kalerkantho

বুধবার । ২৯ বৈশাখ ১৪২৮। ১২ মে ২০২১। ২৯ রমজান ১৪৪২

শিশুর রঙিলা বৈশাখ

যদিও আছে করোনার চোখরাঙানি, তবু এবারের পহেলা বৈশাখে শিশুদের পোশাকের ডিজাইনে নতুনত্ব আনার প্রয়াস চালিয়েছেন ডিজাইনাররা। ফ্যাশন হাউসগুলো ঘুরে এসে জানাচ্ছেন আতিফ আতাউর

৫ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শিশুর  রঙিলা বৈশাখ

মডেল : মাহী, আরিয়ানা, সামির, ঈশান; ছবি : কাকলী প্রধান

পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে প্রতিবছর নতুন ডিজাইনের পোশাক আনে ফ্যাশন হাউসগুলো। গত বছরও এমন আয়োজনের কমতি ছিল না। কিন্তু করোনার কারণে বন্ধ ছিল সব আয়োজন। এবার নতুন আশা ও করোনামুক্ত পৃথিবীর প্রতীক্ষায় পহেলা বৈশাখের জমজমাট আয়োজন সাজিয়েছে হাউসগুলো। এর মধ্যে শিশুদের বৈশাখের পোশাকে রয়েছে প্রতিবারের মতোই বৈচিত্র্যময় কাজ, সাজ ও নতুন ডিজাইনের ছোঁয়া। ফ্যাশন হাউসগুলো ঘুরে দেখা গেল নতুন ডিজাইনের শিশুদের পাঞ্জাবি, শাড়ি, শার্ট, টি-শার্ট, ফতুয়া, স্কার্ট, সালোয়ার-কামিজ, টপ যেমন আনা হয়েছে; তেমনি গত বছর যেগুলো স্টোর থেকে বের হয়নি সেগুলোও থাকছে পাশাপাশি লাইনে। ডিজাইনারদের দুই বছরের কাজ একসঙ্গে প্রদর্শিত হওয়ায় থাকছে মনের মতো ডিজাইন ও পছন্দের বৈশাখী পোশাক বেছে নেওয়ার অবারিত সুযোগ।

প্রতিবারের মতো এবারও পাঞ্জাবি রয়েছে শিশুদের পছন্দের শীর্ষে। বৈশাখে বর্ণিল রঙের পোশাকের প্রতিই ছোটদের নজর থাকে বেশি। ডিজাইনাররাও এ জন্য পাঞ্জাবিতে লাল, হলুদ, নীলসহ নানা রঙের নকশা ফুটিয়ে তুলেছেন। পাঞ্জাবির গলা, হাতা, বুক ও পিঠে থাকছে নকশার প্রাধান্য। ঢোল, তবলা, বাঁশির মতো বাংলার আবহমান নকশার পাশাপাশি জ্যামিতিক নকশা করা পাঞ্জাবি পাওয়া যাবে দোকানগুলোতে। ছোটদের পছন্দের তালিকায় পাঞ্জাবির পরই রয়েছে ফতুয়া। সুতি কাপড়, হাতা কাটা থাকার কারণে বৈশাখের তীব্র রোদেও পরে আরাম পাওয়া যায় ফতুয়া। ফতুয়ার ডিজাইন ফুটিয়ে তুলতে স্ক্রিন প্রিন্ট, ব্লক, বাটিক ও এমব্রয়ডারির সাহায্যে। ফতুয়ার কাটিং ও প্যাটার্নেও এবার যোগ হয়েছে নতুন ধারা। যাঁরা পাঞ্জাবি, ফতুয়ার বাইরে ভিন্ন কিছু নিতে চান তাঁদের জন্য রয়েছে শার্ট ও টি-শার্ট। গরমে আরামের কথা বিবেচনায় এসব শার্ট ও টি-শার্টে সুতি ও কটন কাপড় বেছে নেওয়া হয়েছে।

বৈশাখে ছোট মেয়েদের শাড়ি ছাড়া যেন চলেই না। বড়দের দেখাদেখি তারাও শাড়ি পরার বায়না করে। একটু বড় মেয়েরা শাড়ি সামলাতে পারলেও ছোটদের জন্য বেশ কঠিনই ব্যাপারটা। এই ঝামেলা থেকে মুক্তি দিতে ফাশন হাউসগুলোতে এবারও থাকছে রেডিমেড বৈশাখী শাড়ির সমাহার। বৈশাখের চিরায়ত লাল-হলুদ শাড়ির পাশাপাশি পাওয়া যাচ্ছে মেরুন, নীল, কমলা, বেগুনি, সবুজসহ হালকা রঙের শাড়ি। ছোটদের শাড়ির জমিন ও আঁচলে থাকছে নানা রকম বৈশাখী নকশা। শাড়ির পরেই মেয়েদের পছন্দের তালিকায় রয়েছে সালোয়ার-কামিজ, টপ, হাতা কাটা ফ্রক, স্কার্ট, ফতুয়া, শার্ট, কুর্তি। ঐতিহ্য ও আধুনিকতার মিশেলে এবারকার বৈশাখী পোশাকে নকশা ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। উত্সব ও আবহাওয়া দুটিতেই প্রাধান্য পেয়েছে পোশাকের উপাদান। হাতের কাজ, এমব্রয়ডারি, স্ক্রিন প্রিন্ট, ব্লক প্রিন্ট, বাটিক, কারচুপি ও টাইডাইয়ের মাধ্যমে হয়েছে ছোটদের পোশাকের অলংকরণ। 

কোথায় পাবেন, কেমন দাম

ছোট-বড় সব ফ্যাশন হাউসেই পাওয়া যাবে শিশুদের বৈশাখের পোশাক। ছেলেদের পাঞ্জাবি পাওয়া যাবে ৫০০ থেকে ১৫০০ টাকায়, ফতুয়া পড়বে ২০০ থেকে ৮০০ টাকা, শার্ট ও টি-শার্ট পাওয়া যাবে ৫০০ থেকে ১৬০০ টাকার মধ্যে। মেয়েদের শাড়ি পাওয়া যাবে ৫০০ থেকে ১৫০০ টাকায়। এ ছাড়া কামিজ, টপ, ফ্রক, স্কার্ট পাওয়া যাবে ৪০০ থেকে ২০০০ টাকার মধ্যে।