kalerkantho

শুক্রবার। ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ৪ ডিসেম্বর ২০২০। ১৮ রবিউস সানি ১৪৪২

শপিং ব্যাগের ব্যবহার

পণ্য কিনলে ব্যাগে ভরে ক্রেতার হাতে তুলে দেন বিক্রয়কর্মীরা। সাধারণত জালি, পলিথিন বা সেমি পলি ও কাপড়ের ব্যাগ ব্যবহার করা হয়। বাড়িতে আনার পর এসব ব্যাগের ঠাঁই হয় ডাস্টবিনে। এগুলো পুরনো ব্যাগ নয়। তাই সংরক্ষণ করুন, কাজে দেবে। জানাচ্ছেন আতিফ আতাউর

১২ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শপিং ব্যাগের ব্যবহার

কোথাও বেড়াতে যাচ্ছেন কয়েক দিনের জন্য। বড় ব্যাগে প্যান্ট, শার্ট, টুথপেস্ট, টুথব্রাশসহ প্রয়োজনীয় সব কিছুই তুলে নিলেন। এবার ব্যবহূত জুতা ব্যাগে তুলতে বিপত্তি। পুরনো জুতা তো আর পরিষ্কার কাপড়চোপড়ের পাশে রাখা যায় না। তাহলে উপায়? একটি প্লাস্টিকের ব্যাগে তুলে নিন জুতা বা ব্যবহূত জামা-প্যান্ট। তারপর ব্যাগের এক পাশে রেখে দিন। এবার নিশ্চিন্তে ভ্রমণে বের হন।

একেক দোকান একেক রঙের পলিথিন বা সেমি পলিথিনের ব্যাগে পণ্য তুলে দেয়। এগুলো একটি নির্দিষ্ট স্থানে জমা করে রাখুন। তারপর ছুটির দিনে অবসরমতো সময়ে সুঁই, সুতা আর কাঁচি নিয়ে বসে পড়ুন। ফুল, পুতুল, পাখি, হাতি, ঘোড়াসহ বাড়ি সাজানোর নানা রকম জিনিস বানাতে পারবেন। নিজে আইডিয়া না পেলে ইউটিউবে সার্চ দিন। শত শত টিপস পাবেন।

প্লাস্টিক দিয়ে শুধু ঘর সাজানোর জিনিসই নয়, বানাতে পারেন ব্যাগ, বাটি, ফুলের টবের কাভার, মাথার টুপি, হাতে পরার চুড়িসহ বিভিন্ন ধরনের প্রয়োজনীয় জিনিস। দরকার শুধু সুঁই, সুতা, কাঁচি আর আপনার সৃজনশীল মন।

বাজার থেকে কিনে আনা মাছ, মাংস, সবজি, ফলমূল ফ্রিজে রাখতে দরকার পড়ে পলি ব্যাগ। অনেক সময় এগুলো হাতের কাছে পাওয়া যায় না। এ জন্য বাজার থেকে ফ্রিতে পাওয়া পলি ব্যাগগুলো ফেলে না দিয়ে সংরক্ষণ করুন। প্রয়োজনের সময় কাজে দেবে।

বাসায় পচনশীল কোনো দ্রব্য, রান্নাঘরের ময়লা-আবর্জনা, খাবারের ঝুটা খোলামেলা ফেলে রাখা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এসব বস্তু থেকে যাতে ক্ষতিকর ভাইরাস-ব্যাকটেরিয়া না ছড়াতে পারে এ জন্য পলি ব্যাগে তুলে মুখ বন্ধ করে রাখুন। সকালে ময়লাওয়ালার গাড়িতে তুলে দিন।

অবসরে মনের মাধুরী মিশিয়ে ছবি আঁকতে বসেছেন। হঠাত্ জরুরি কাজে ক্ষণিকের বিরতি নিতে হবে। এ সময় রং মাখানো তুলি শুকিয়ে যাওয়া নিয়ে আক্ষেপে ভোগেন অনেকেই। এটা থেকে পরিত্রাণ পেতে বাসায় জমানো পলিথিন ব্যাগ ব্যবহার করতে পারেন। রং মাখা তুলি পলি ব্যাগে তুলে মুখটা বন্ধ করে দিন। বেশ কয়েক ঘণ্টা তুলি আর্দ্র থাকবে। হাতের কাজটা সেরে আবার মনোযোগ দিতে পারবেন ছবি আঁকায়।

শপিং করে মুফতে পাওয়া ব্যাগ ব্যবহার করতে পারেন নানা কাজে। বানাতে পারবেন রঙিন চুড়ি, মাথার টুপি, পুতুল, ফুলের টব কাভারসহ নানা রকম ক্রাফট। ইউটিউবে পাওয়া যাবে টিউটরিয়াল।

 

মন্তব্য