kalerkantho

শনিবার । ০৭ ডিসেম্বর ২০১৯। ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৯ রবিউস সানি ১৪৪১     

রূপচর্চা

এই সময়ে ত্বক

আবহাওয়াটা এখন এমন—এই গরম তো এই শীত। এমন মৌসুমে রোগশোক যেমন হয়, ত্বকের ওপরও যায় ধকল। অল্প কিছু নিয়ম মেনে চললে আপনার ত্বক থাকবে এ সময়েও প্রাণবন্ত। এভারগ্রিন অ্যাডামস অ্যান্ড ইভের রূপ বিশেষজ্ঞ নাহিদ আফরোজ তানির পরামর্শ জানাচ্ছেন জেনিফার ডি প্যারিস

৪ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



এই সময়ে ত্বক

এই সময় দিনে রোদের প্রখরতা একটু একটু করে বাড়তে থাকে, তাই নিয়মিত ব্যবহার করুন সানব্লক। কারণ সানব্লক ছাড়া রোদে বের হলে ত্বক রোদে পুড়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকবেই। তাপমাত্রা কম থাকায় অনেকেই এ মৌসুমে বনভোজনে কিংবা দূরে কোথাও বেড়াতে যান। সারা দিনের ঘোরাঘুরিতে সানব্লক আপনার ত্বককে দেবে সুরক্ষা, তবে প্রখর রোদে বের হলে ছাতা বা স্কার্ফ সঙ্গে রাখুন।

ছুটিছাঁটায় বেড়াতে গেলে ত্বকের অবস্থা অনেকটাই খারাপ হয়ে যায়, বিশেষ করে সমুদ্র কিংবা পাহাড়ে রোদে গায়ের রং হয়ে যেতে পারে স্বাভাবিকের চেয়ে কালো। এ ক্ষেত্রে সপ্তাহে দু-তিন দিন সকালবেলা পাতিলেবুর রস ত্বকের আক্রান্ত স্থানে লাগিয়ে রাখুন ২০ মিনিট করে, এরপর পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। দ্রুতই ফিরে পাবেন ত্বকের স্বাভাবিক রং। তবে যদি আপনার ত্বক হয় স্পর্শকাতর, তবে লেবু বদলে বেছে নিতে হবে কচি ডাবের পানি।

মৌসুম বদলের সঙ্গে মানিয়ে নিতে ব্যবহার করতে পারেন একটি বিশেষ প্যাক, যা আপনার ত্বক ও শরীরকে করবে শান্ত। মুলতানি মাটির সঙ্গে পুদিনা পাতা ও টক দই মিশিয়ে মুখমণ্ডলসহ শরীরে লাগিয়ে রাখুন ২০ মিনিট, এরপর ধুয়ে ফেলুন। ত্বকের তুলতুলে মসৃণ ভাব ফিরিয়ে আনতে চান? তাহলে অলিভ অয়েলের সঙ্গে চিনি মিশিয়ে স্ক্রাব তৈরি করুন। প্রতিদিন একবার এই স্ক্রাব ব্যবহার করুন। ত্বক হবে মসৃণ ও নরম।

এবার আসা যাক ব্রণ প্রসঙ্গে। গরমের শুরুতেই সবচেয়ে বেশি যে সমস্যাটি দেখা যায় তা হলো ব্রণ। যেকোনো ধরনের ত্বকের জন্যই ব্রণ একটি সাধারণ সমস্যা, আর তৈলাক্ত ত্বক হলে তো কথাই নেই। তবে ব্রণের উপশমে রূপচর্চা করার আগে এর কারণ বের করার পরামর্শ দিলেন তানি। অর্থাত্ ব্রণ কেন হচ্ছে তা আগে জানুন। পর্যাপ্ত পানি না খেলে, ত্বক ঠিকমতো পরিষ্কার না রাখলে, পেট পরিষ্কার না থাকলে ব্রণ হতে পারে। এ ছাড়া হরমোনের তারতম্যের কারণেও ব্রণ হয়।

শরীরে পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি ধরে রাখতে প্রচুর শাকসবজি-ফলমূল খান, পেট পরিষ্কার রাখতে খেতে পারেন ইসবগুলের ভুসি। তবে যদি মনে হয় সমস্যাটা হরমোনের, তবে চিকিত্সকের শরণাপন্ন হওয়াই ভালো।

তবে মৌসুম যাই হোক না কেন, ত্বকের ধরন বুঝে বছরজুড়ে মাসে অন্তত একবার ফেসিয়াল করা উচিত। এ ছাড়া প্রতিদিনের রুটিনে ক্লিনজিং-টোনিং-ময়েশ্চারাইজিং খুবই গুরুত্বপূর্ণ, এই প্রক্রিয়াটি আপনার ত্বককে পরিষ্কার ও আর্দ্র রাখবে।

 

মন্তব্য