kalerkantho

রবিবার। ১৬ জুন ২০১৯। ২ আষাঢ় ১৪২৬। ১২ শাওয়াল ১৪৪০

ইন্টেরিয়র

হ্যাঙ্গারের নানা হাল

কাপড়ের পাশাপাশি নিত্যব্যবহার্য নানা জিনিস ঝুলিয়ে রাখতে পাওয়া যাচ্ছে বাহারি ডিজাইনের হ্যাঙ্গার। বাজার ঘুরে খোঁজ নিয়েছেন আতিফ আতাউর

১০ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



হ্যাঙ্গারের নানা হাল

কাপড় গুছিয়ে রাখতে আলনা ছিল সবচেয়ে বেশি ব্যবহূত আসবাব। শহুরে জীবনে এখন আলনার ব্যবহার নেই বললেই চলে। বাইরে থেকে ফিরে ঘামে ভেজা কাপড় ভাঁজ করে বা বৃষ্টির দিনে বারান্দায়ও রাখা যায় না। এ ক্ষেত্রে সহজ সমাধান ওয়াল হ্যাঙ্গার। এর বড় সুবিধা হচ্ছে, জায়গা বাঁচায়। বাহারি সব ডিজাইনের হ্যাঙ্গার পাওয়া যাচ্ছে বাজারে। দেয়াল বা দরজার সঙ্গে ঝোলানো হ্যাঙ্গারের পাশাপাশি রয়েছে গাছের আদলের স্ট্যান্ড হ্যাঙ্গার র্যাক। ঘরের কোনায় অল্প জায়গায়ই দাঁড় করিয়ে রাখা যায় এমন হ্যাঙ্গার। ব্যাকপ্যাক, শীতকালীন জ্যাকেট, টুপি, হ্যান্ডব্যাগ, পার্স থেকে শুরু করে অন্য সব পোশাকও ঝুলিয়ে রাখা যায়। কাঠের তৈরি এসব হ্যাঙ্গার বেশ মসৃণ হয়। এতে কাপড়ে স্ক্র্যাচ লাগারও ভয় থাকে না। কাঠের পাশাপাশি স্টিল কিংবা স্টিলের সঙ্গে প্লাস্টিকের ব্যবহারে বৈচিত্র্য আনা হয়েছে হ্যাঙ্গারে। শোপিসের আদলে তৈরি করা হয়েছে ওয়াল হ্যাঙ্গার। দেয়ালে ঝুলিয়ে দিলে দূর থেকে মনে হবে শোপিস। ফুল ও লতা-পাতার ফাঁকে ফাঁকে হ্যাঙ্গারের হুক এমনভাবে বসানো যে সহজে চোখে পড়ে না। ঘরের দরজা, দরজার পাশের দেয়াল, বাথরুমের দেয়াল কিংবা বেসিনের পাশে ঝুলিয়ে ব্যবহার করা হচ্ছে। টুথপেস্ট, ব্রাশ, ফেসওয়াশ, টুথপিক থেকে শুরু করে জায়গা বুঝে প্রয়োজনীয় নানা কিছু এমন হ্যাঙ্গারে ঝুলিয়ে রাখা যায়।

ঘরের বড় দেয়াল অনেক সময় ফাঁকাই থাকে। ক্যালেন্ডার, মজার কোনো ছবি তাতে অনায়াসে ঝুলিয়ে রাখা যায়। কিন্তু দেয়ালের ক্ষতি হবে ভেবে পেরেক লাগাতে না চাইলে বেছে নিন স্টিকি ওয়াল হুক। ফুল, পাখি, প্রাণী, লতা-পাতা থেকে শুরু করে নানা ডিজাইনের ওয়াল হুক আঠার সাহায্যে খুব সহজেই দেয়ালে আটকে রাখা যায়। তবে এসব হুকে ঝোলানোর জন্য নির্দিষ্ট ওজন বেঁধে দেওয়া থাকে। শিশুদের ঘরের জন্য পাবেন মজার মজার শিশুতোষ নকশার ওয়াল হ্যাঙ্গার। কার্টুন, গাড়ি, তারা, মাছ, হাঁস, ফুল, পাখিসহ কত যে ডিজাইন। শিশুদের কাপড় শুকানোর জন্যও আছে আলাদা বেবি ক্লিপ ক্লথ হ্যাঙ্গার। ৬ থেকে ১২টি হুক থাকে গোলাকার, চতুর্ভুজাকার হ্যাঙ্গারে। ইচ্ছামতো যেকোনো স্থানে খুব সহজেই স্থানান্তর করা যায় বেবি ক্লিপ ক্লথ হ্যাঙ্গার। নান্দনিক ডিজাইনের টু ইন ওয়ান, সিক্স ইন ওয়ান, এইট ইন ওয়ান হুকের হ্যাঙ্গার পাবেন বাজারে। টাই ঝুলিয়ে রাখার জন্যও পাবেন বিশেষ ডিজাইনের প্লাস্টিক টাই হোল্ডার। হিজাব এবং ওড়না গুছিয়ে রাখার জন্যও আছে হিজাব হ্যাঙ্গার। এসব হ্যাঙ্গারে একসঙ্গে অনেক হিজাব গুছিয়ে রাখা যায়।

গৃহস্থালির নানা কাজে যেসব যন্ত্রপাতির প্রয়োজন হয়, সেগুলো রাখার জন্যও আছে মাল্টিইউজ ওয়াল হুক হ্যাঙ্গার। এগুলোকে হ্যাঙ্গিং কেসও বলা হয়। টেস্টার, প্লাস, স্ক্রুড্রাইভার, চাকু, ব্রাশজাতীয় যেকোনো জিনিস এই হ্যাঙ্গারের পকেটে অনায়াসে ঢুকিয়ে রাখতে পারবেন। এ ছাড়া আছে ৮ লেয়ার হ্যাঙ্গার, ওয়াল মাউন্ট ক্লথ হুক হ্যাঙ্গার, নাইন পিস স্কার্ফ হোল্ডার। ওয়াল মাউন্ট ক্লথ হকের বৈশিষ্ট্য হলো—এটা ২, ৬, ৮, ১০ ও ১২ হুকের পাওয়া যায়। স্ক্রু দিয়ে দেয়াল বা দরজার সঙ্গে লাগিয়ে নিতে হয়।

হ্যাঙ্গার কেনার আগে

বাজারের এত এত নকশার মধ্যে কাপড়ের জন্য সঠিক হ্যাঙ্গার বেছে নেওয়া জরুরি। একেক ধরনের পোশাক ঝোলানোর জন্য হ্যাঙ্গারও হয় ভিন্ন ভিন্ন। বিভিন্ন ধরনের হ্যাঙ্গার বাজারে পাওয়া যায়। কেনার আগে ব্যবহার বুঝে বেছে নিতে হবে। জানতে হবে, কোন হ্যাঙ্গার কতখানি ওজন নিতে পারবে। ক্যালেন্ডার, শোপিস, ছবি কিংবা মশারি টাঙানোর জন্য স্টিকি হুক কিনতে পারেন। আবার রান্নাঘরের প্যান, স্টিলের নেট, বড় চামচ কিংবা খুন্তি ঝোলাতে চাইলে বেছে নিতে হবে ওয়াল হ্যাঙ্গার। চাবির জন্য পাবেন কি-হ্যাঙ্গার।

দাম-দর

হ্যাঙ্গারের হুকের সংখ্যা ও ডিজাইনের ওপর দাম নির্ভর করে। ৬ থেকে ৮ হুকের প্লাস্টিকের হ্যাঙ্গার পাবেন ৬০-২০০ টাকায়, প্লাস্টিকের হ্যাঙ্গার ১০-১২ হুকের হলে দাম পড়বে ৮৫-২৮০ টাকা। স্টিলের হ্যাঙ্গার ১৫০ থেকে ৩২০ টাকা। নকশাদার স্টিলের হ্যাঙ্গার পাবেন ৪৫০ থেকে ৮৮০ টাকা। কাঠের ফোল্ডিং ৩-৪ হুকের হ্যাঙ্গার ৫৫০-৮০০ টাকা। কি-হ্যাঙ্গার মিলবে ২০০ থেকে ৫৫০ টাকায়।

কোথায় পাবেন

আড়ং, অঞ্জন’স, যাত্রা, কারিকা, নিত্য উপহারসহ কিছু ফ্যাশন হাউসে দেশীয় নকশার বিভিন্ন হ্যাঙ্গার পাবেন। দেশি-বিদেশি নকশা একসঙ্গে চাইলে যেতে পারেন ঢাকার নিউ মার্কেট, চন্দ্রিমা সুপার মার্কেট, বসুন্ধরা সিটি শপিং মল, যমুনা ফিউচার পার্ক, মৌচাক মার্কেটে। এ ছাড়া দেশের ছোট-বড় সব মার্কেটেই কমবেশি নানা নকশার হ্যাঙ্গার মিলবে।

মন্তব্য