kalerkantho

সোমবার । ৯ কার্তিক ১৪২৮। ২৫ অক্টোবর ২০২১। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

জেলা সদরের বাইরে সেরা প্রতিষ্ঠান

এবারও সেরার লড়াইয়ে পিছিয়ে গ্রামের স্কুলগুলো

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৮ মে, ২০১২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



সেরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের লড়াইয়ে গত বছরের মতোই পশ্চাৎপদ অবস্থানে রয়েছে মফস্বল ও গ্রামের স্কুলগুলো। ১০ বোর্ডের (সাধারণ, কারিগরি ও মাদ্রাসা) সেরা ২০ হিসেবে মোট ২০০ প্রতিষ্ঠানের মধ্যে গ্রাম এলাকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান রয়েছে মাত্র ৩৩টি। গত বছর এই সংখ্যা ছিল ৩০। গতকাল সোমবার প্রকাশিত এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলে প্রতি বোর্ডের ২০টি করে সারা দেশের মোট ২০০ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানকে শীর্ষ বিশের তালিকায় ঠাঁই দেওয়া হয়। এই তালিকায় থাকা বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানই মহানগরী ও জেলা শহরের অপেক্ষাকৃত বেশি সুযোগ-সুবিধাপ্রাপ্ত এলাকার মধ্যে অবস্থিত। বরিশাল বোর্ড : বোর্ডে সেরা ২০ এর মধ্যে রয়েছে বরগুনা জেলার পাথরঘাটার তাসলিমা মেমোরিয়াল একাডেমী (পাসের হার ৭১.৩৯, জিপিএ ৫ ২৯ জন), আমতলী এ কে হাই স্কুল (পাসের হার ৬৭.১৪, জিপিএ ৫ ২৮) স্বরূপকাঠি কলেজিয়েট একাডেমী (পাসের হার ৬৩.৮৪, জিপিএ ৫ ৩৭), দৌলতখান সরকারি বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় (পাসের হার ৬৩.৩৮, জিপিএ ৫ ১৪), বাউফল আদর্শ বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয় (পাসের হার ৬৩.৪৪, জিপিএ ৫ ১৩), বাকেরগঞ্জের ডিজিএল মাধ্যমিক বিদ্যালয় (পাসের হার ৬২.৩৩, জিপিএ ৫ ১০) এবং উজিরপুরের কারফা পাবলিক একাডেমী (পাসের হার ৬২.১৪, জিপিএ ৫ ২৩ জন)। সিলেট বোর্ড : সেরা ২০ এর মধ্যে শ্রীমঙ্গলের বাডস রেসিডেনশিয়াল মডেল হাই স্কুল (পাসের হার ৭৪.৬৭, জিপিএ ৫ ৬৯ জন), ধর্মনগর গোবিন্দপুর সরকারি হাইস্কুল (পাসের হার ৭০.৯৩, জিপিএ ৫ ৩৪), শ্রীমঙ্গল বিটিআরআই হাই স্কুল (পাসের হার ৬৮.২৪, জিপিএ ৫ ২১), শাহজিবাজার বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড হাই স্কুল (পাসের হার ৬৯.৭২, জিপিএ ৫ ১৭) এবং শমসেরনগর হাজী মো. আস্তোয়ার বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় (পাসের হার ৬৭.২৯, জিপিএ ৫ ২২ জন)। অন্যান্য বোর্ড : চট্টগ্রাম বোর্ডে মীরসরাইয়ের জোরারগঞ্জ বৈদ্য হাই স্কুল (পাসের হার ৭১.৬৫, জিপিএ ৫ ৪২ জন)। যশোর বোর্ডে ঝিকরগাছার শেখ আকিজ উদ্দীন হাই স্কুল (পাসের হার ৭৫.১৫, জিপিএ ৫ ৮৩ জন)। কুমিল্লা বোর্ডে বেগমগঞ্জ পাইলট হাই স্কুল (পাসের হার ৭২.২৪, জিপিএ ৫ ৫২ জন) এবং হাতিয়ার এ এম হাই স্কুল (পাসের হার ৬৮.৬৩, জিপিএ ৫ ৩২)। রাজশাহী বোর্ডে ঈশ্বরদীর ইক্ষু গবেষণা হাই স্কুল (পাসের হার ৮২.৮৮, জিপিএ ৫ ৪৫)। কারিগরি শিক্ষা বোর্ডে ঢাকার সাভারের সোসাইটি অব সোশ্যাল রির্ফম হাই স্কুল, রাজশাহীর পবা উপজেলা ইউসেপ টেকনিক্যাল স্কুল, টাঙ্গাইলের গোলাপপুর সুতি ভি এম পাইলট হাই স্কুল, নড়াইলের লোহাগড়া পাইলট হাই স্কুল, টাঙ্গাইলের ঘাটাইল গনা পাইলট হাই স্কুল, সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর পাইলট হাই স্কুল, যশোরের শার্শা পাইলট হাই স্কুল, একই উপজেলার বুরুজবাগান গার্লস হাই স্কুল, কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা পাইলট হাই স্কুল, নাটোরের লালপুর শ্রীসুন্দরী হাই স্কুল, দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার টেক্সটাইল ভোকেশনাল ইনস্টিটিউট, নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ কাঞ্চন ভরত চন্দ্র হাইস্কুল, সিদ্ধিরগঞ্জ মিজমিজি পশ্চিমপাড়া হাই স্কুল এবং পাবনার চাটমোহর উপজেলার চাটমোহর আরসিএন অ্যান্ড বিএসএন হাই স্কুল। মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডে গত বছর গ্রামের ছয়টি প্রতিষ্ঠান ছিল। এবার শুধু ছারছিনা দারুসসুন্নাত কামিল মাদ্রাসা।