kalerkantho

মঙ্গলবার । ২১ মে ২০১৯। ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬। ১৫ রমজান ১৪৪০

ওয়াশিং মেশিনের সাতসতেরো

সহজে ও কম সময়ে কাপড় পরিষ্কারের জন্য ওয়াশিং মেশিনের ব্যবহার দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। বিশেষ করে চাকরিজীবীদের জন্য এই যন্ত্র সময় আর শ্রম দুটিই বাঁচায়। ব্যবহারে আগে ওয়াশিং মেশিনের সঠিক ব্যবহারবিধি জেনে নিন। লিখেছেন সুবর্ণা বিশ্বাস

১৩ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ওয়াশিং মেশিনের সাতসতেরো

বাজারে তিন ধরনের ওয়াশিং মেশিন পাওয়া যায়। অটোমেটিক, সেমি-অটোমেটিক আর ম্যানুয়াল। অটোমেটিক মেশিনে কাপড় ধোয়ার পর পানি ঝরিয়ে শুকানোসহ সব কাজ স্বয়ংক্রিয়ভাবেই হয়ে যায়। আলাদা করে কাপড় মেলে শুকাতে হয় না। সেমি-অটোমেটিক ওয়াশিং মেশিন কাপড় পরিষ্কার আর পানি ঝরানোর কাজটি করে থাকে। মেশিন থেকে কাপড় বের করে বাতাসে বা রোদে শুকিয়ে নিতে হয়। আর ম্যানুয়াল ওয়াশিং মেশিনে শুধু কাপড় পরিষ্কার করা যায়। আলাদা করে পানি ঝরিয়ে তারপর শুকিয়ে নিতে হয়। তবে ম্যান্যুয়াল মেশিনে বিদ্যুত্ খরচ সবচেয়ে কম আর দামও তুলনামূলক সাশ্রয়ী।

ব্যবহারবিধি

♦    প্রতিটি ওয়াশিং মেশিনের সঙ্গে ব্যবহারবিধি দেওয়া থাকে। সেটা ভালো করে পড়ে নিন। ওয়াশিং মেশিনের সুইচগুলো কোনটার কাজ কী জানুন।

 ♦   কোন কাপড়ে কী পরিমাণ সাবান প্রয়োজন হয় জেনে নিন। কিছু কাপড় থাকে ওয়াশিং মেশিনে ধুতে বারণ করা হয়, এগুলোও জেনে নিন। 

♦    ওয়াশিং মেশিনে একরঙা ও রঙিন কাপড় আলাদা করে ধুতে দিন। এমনকি কম ময়লা ও বেশি ময়লা কাপড়ও আলাদা করে দেওয়া ভালো। যেমন—বিছানার চাদর ও মশারির একটু বেশি ময়লা হয়। এগুলোর সঙ্গে প্রতিদিনের ব্যবহারের কম ময়লা কাপড় মেশাবেন না।

♦    কাপড় বেশি ময়লা হলে এক ধোয়ায় কাপড় পরিষ্কার হতে চায় না। এ ক্ষেত্রে প্রথমে হালকা গরম পানিতে সাবান গুলে বালতিতে কাপড় ভিজিয়ে রাখুন আধা ঘণ্টা। তারপর মেশিনে দিন। বিদ্যুত্ খরচ বাঁচবে, কাপড়ও পরিষ্কার হবে।

♦    কাপড় দেওয়ার সময় লক্ষ রাখুন সেইফটিপিনের মতো ধারালো জিনিস, ধাতব বোতাম বা হুক দেওয়া কাপড় যেন না থাকে। এতে অন্য কাপড় ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। এমনকি পোশাকের পকেটে কয়েন থাকলে সেটিও ওয়াশিং মেশিনে আটকে মেশিন অকেজো হয়ে যেতে পারে।

♦    মেশিনের ধারণক্ষমতার চেয়ে কিছু কম কাপড় দিতে চেষ্টা করুন। এতে পরিষ্কার ভালো হবে। আবার মোজা, ছোট রুমাল, শিশুর ছোট কোনো কাপড় মেশিনের ভেন্টে আটকে যেতে পারে। তাই এ ধরনের কাপড় মেশিনে না দেওয়াই নিরাপদ।

 

মন্তব্য