় লেখক মুহম্মদ জাফর ইকবাল। তাঁর বই পেলে নাওয়া-খাওয়া বাদ দিয়ে বসে পড়ে। শেষ করে তবে ওঠে। এ ছাড়া রকিব হাসানের বইও খুব ভালো লাগে। ইমদাদুল হক মিলন, আনিসুল হকের বইও পছন্দ। শুধু দেশের লেখকদের বইই নয়, বিদেশি বিভিন্ন লেখকদের অনুবাদও ও নিয়মিত পড়ে। বিদেশি লেখকদের মধ্যে ওর খুব পছন্দ রবার্ট লুই স্টিভেনসন আর মার্ক টোয়েনের বই। প্রতিবছর নিয়ম করে বইমেলায় যাওয়া চাই-ই চাই। বইমেলায় গিয়ে ওর প্রথম কাজ প্রিয় লেখকদের নতুন কী কী বই এসেছে তা খুঁজে বের করা। তারপর পুরনো বইগুলোর মধ্যে না পড়া বইগুলো খুঁজে খুঁজে বের করা। এরপর সব বই কিনে বইয়ের বিশাল বোঁচকা বাবার হাতে ধরিয়ে দিয়ে বাড়ি ফেরে।

 গ্রন্থনা : নাবীল অনুসূর্য

 

মন্তব্য