kalerkantho

শনিবার । ২৫ জানুয়ারি ২০২০। ১১ মাঘ ১৪২৬। ২৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

রূপচর্চা

মুখে দুর্গন্ধ?

দীর্ঘ সময় না খেয়ে থাকলে মুখে গন্ধ হওয়া স্বাভাবিক। তবে কিছু সতর্কতা মেনে চললে রোজায় মুখের দুর্গন্ধ হওয়ার মতো অস্বস্তিকর সমস্যা এড়ানো যাবে। পরামর্শ দিয়েছেন লাবিব ডেন্টাল কেয়ারের দন্ত চিকিত্সক মাহফুজা আক্তার

১৩ মে, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



মুখে দুর্গন্ধ?

ঠিকঠাক দাঁত ব্রাশ

খাবার চিবানোর সময় এর ক্ষুদ্র অংশ দাঁত ও মুখের বিভিন্ন অংশে আটকে থাকে। খাবার পর সঠিকভাবে দাঁত পরিষ্কার না করলে এসব খাদ্যকণা পচে মুখে দুর্গন্ধের সৃষ্টি করে। রোজায় মুখের দুর্গন্ধ থেকে রেহাই পেতে সাহরির পরে অবশ্যই দাঁত ব্রাশ করতে হবে। শুধু দাঁত নয়, সঠিকভাবে জিব আর মাড়িও পরিষ্কার করতে হবে। ব্রাশ শেষে ব্রাশের উল্টোদিক দিয়ে আস্তে আস্তে জিব পরিষ্কার করে নিন। ব্রাশের পর বেশি করে পানি দিয়ে কুলকুচি করে মাড়িও পরিষ্কার করতে হবে। অনেকেরই ধারণা, রোজা রেখে দাঁত ব্রাশ করা যায় না। বিষয়টি ঠিক নয়। রোজা রেখে দাঁত ব্রাশ করা যায়। রোজায় রাতে শোবার আগে ও সাহরির পর নিয়মিত দাঁত ব্রাশ করলে মুখে গন্ধের সমস্যা অনেকটাই দূরে থাকবে।

 

বাড়তি যত্ন

ব্রাশ করার পরও দুই দাঁতের মধ্যে আটকে থাকা খাদ্যকণা সঠিকভাবে পরিষ্কার না-ও হতে পারে। এ জন্য নিয়মিত ব্রাশ করার পাশাপাশি দাঁত ও মাড়ির সুস্থতায় আরো কিছু বাড়তি সতর্কতা গ্রহণ করতে হবে। রাতে দাঁত ব্রাশ করার আগে দাঁতের ফাঁকে লুকানো ময়লা দূর করতে ফ্লস ব্যবহার করুন। এরপর দাঁত ব্রাশ করুন। এ ছাড়া সকালে ঘুম থেকে উঠে মাউথওয়াশ ব্যবহার করুন। এটি মুখে দুর্গন্ধ সৃষ্টিতে বাধা দেয়। পরিমাণমতো পানির সঙ্গে মাউথওয়াশ মিশিয়ে কয়েকবার ভালো করে কুলকুচি করে ফেললে সারা দিন মুখ থাকবে সতেজ ও দুর্গন্ধমুক্ত। কুলকুচি করলে রোজার ক্ষতি হয় না। তাই দিনে পানি খেতে না পারলেও কয়েকবার কুলকুচি করুন।

 

খাদ্যাভ্যাস

নিয়মিত দাঁত ব্রাশ করার পরও রোজায় মুখে দুর্গন্ধ হলে বাড়তি নজর দিতে হবে খাদ্যাভ্যাসের দিকে। সারা দিন না খেয়ে থেকে ইফতারে একসঙ্গে অনেক খাবার খাবেন না। প্রথমে তরল খাবার দিয়ে ইফতার শুরু করুন। এরপর এক ঘণ্টা বিরতি দিয়ে শক্ত খাবার শুরু করুন। ইফতার ও সাহরির মেন্যুতে সহজপাচ্য ও সুষম রাখুন। রোজায় ফলমূল, দুধ ও দুগ্ধজাত খাবার বেশি করে খাবেন। তেলে ভাজা, ঝাল ও বেশি মসলাদার খাবার যতটা সম্ভব কম খান। মিষ্টি খাবার বেশি খাবেন না। চিনি বা মিষ্টি জাতীয় খাবার মুখের দুর্গন্ধের জন্য কারণ হতে পারে। একইভাবে রোজায় সফট ড্রিংকস, চা ও কফি এড়িয়ে চলুন। ইফতার থেকে সাহরি পর্যন্ত তিন থেকে চার লিটার পানি ও পানীয় পান করুন।

এসব নিয়ম সঠিকভাবে মেনে চলার পরও মুখে দুর্গন্ধ হলে সেটা কোনো বিশেষ অসুখের কারণ হতে পারে। এ ক্ষেত্রে একজন দন্ত চিকিত্সকের পরামর্শ নিতে হবে।

 

মন্তব্য